“আমরা” গোষ্ঠী ও বাংলাদেশ সরকারের মধ্যে বিনিময়কৃত প্রচার ও বিভিন্ন বিষয়ে লিখিত কয়েকটি চিঠি

Posted on Posted in 4

<৪,১৮৩,৩৬২-৩৬৪>

অনুবাদকঃ মুশাররাত আলম মৌ

শিরোনামসূত্রতারিখ
১৮৩। “আমরা” গোষ্ঠী ও বাংলাদেশ সরকারের মধ্যে বিনিময়কৃত প্রচার ও বিভিন্ন বিষয়ে লিখিত কয়েকটি চিঠি“আমরা” ও বাংলাদেশ সরকার২৮ জুলাই থেকে ৭ আগস্ট, ১৯৭১

 

জাকার্তা, জুলাই ২৮, ১৯৭১

জনাব মাকসুদ আলী,

       ১। একটি খসড়া ডি.ও এখানে সংযুক্ত আছে। এটি আপনাদের তরফ থেকে এই চিঠির নিম্নে উল্লেখিত দুই ব্যক্তির নামে প্রেরণ করা হয়েছে। ১ নং ভদ্রলোকের ব্যাপারে আমাদের পুর্বোক্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। দ্বিতীয় জনের ব্যাপারে অল্প কিছু দিনের মধ্যেই প্রতিবেদন প্রকাশিত হবে। যাইহোক নির্দিষ্ট ভাবে এই দুই ভদ্রলোকের ব্যাপারে কোন দৃষ্টিভঙ্গি গঠন করার পুর্বে আমরা তাদেরকে তাদের মনোভাব বদলানোর আরেকটি সুযোগ দেয়ার ইচ্ছা পোষণ করেছি। আপনাদের পক্ষ থেকে প্রস্তাবিত ডি.ও গ্রহণ করার পড়ে আমরা তাদের প্রতিক্রিয়া পর্যবেক্ষন করব। অনুগ্রহ পুর্বক আপনাদের গৃহীত কার্যক্রম সম্পর্কে আমাদের অবহিত করবেন।

       ২। আপনাদের কাছে পাঠানো আগের একটি চিঠিতে আমি কিছু শুভাকাঙ্ক্ষীদের ব্যাপারে জানতে চেয়েছিলাম। আমি আনন্দিত হব যদি আপনি তাদেরকে কিছু লেখার জন্য অনুরোধ করেন।

৩। আমি কি জানতে পারি প্রতিবেদন ও খবরের খণ্ডাংশ গুলো আপনার কাছে নিয়মিত পৌঁছচ্ছে কিনা? আমি আশঙ্কা করছি যে, সেগুলো হারিয়ে যাচ্ছে না বা সেগুলো অন্য কারো হাতে পরছে না। এখনও পর্যন্ত কোন উপকরন পৌছয়নি যেমনটি আপনি ১ জুলাই এর চিঠিতে ইঙ্গিত করেছিলেন। কিছু জিনিস অন্যান্য সূত্র থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে এবং সেগুলোর উপযুক্ত ব্যবহার করা হচ্ছে।

শুভেচ্ছা সহ

বিনীত

আমরা

জনাব মাকসুদ আলী

সংবাদ সহদুত

বাংলাদেশ মিশন

কলকাতা

 

_ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _

 

 

প্রিয় দেশবাসী,

       বাংলাদেশের সংগ্রাম এর ইতিহাস সম্পর্কে আপনাদের কাছে বর্ননা করা প্রয়োজন বলে মনে হয় না। বাঙালিরা অভুতপুর্ব ভাবে আত্মত্যাগ স্বীকার করছে এবং সংযুক্ত পাকিস্তানের জন্য অনেক কষ্টের মধ্য দিয়ে গেছে। কিন্তু লোভী শাসকেরা আমাদের ২৩ বছরের আত্মত্যাগ ও কষ্টে সন্তুষ্ট ছিল না। পরিষ্কারভাবে তাদের কার্যকলাপও উদ্দেশ্য ছিল আমাদের দাসত্বে আবদ্ধ করা।

       ২। বাঙালিরা এখন যেকোন ধরনের সশস্ত্র, রাজনৈতিক অথবা অর্থনৈতিক অত্যাচারকে প্রতিরোধ ও নির্মুল করার জন্য দৃঢ় সংকল্পের সাথে জেগে উঠছে। যতক্ষণ পর্যন্ত একজন পাকিস্তানী সৈন্যও এই দেশের মাটিতে থাকবে ততক্ষণ বাংলাদেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষ বিশ্রাম নেবে না। জনগনের এই সংকল্প তাদের সাফল্য ও গৌরবের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। বিশ্ব এই সত্যকে স্বীকার করে নিয়েছে এবং দেশগুলো তাদের নীতিকে ধীরে ধীরে গঠন ও রুপায়ন করছে।

       শত্রুরা আতঙ্ক তাড়িত হচ্ছে এবং প্রতিদিন পরাজিত হচ্ছে। বাংলাদেশের বিজয় অতি নিকটে।

       ৩। এটি বলার অপেক্ষা রাখে না যে, বাংলাদেশ এখন একটি বাস্তবতা। বন্ধু, শুভাকাঙ্খী এবং বিশেষত বাঙালিরা যে যেখানে অবস্থান করছে, তাদের এ ব্যাপারে কোন সন্দেহ থাকা উচিত নয়।

আমাদের প্রবাসী জনগনের দেয়া সেবাকে বাংলাদেশ সরকার স্বীকার করে। তারা ইতোমধ্যে তাদের নীতি ঘোষণা করেছে যে, বাংলাদেশের প্রয়োজনের সময়ে দেয়া আত্মত্যাগ ও সেবাকে যথাযথভাবে পুরস্কৃত করা হবে। সরকারে কাছে পাকিস্তানের সহযোগী ও দালালদের কার্যক্রম সম্পর্কেও তথ্য ও প্রমান আছে এবং যথা সময়ে তাদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

                                                                                                     বিনীত,

১। জনাব এম এ আজিজ

আইপিইসিসি এর ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল

হাউস নগ-৫৩ ডিজেএল, তান্ডজাং (মেন্তাং) জাকার্তা

২। জনাব জয়নুল আবেদিন

পাকিস্তানের প্রেস কাউন্সেলর

৫১, ডিজেএল, তান্ডজাং (মেন্তাং)

জাকার্তা।

 

_ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ __

 

 

 

 

ডিজেএল পেমান্দাঙ্গান  ১১/১০

গুনাং সাহারি, আন্তজল দেপান এআইপি

জাকার্তা-উতারা, জাকার্তা

জুলাই ২১, ১৯৭১

জনাব মাকসুদ আলী,

       আপনার পাঠানো ১ জুলাই এর চিঠির জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। এটি আমাদের অনেক আনন্দ দিয়েছে। এটি বিভিন্ন দিক থেকে আমাদের শঙ্কা ও সন্দেহ দুর করেছে। আমরা আপানার কাছ থেকে নিয়মিত চিঠি পাবার আশা করি অন্তত কি প্রেরিত হচ্ছে সেটি সম্পর্কে অবহিত থাকার জন্য।

       আমি এখানে অনেক লোকের কাছ থেকে আপনার কোথা শুনেছি। আপনাকে এখনও আপনার বন্ধু ও অনুরাগীরা আন্তরিকভাবে মনে রেখেছে। আপনি তাদের মনে চিরস্থায়ী ছাপ রেখে গিয়েছেন।

       আপনার সাথে সেখানে আমার অনেক বন্ধু আছেন। তারা হলেনঃ বাশার ভুইয়া, এ বাশার (পাটোয়ারি), এবং সিরাজুল হক। প্রথম জন এবং আমি একই গ্রামের অধিবাসী। আমি উপরোক্ত ঠিকানায় তাদের চিঠি পেলে অত্যন্ত আনন্দিত হব। অনুগ্রহপুর্বক আমার শুভেচ্ছা তাদের নিকট পৌছিয়ে দেবেন।

       বিভিন্ন বাঁধা বিপত্তি পেড়িয়েও আমরা বেশ ভালই আছি। সব কিছু আগের মত করার চেষ্টা এখনও চলমান রয়েছে।

       শুভেচ্ছা সহ…

বিনীত

আমরা

জনাব মাকসুদ আলী

সংবাদ সংযুক্তি

 

 

                                                                                 আগস্ট ৭,১৯৭১

নং তথ্য ১০/০১/৭১

আমার প্রিয় ‘আমরা’

২১ ও ২৮ জুলাই, ১৯৭১ তারিখের আপনাদের চিঠিগুলোর দিকে সদয় দৃষ্টিআকর্ষণ করছি।

আপনাদের দেয়া পরামর্শের ভিত্তিতে ইতোমধ্যে আমরা উভয় ব্যক্তির উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র সচিবের স্বাক্ষর সহ চিঠি পাঠিয়েছি।

আমরা আপনাদের কাছ থেকে প্রতিবেদন ও সংবাদপত্রের খণ্ডাংশ পাচ্ছি। আমরাও আপনাদের  কাছে নিয়মিত “জয় বাংলা”, “দ্য পিপলস”, এবং সাপ্তাহিক বুলেটিন “বাংলাদেশ” এর কপি পাঠাচ্ছি। অনুগ্রহপুর্বক আমাদের জানাবেন আপনারা নিয়মিত সেগুলো পাচ্ছেন কিনা।

এখানে আপনাদের বন্ধুদের ব্যাপারে বলতে গেলে, এই মিশনে দুই জন বাশার সাহেব আছেন। কিন্তু দুইজনের একজনও আপনাকে চেনেন বলে মনে হয় না। জনাব সিরাজুল হক, শ্রুতিলেখক, বহুদিন আগে মিশন ছেড়ে চলে গিয়েছেন।

শুভেচ্ছা সহ।

                                                                                                         বিনীত

                                                                                                          স্বাক্ষরিত

                                                                                           জনাব মাকসুদ আলী

                                                                                           সংবাদ সহদুত

প্রতি

‘আমরা’

জাকার্তা ১, পেমিন্ডাঙ্গান ১১/১০,

গুনাং সাহারি

আন্তজল দেপান এ আই পি

জাকার্তা-উতারা, ইন্দোনেশিয়া