জোনাল কাউন্সিল এবং যুব ক্যাম্পের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সম্পর্কে কেবিনেট সচিবের একটি চিঠি

Posted on Posted in 3
শিরোনামসূত্রতারিখ
জোনাল কাউন্সিল এবং যুব ক্যাম্পের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সম্পর্কে কেবিনেট সচিবের একটি চিঠিবাংলাদেশ সরকার, কেবিনেট ডিভিশন২৩ আগস্ট, ১৯৭১

 

অনুগ্রহপূর্বক ২০/৭/৭১ তারিখের আমার অফিস থেকে পেটেন্ট অনুমোদন এবং হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ সংক্রান্ত পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন কর্মকর্তার কাছে প্রচারিত আদেশের একটি মুখবন্ধ অনুলিপি সংগ্রহ করুন। আমি আশা করি এটি অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনপ্রাপ্ত (আদেশের অনুলিপি ২৮/৭/৭১ তারিখে অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। )

(এইচ. টি. ইমাম)

মন্ত্রিপরিষদ সচিব

২৩/৮/৭১

No.37(3)/Cab                                                                                                                                                       তারিখ: ২৩/৮/৭১

 

বরাবর,     

১/ অর্থমন্ত্রী

২/ অর্থসচিব

৩/ প্রতিরক্ষা সচিব

 

আমি জানতে পেরেছি যে, আঞ্চলিক প্রশাসন ও যুব ক্যাম্পের অধিদপ্তরের হিসাব একসঙ্গে চালু হয়েছে। আমি আগেই খুব পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করেছিলাম যে এই দুই সংস্থার বাজেট আলাদা। অর্থমন্ত্রী আঞ্চলিক প্রশাসনের বাজেট হিসেবে ২,৪২,১২১.০০ রুপি বরাদ্দ রেখেছেন। যুব ক্যাম্পের ব্যয় হিসেবে তিনি ১০,০০,০০০.০০ রুপি বরাদ্দ রেখেছেন। এই দুই খাতের হিসাব স্বতন্ত্রভাবে আলাদা রাখা হয়েছে। জনাব এ. কে. চৌধুরী আঞ্চলিক প্রশাসনের সকল হিসাব জনাব পি. সি. ভৌমিকের কাছে হস্তান্তর করবেন যিনি আঞ্চলিক প্রশাসনের হিসাবরক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন। আঞ্চলিক প্রশাসনের সম্পর্কযুক্ত সকল হিসাবের ব্যাপারে জনাব ভৌমিক দায়িত্বশীল থাকবেন। তিনি সরাসরি ডেপুটি সেক্রেটারি (প্রশাসন) এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তার তত্ত্বাবধানে কাজ করবেন। হিসাবগুলো সঠিক ও সংরক্ষিতভাবে আছে, এটা প্রশাসনিক কর্মকর্তা নিশ্চিত করবেন। ডি. এস. নিয়ন্ত্রিত ভাবে ক্যাশবুক পরীক্ষা করবেন। জনাব এ. কে. চৌধুরী যুবক্যাম্প সম্পর্কিত ব্যয়ের হিসাব বজায় রাখবেন। আমি ইতোমধ্যে সরকারের কাছে C.A. পদের অনুমোদন ও তার নিয়োগের জন্য প্রস্তাব জমা দিয়েছি। এটি না হওয়া পর্যন্ত তিনি অস্থায়ীভিত্তিতে কাজ করবেন।

 

১. আনুমানিক বার্ষিক ব্যয় আঞ্চলিক অফিসের জন্য বরাদ্দকৃত বাজেট – ২,০৮,৪৭৫.০০

    (ইতোমধ্যেই অর্থমন্ত্রী দ্বারা অনুমোদনকৃত)                                               রুপি

 

২. আঞ্চলিক প্রশাসনের জন্য সম্পূরক বাজেট (আইন অনুমোদিত/উৎসে অনুমোদিত)                                  -৩৩,৬৪৬.০০ টাকা

৩. আঞ্চলিক অফিসের অতিরিক্ত পদসমূহের জন্য সম্পূরক বাজেট                                                              -৫১,০০০.০০ টাকা

৪. উপ-আঞ্চলিক অফিসের বাজেট                                                                                                             -২,৪০,০০০.০০ টাকা

৫. ভ্রমন ভাতা এবং মহার্ঘভাতার জন্য বাজেট                                                                                              -১৭,০০০.০০ টাকা

৬. MNA এবং MPA দের ভাতার জন্য বাজেট                                                                                         -৩,০০,০০০.০০ টাকা

*MNA= Member of National Assembly (জাতীয় পরিষদের সদস্য) *MPA= Member of Provincial Assembly (প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য)

৭. আঞ্চলিক পরিষদের জন্য বাজেট                                                                                                            -৪০,২০০.০০ টাকা

৮. যুব শিবিরের পরিচালকের দপ্তরের জন্য বাজেট (প্রধান কার্যালয়)                                                               -৬৫,২০০.০০ টাকা

৯. অগ্রীম ভাতার জন্য বাজেট -মূল টাকা   

১০. পরিবহন পরিচালকের দপ্তরের জন্য বাজেট                                                                                           -১,৪৪,৪০০.০০ টাকা

১১. আন্তঃ নিরাপত্তা পরিকল্পনার জন্য বাজেট                                                                                               -১,৪৪,৪০০.০০০ টাকা

 

উপরোল্লিখিত বাজেটগুলোর মধ্যে শুধুমাত্র ১ এবং ২ নাম্বারটি আঞ্চলিক অফিসের সম্মানে/সার্থে অনুমোদিত হয়। অন্যান্য আয়ব্যায় সংক্রান্ত হিসাবের সাথে হওয়া জরূরী ব্যায়সমূহ অর্থমন্ত্রীর দ্বারা অনুমোদনে বাধ্য থাকে। যখন ব্যয় হয় তখন আমরা তিনটি বিশদ নীতি অনুসরন করি-

 

১. আঞ্চলিক প্রশাসনের অনুমোদিত বাজেট কঠোরভাবে নেতৃত্ব অনুযায়ী অনুসরন করা হবে।

২. যুব শিবিরের বাজেট এর স্ব-কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী অনুসরন করা হবে।

৩. মুক্তিবাহিনীর সাথে জড়িত অবশ্যম্ভাবী ও জরূরী ব্যায়সমূহ প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের খরচ বৃদ্ধির মাধ্যমে হতে পারে। এই ব্যায়সমূহের মধ্যে কিছু বিষয় যেমন মুক্তিবাহিনীর যাতায়ত খরচ, হাসপাতাল খরচ যেমন রক্তবৃদ্ধি, ডায়েট ইত্যাদি, মৃতদেহ কবর দেয়া, শহীদদের বিধবা স্ত্রীদের সহায়তা ইত্যাদি, এইসব খরচ, হয় চীফ অব স্টাফ অথবা উনার অনুমোদিত কোন অফিসার কর্তৃক প্রত্যায়িত হতে হবে। যখন এই খরচগুলো হয় তখন আমরা এই নীতি দ্বারা পরিচালিত হই যে, আমাদের সব প্রচেষ্টা প্রতিরক্ষা কেন্দ্রীক হবে এবং মুক্তিবাহিনীর সাথে যুক্ত সব খরচকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেয়া হবে। এর আগে এক মিটিংয়ে আঞ্চলিক পরিষদ ২০০০০০ রুপি মুক্তিবাহিনীর অংশ হিসেবে রাখার একটি সিদ্ধান্ত গ্রহন করে। সেই সাথে আমি পূর্বাঞ্চলীয় মুক্তিবাহিনীর জন্য ২০০০০০ রুপি ৩ মাসের জন্য রাখার বিধান করতে সরকারিভাবে চেষ্টা করি।

এস.ডি/- এইচ.টি. ইমাম

সচিব

পুর্বাঞ্চল

২৮.০৭.৭১