ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে সামরিক সরকারের বিভিন্ন শাস্তিমূলক ব্যাবস্থা

Posted on Posted in 7

 

শিরোনামঃ ১৭৫। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে সামরিক সরকারের বিভিন্ন শাস্তিমূলক ব্যাবস্থা

সূত্রঃ সরকারী দলিলপত্র উদ্ধৃতঃ এক্সপেরিয়েন্স – প্রাগুক্ত

তারিখঃ ১৩ সেপ্টেম্বর, ১৯৭১

[ এই দলিলটি উদ্ধৃত হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলা বিভাগ প্রকাশিত সাহিত্য পত্রিকা, শীত সংখ্যা হতে। প্রকাশ কালঃ ১৯৮২ ইং। ]

.

নিবন্ধন রক্ষকঃ

পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর ও সামরিক আইন প্রশাষকের অধিদপ্তর ও অফিস সংশ্লিষ্টদের জন্য নিম্নোলিখিত আদেশ সমূহঃ

 

        ১) সামরিক আইন সদর দপ্তর জোন ‘বি’ ঢাকা।

 

   আমি, ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর লেফট্যানেন্ট জেনারেল টিক্কা খান HQA, S.PK.

 

এতদ্বারা আপনাকে সতর্ক করা হইতেছে, আপনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ডঃ মুনির চৌধুরী, ভবিষ্যতে আপনার কোন প্রকার রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকান্ডে অংশগ্রহনে কোন প্রকারের প্রশ্রয় দেয়া হইবে না.

 

স্থানঃ ঢাকা                                    এসডি লেফটেনেন্ট জেনারেল টিক্কা খান

১ সেপ্টেম্বর ১৯৭১                            সামরিক আইন প্রশাষক জোন ‘বি’ এবং

                                                পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর

       

       

       

        ২) সামরিক আইন এর প্রধান সদর দপ্তর ঢাকা।

 

    আমি, ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর লেফট্যানেন্ট জেনারেল টিক্কা খান HQA, S.PK.

 

এতদ্বারা আপনাকে সতর্ক করা হইতেছে, আপনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ডঃ নীলিমা ইব্রাহিম,  ভবিষ্যতে আপনার কোন প্রকার রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকান্ডে অংশগ্রহনে কোন প্রকারের প্রশ্রয় দেয়া হবে না।

                                               

স্থানঃ ঢাকা                                    এসডি লেফটেনেন্ট জেনারেল টিক্কা খান

১ সেপ্টেম্বর ১৯৭১                            সামরিক আইন প্রশাষক জোন ‘বি’ এবং

                                                পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর

 

       

        ৩) সামরিক আইন সদর দপ্তর জোন ১৩ ঢাকা।

 

  আমি, ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর লেফটেনেন্ট জেনারেল টিক্কা খান HQA, S.PK.

এতদ্বারা আপনাকে সতর্ক করা হচ্ছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের ডঃ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, আপনি ভবিষ্যতে কোন প্রকার রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকান্ডে অংশগ্রহনে কোন প্রকারের প্রশ্রয় দেয়া হইবে না।

 

 

স্থানঃ ঢাকা                                    এসডি লেফটেনেন্ট জেনারেল টিক্কা খান

১ সেপ্টেম্বর ১৯৭১                            সামরিক আইন প্রশাষক জোন ‘বি’ এবং

                                                পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর

       

৪) সামরিক আইন সদর দপ্তর, জোন ‘বি’ ঢাকা

সামরিক আইনের ধারা ৮০ অনুযায়ী, প্রধান সামরিক আইন প্রশাষক হিসাবে অর্পিত ক্ষমতা বলে, আমি লেফটেন্যান্ট জেনারেল টিক্কা খান HQA. S.PK, জোন “বি” এর সামরিক আইন প্রশাষক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর হিসাবে, এতদ্বারা বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ডঃ মনিরুজ্জামান কে অনতিবিলম্বে চাকরী অবসায়ন এর আদেশ এবং সামরিক আইন ৭৮ ধারা অনুযায়ী আপনাকে ৬ মাসের জন্য আটক রাখার নির্দেশ প্রদান করা হইলো

স্থানঃ ঢাকা                                    এসডি লেফটেনেন্ট জেনারেল টিক্কা খান

১ সেপ্টেম্বর ১৯৭১                            সামরিক আইন প্রশাষক জোন ‘বি’ এবং

                                                পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর

 

                ৫) সামরিক আইন সদর দপ্তর, জোন ‘বি’ ঢাকা

সামরিক আইনের ধারা ৮০ অনুযায়ী, প্রধান সামরিক আইন প্রশাষক হিসাবে অর্পিত ক্ষমতা বলে, আমি লেফটেন্যান্ট জেনারেল টিক্কা খান HQA. S.PK, জোন “বি” এর সামরিক আইন প্রশাষক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর হিসাবে, এতদ্বারা বাংলা উন্নয়ন বোর্ড এর চেয়ারম্যান এবং উক্ত বিশ্ব বিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অতিরিক্ত প্রভাষক হিসেবে ডঃ ইনামুল হক কে চাকরী অবসায়ন এর আদেশ প্রদান করা হলো।

স্থানঃ ঢাকা                                    এসডি লেফটেনেন্ট জেনারেল টিক্কা খান

১ সেপ্টেম্বর ১৯৭১                            সামরিক আইন প্রশাষক জোন ‘বি’ এবং

                                                পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর

 

৬) সামরিক আইন সদর দপ্তর, জোন ‘বি’ ঢাকা

সামরিক আইনের ধারা ৮০ অনুযায়ী, প্রধান সামরিক আইন প্রশাষক হিসাবে অর্পিত ক্ষমতা বলে, আমি লেফটেন্যান্ট জেনারেল টিক্কা খান HQA. S.PK, জোন “বি” এর সামরিক আইন প্রশাষক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর হিসাবে, এতদ্বারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক ইতিহাস বিভাগের প্রধান ডঃ এ বি এম হাবিবুল্লাহ কে অনতিবিলম্বে চাকরী অবসায়ন এর আদেশ প্রদান করা হইলো।

 

স্থানঃ ঢাকা                                    এসডি! লেফটেনেন্ট জেনারেল টিক্কা খান

১ সেপ্টেম্বর ১৯৭১                            সামরিক আইন প্রশাষক জোন ‘বি’ এবং

                                                পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর

                                                এসডি!- এস. সাজ্জাদ হোসেন

                                                ১৫.০৯.৭১

 

.

 

ঘোষনা

.

……. এবং যেহেতু জনাব সৈয়দ আকরাম হোসেন বাংলা বিভাগের সর্বশেষ নিযুক্ত অস্থায়ী অধ্যাপক। পূর্বোক্ত তারিখের মধ্যে কাজ নিয়ে প্রতিবেদন করতে ব্যার্থ এবং কর্তৃপক্ষের অনুমতি ব্যাতীত এভাবে অনুপস্থিত থেকে ইচ্ছাকৃত ভাবে কর্তব্যে অবহেলা করিয়াছেন।

 

এবং যেহেতু জোন ‘বি” এর গভর্নর এবং সামরিক আইন প্রশাষক সাথে আদেশ করিয়াছেন, “ যে সব অফিসার ১৫ই জুন ১৯৭১ এর বিকালের মধ্যে কাজে যোগদানে ব্যার্থ হইয়াছেন, পরবর্তী নির্দেশ দেয়া পর্যন্ত ১৬ই জুন ১৯৭১ এর পুর্বাহ্নের সাথে সাথে তাহাদের স্থগিতাদেশ কার্যকর হইবে।

 

এবং যেহেতু বিশ্ববিদ্যালয় তার সব কর্মচারীদের জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি করিয়াছে যে, উপরোক্ত ফলাফলের দৃষ্টান্ত স্বরুপ সকলকে সর্বশেষ ১৫-০৬-১৯৭১ এর মধ্যে দায়িত্বে যোগদান করার। 

 

সেহেতু, জনাব সৈয়দ আকরাম হোসেন কে এতদ্বরা জানানো যাচ্ছে যে, জোন “বি” এর গভর্নর এবং সামরিক আইন প্রশাষকের ব্যাক্ত আদেশ এবং ৫ই আগষ্ট তাহাতে বিশ্ববিদ্যালয় মন্ত্রনা সভার সমাধান অনু্যায়ী তাহার স্থগিতাদেশ ১৬ই জুন ১৯৭১ এর পূর্বাহ্নের মধ্যে কার্যকর হবে।

 

 আদেশক্রমে

এসডি আই –নুর উদ্দিন আহমেদ 

২৮-০৭-৭১

নিবন্ধন রক্ষক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

মেমো নং- c/5917-24                                তারিখঃ ০৩-০৯-৭১