দলিল প্রসঙ্গ: মুজিবনগর- গণমাধ্যম

Posted on Posted in 6

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ: দলিলপত্র থেকে বলছি (৬ষ্ঠ খণ্ড)

দলিল প্রসঙ্গঃ মুজিবনগর- গণমাধ্যম

স্বাধীনতার সপক্ষে বাংলাদেশ ও বিদেশে বাঙ্গালীদের উদ্যোগে প্রকাশিত সংবাদপত্র সমূহ এই খন্ডে সন্নিবেশিত হয়েছে। মুজিবনগরসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে প্রকাশিত সংবাদ পত্র গুলিকে গ্রন্থের প্রথম অধ্যায়ে (১-৫৬০ পৃষ্ঠা) এবং বৃটেন, আমেরিকা ও কানাডাসহ বিদেশে প্রকাশিত সংবাদপত্র গুলিকে দ্বিতীয় অধ্যায়ে (৫৬১-৭৪৮ পৃষ্ঠা) সংযোজন করা হয়েছে। গেরিলা আক্রমণ ও সম্মুখ সমরসহ মুক্তিযোদ্ধাদের নানা ধরণের তৎপরতার খবরের পাশাপাশি এই পত্রিকাগুলিতে থাকতো বাংলাদেশ সরকারের কার্যক্রম ও নির্দেশাবলী, রাজনৈতিক দল ও নেতৃবৃন্দের বিবৃতি ও তৎপরতা, প্রবাসে বাঙালীদের সংগঠন ও অন্দোলনের খবর এবং বাঙালী কূটনীতিকদের কার্যক্রমের বিস্তারিত বিবরণী। উল্লেখ্য যে, বিভিন্ন ব্যক্তি, গোষ্ঠী ও রাজনৈতিক দলের উদ্যোগে প্রকাশিত এই পত্রিকাগুলি সকল পর্যায়েই মুজিবনগর সরকারের প্রতি অনুগত ছিল।

 

প্রথম অধ্যায়ে সন্নিবেশিত দুটি ছাড়া অন্য সংবাদ পত্রগুলির ভাষা বাংলা। ইংরেজি পত্রিকা দুটিকে অধ্যায়ের শেষে সংযোজন করা হয়েছে (৪৮০-৫৬০ পৃষ্ঠা)। দ্বিতীয় অধ্যায়ে সংযোজিত অধিকাংশ সংবাদ পত্রই ইংরেজিতে প্রকাশিত হতো। এক্ষেত্রে বাংলায় প্রকাশিত পত্রগুলিকে লন্ডনস্থ সংবাদ পত্র অংশে দ্বিতীয় পর্যায়ে সন্নিবেশ করা হয়েছে। বিন্যাসের ক্ষেত্রে এ গ্রন্থে তারিখ ভিত্তিক কালানুক্রমিকতার পরিবর্তে মুদ্রিত সংবাদ পত্রটির ধারাআহিকতাকে বজায় রাখা হয়েছে। অধিকাংশ সংবাদপত্রেরই প্রথম অংশ সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি বলে সংগৃহীত সংবাদপত্রের তারিখ ভিত্তিক প্রথম সংখ্যাটি শুরুতে মুদ্রিত হয়েছে।

 

সন্নিবেশিত প্রতিটি পত্রিকার পরিচিতি প্রারম্ভিক পৃষ্ঠার পাদটীকায় মুদ্রিত হয়েছে। বাংলাদেশের অভ্যান্তরে প্রকাশিত অধিকাংশ সংবাদপত্রে সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রকের ছদ্মনাম ব্যবহৃত হতো, গ্রন্থের পাদটীকায় সে নামই মুদ্রিত হয়েছে।

 

সন্নিবেশিত সংবাদ পত্রগুলো গণহত্যা ও নির্যাতন, গেরিলা ও সশস্ত্র যুদ্ধের খবরও পরিবেশন করতো। কিন্তু এ দুটি বিষয়ের ওপর প্রকাশিত কয়েকটি ছাড়া, অবশিষ্ট বিবরণ দলিল পত্রের অন্যান্য প্রাসঙ্গিক খন্ডে স্থান দেয়ার জন্য এই খন্ডে বাদ দেয়া হয়েছে।