পাক হানাদার বাহিনী কর্তৃক বাংলাদেশের গণহত্যা রোধে এগিয়ে আসার জন্য জাতিসংঘ ও বৃহৎ শক্তিবর্গের প্রতি মেজর জিয়ার আহবান

Posted on Posted in 3
শিরোনামসূত্রতারিখ
পাক হানাদার বাহিনী কর্তৃক বাংলাদেশেরগণহত্যা রোধে এগিয়ে আসার জন্যজাতিসংঘ ও বৃহৎ শক্তিবর্গের প্রতি মেজরজিয়ার আহবানশব্দসৈনিক”- শহীদুল ইসলাম সম্পাদিত(১৯৭২)। বেতার বাংলা, বিজয় দিবস সংখ্যা১৯৭৮৩০ মার্চ, ১৯৭১

 

ঘোষণাঃ

পাঞ্জাবীরা চিটাগাং শহরে স্বাধীন বাংলার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের দমনের জন্য ৩য় কমান্ডো ব্যাটালিয়নকেকাজেলাগিয়েছিল। কিন্তু তাদেরকে পিছু হটতে বাধ্য করা হয়েছে এবং অনেককে হত্যাও করা হয়েছে।

 

পাঞ্জাবীরা বেসামরিক আবাসস্থল এবং গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ধ্বংসের জন্য এফ-৮৬ এয়ারক্রাফটের যথেচ্ছ ব্যবহার করেছে। তারা নৃশংসভাবে বেসামরিক জনগণ, নারী, পুরুষ এবং শিশুদেরকে হত্যা করেছে। এখন পর্যন্ত অন্তত…..শুধু চট্টগ্রাম অঞ্চলেই হাজারহাজার সোমরিক বাঙালি হত্যা করা হয়েছে।

 

স্বাধীন বাংলার মুক্তি বাহিনী পাঞ্জাবীদের এক স্থান থেকে আরেক স্থানে পিছু হঠতে বাধ্য করছে।

 

বর্তমানে পাঞ্জাবীরা ২ ব্রিগেড সেনা, নৌওবিমানবাহিনী ব্যবহার করছে। প্রকৃত অর্থে এটি একটি যৌথ অভিযান।

 

আমি জাতিসংঘও অন্যান্য শক্তিশালী রাষ্ট্রকে আবারও অনুরোধ করছি হস্তক্ষেপকরতেএবংসরাসরি আমাদের সাহায্য করতে। দেরিমানেইআরওলাখলাখমানুষেরমৃত্য।

 

 

স্বাক্ষর

মেজর জিয়াউর রহমান

৩১/৩/৭১

 

*স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের মাধ্যমে প্রচারের জন্য জাতিসংঘ ও বৃহৎ শক্তিবর্গের প্রতি মেজর জিয়ার স্বহস্ত লিখিত আবেদনপত্রের অনুলিপি হতে। উল্লেখ্য যে, মূল কপিতে সাক্ষর প্রদানকালে তিনি ভুলক্রমে ৩০শে মার্চের স্থলে ৩১ মার্চ লিখেছিলেন।