বাংলাদেশ সংকট নিরসনে সংশ্লিষ্ট সরকার এবং জাতিসংঘে চাপ সৃষ্টির আহবান সংক্রান্ত বিভিন্ন লবির কাছে লিখিত চিঠি

Posted on Posted in 4

<৪,৬৬,১১৯-১২০>

অনুবাদকঃ তন্দ্রা বিশ্বাস

      শিরোনামসূত্রতারিখ
৬৬। বাংলাদেশ সংকট নিরসনে সংশ্লিষ্ট সরকার এবং জাতিসংঘে চাপ সৃষ্টির আহবান সংক্রান্ত বিভিন্ন লবির কাছে লিখিত চিঠিইউনাইটেড এ্যাকশন বাংলাদেশসেপ্টেম্বর,১৯৭১

 
ইউনাইটেড এ্যাকশন–বাংলাদেশ
৯১. কমার্শিয়াল রোড,লন্ডন,ই. ১.

 

               পরিচালনা পরিষদের জন্য অনুলিপি

—————————-
—————————-
—————————-                                                                            

জনাব,
আপনার অবগতির জন্য ইয়াহিয়া খানের সাম্প্রতিক প্রেস সাক্ষাৎকারটি যা ১ সেপ্টেম্বর “লা ফিগারো’তে এবং পরবর্তীতে ২ সেপ্টেম্বর ‘হিন্দুস্তান স্ট্যান্ডার্ড’ এ প্রকাশিত হয়েছিল, তা এখানে লিপিবদ্ধ করার জন্য আমরা স্বাধীন মতামত প্রকাশের আশ্রয় গ্রহণ করছি।

তার সৈনিকদের হত্যা করার দায়ে তিনি সুস্পষ্টত গণহত্যার অনুমতি দিচ্ছেন এবং ভয়ংকর একটি ভুল করতে বদ্ধপরিকর হয়েছেন। দশ লাখের বেশি মানুশ খুন হয়েছে, নব্বই লাখের বেশি সন্ত্রস্ত বাঙালি সীমান্ত পার করেছে, বাংলাদেশের সাড়ে ছয় কোটিরও বেশি বাঙালি দুর্ভিক্ষের সম্মুখীন হয়েছে, কিছু জেলায় অনাহারের সূচনা হয়েছে, গৃহযুদ্ধের সম্মুখীন হয়েছে, ইয়াহিয়া এক রাজনৈতিক কানাগলির সাক্ষাৎ পেয়েছেন এবং তার কাছে দুইটি পথ খোলা আছে, হয় বাংলাদেশে বিশৃংখলা তৈরি নতুবা ভারতের সাথে যুদ্ধ।

সারা বিশ্বকে ইয়াহিয়া খানের কৈফিয়ত দিতে হবে কোথায় সাড়ে সাত কোটি বাঙালির নির্বাচিত শেখ মুজিব? ইয়াহিয়া পাঁচজন সেনাধ্যক্ষ নিযুক্ত সেনাবাহিনীর শাসন পরিচালনাকারী পরিষদের মুখপাত্র। তিনি কারো প্রতিনিধিত্ব করেন না। তিনি যেখানে আছেন তা বেয়োনেট এবং বুলেটের ব্যবহার দ্বারা হয়েছেন।

 

শেখ মুজিব কে বিচারাধীন করে তিনি বাংলাদেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষের স্বাধীনভাবে প্রকাশিত ইচ্ছাকে বিচারাধীন করেছেন। কেউ ইয়াহিয়া খান অথবা তার প্রজ্ঞাপন কৌশল আর বিশ্বাস করে না। শেখ জীবিত এবং ভাল আছে শুধু এটুকু বললেই হবে না। আমরা জানতে চাই উনি কোথায় আছেন। শেখ এর একমাত্র অপরাধ হল তিনি একটি নির্বাচন জিতেছেন।

বাঁচার জন্য পালিয়ে যাওয়া নব্বই লাখ মানুষকে ভারত আশ্রয় দিয়েছে। ভারতের সাথে যুদ্ধ শুরু করে বিশ্ব মনোযোগ বিমুখ করার অধিকার ইয়াহিয়ার নেই। শরণার্থীদের সাথে মানিয়ে নেয়ার জন্য ভারতকে অবশ্যই বিশ্বের সাহায্য করা দরকার। সাম্প্রতিক সময়ে “দি টাইমস” বলেছে, পূর্ব পাকিস্তানে যা ঘটছে তা পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয় হতে পারে না।

জনাব, আমরা আপনাকে বাংলাদেশের সংকটাবস্থা এবং বিষয়াদি বিবেচনা করে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি। অনুগ্রহপূর্বক আপনার সরকার এবং জাতিসংঘের উপর চাপ প্রয়োগ করুন। বাংলাদেশকে অবশ্যই এই অবিবেচক শাসকের হাত থেকে রক্ষা করতে হবে। বাঙালিরা ইয়াহিয়া খান ও তার পাঞ্জাবিদের সহকর্মী হয়ে থাকতে চায় না।

 

আপনার অনুগত,

১। এম. এ. সামাদ খান
                                                                                                                                                   ২। আর. ইউ. আহমেদ
                                                                                                                                                   ৩। এ. এইচ. জোয়ার্দ্দার
৪। এ. মতলিব
                                                                                                                                                   ৫। ………….
৬। মোঃ আবদুর রব

 

 

   ইউনাইটেড এ্যাকশন বাংলাদেশের জন্য