বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রী পরিষদ সভার কার্যবিবরনী ও সিদ্ধান্ত

Posted on Posted in 3
শিরোনামসূত্রতারিখ
বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রী পরিষদ সভার

কার্যবিবরনী ও সিদ্ধান্ত

বাংলাদেশ সরকার,

কেবিনেট ডিভিশন

২৯ জুলাই, ১৯৭১

 

মন্ত্রীসভা সাক্ষাৎকার এ মিনিট(minutes) এবং সিদ্ধান্তসমূহঃ ২৯.০৭.৭১ তারিখে

 

মন্ত্রীসভা সিদ্ধান্ত নিল যে, কোন ভাতা চালু রাখা যাবে না অথবা, সরকার এবং স্বশাসিত সংস্থা , শিক্ষক, এবং অন্যান্য বিভাগের কর্মচারীদের পেনশন প্রদান করা হবে।

স্বাধীন জোনগুলোতে প্রশাসনিক যন্ত্রপাতি স্থাপন করা হবে বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হল। এ ধরনের একটি প্রশাসন চালানোর ক্ষেত্রে যেসব সমস্যার সম্মুখীন হবে, সেগুলো পরীক্ষা করা হবে এবং বিশিষ্ট সমস্যাগুলোর সমাধান করা হবে। সদস্য সম্পাদক জনাব বড়ুয়ার সাথে জনাব এ. হান্নান , জনাব জে. জি. ভৌমিক এবং জনাব এস. বড়ুয়ার সমন্বয়ে একটি তদন্ত কমিশন গঠন করা হয়; বাংলাদেশ অর্থ এবং অন্যান্য খাত হতে হিসাব জমা রাখার প্রসঙ্গে নানা অভিযোগ উত্থাপিত হয়।

মন্ত্রীসভা আরও  সিদ্ধান্ত নিল যে, বর্তমান সীমানা এবং বাইরের কেরানিবর্গের জন্য অফিসের বন্দোবস্ত করা হবে।

বর্তমান ভবনের সীমানার কথা মাথায় রেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হল যে, এগুলো অন্য কোথাও স্থাপন করা হবে।

সম্প্রচারে জড়িত মানুষদের বিশেষ কাজের বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হল যে, তাদের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে জায়গার বন্দোবস্ত করা হবে।

– মন্ত্রীসভার সচিব

সকল ব্যক্তিগত সম্পাদক হতে সভাপতি এবং মন্ত্রীবর্গের কাছে অনুলিপি।

                                                                               – মন্ত্রীসভার সচিব

গোপনীয়ঃ

২৯.০৭.৭১- এ মন্ত্রীসভা বৈঠকে মিনিট (minutes)  সিদ্ধান্তসমূহঃ

মন্ত্রীসভার সকল সদস্য উপস্থিত ছিলেন। প্রফেসর ইউসুফ আলীকে এ বৈঠকে বিশেষভাবে আমন্ত্রিত করা হয়।

প্রফেঃ ইউসুফ আলী কর্তৃক উত্থাপিত ত্রাণ এবং পুনর্বাসন এবং যুবশিবির রিপোর্টটি মন্ত্রীসভা কর্তৃক বিবেচিত হয়।

সিদ্ধান্ত নেওয়া হল যে, যুবশিবিরের তরুণদের প্রশিক্ষিত করার জন্যে একটি নির্দিষ্ট সময়সীমা চালু করা হবে। মেধার ভিত্তিতে কিছু শিবির বন্ধ করে দেওয়া হবে, বাকী শিবিরগুলো সঠিকভাবে চালিত হবে।

ত্রাণ প্রসঙ্গে সিদ্ধান্ত নেওয়া হল যে, সামরিক সংযোগ অফিস থেকে কোন ত্রাণ প্রদান করা হবে না এবং ত্রাণ বন্টন কর্তৃপক্ষকে আঞ্চলিক কাউন্সিলের কাছে  অর্পণ করতে হবে যারা মেধার ভিত্তিতে বিশেষ পরিস্থিতি বিবেচনা করবেন।

আরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হল যে, স্বেচ্ছাপ্রকল্পে একটি যুদ্ধের শব সেবার প্রস্তাবনাটি মন্ত্রীসভার অনুমোদনের জন্য উত্থাপিত হবে।

                                                                               – মন্ত্রীসভার সম্পাদক

সকল ব্যক্তিগত সম্পাদক হতে সভাপতি, মন্ত্রীবর্গ এবং প্রফেঃ ইউসুফ আলীর কাছে অনুলিপি।

                                                                               – মন্ত্রীসভার সম্পাদক