বিমান আক্রমণকালীন সতর্কতা সম্পর্কে বিজ্ঞপ্তি

Posted on Posted in 11
শিরোনামউৎসতারিখ
৭৫। বিমান আক্রমণকালীন সতর্কতা সম্পর্কে বিজ্ঞপ্তি১নং সেক্টরের দলিলপত্র১৯৭১

 

কম্পাইল্ড বাইঃ রানা আমজাদ

<১১, ৭৫, ৫৩৯>

 

বিমান আক্রমণকালীন সতর্কতাসমুহ

 

যদি আপনি খোলা জায়গায় থাকেন তাহলে

 

এইগুলি করবেনএইগুলি করবেন না
 

১। সামনে কোনও ঘরবাড়ি বা আশ্রয়স্থল না থাকলে চট করে মাটির উপর উপুড় হয়ে শুয়ে পড়বেন।

 

২। কনুই এর উপর ভর দিয়ে বুকটা মাটি থেকে আলাদা করে রাখবেন।

 

৩। কাছে তুলো বা ন্যাকড়া থাকলে কানে গুঁজে দেবেন; না থাকলে মাটিতে কনুই রেখে আঙ্গুল দিয়ে কানের গর্ত বন্ধ করবেন।

 

৪। রুমাল বা খানিকটা কাপড় দলা পাকিয়ে দাঁতের মধ্যে রেখে দেবেন তাহলে বোমার শকে জিভ কাটবে না। 

 

 

১। বিমান আক্রমণ শুরু হয়ে গেলে ঘরবাড়ির আশ্রয়ে যাবার জন্য ছুটোছুটি করবেন না।

 

২। যতক্ষণ না বিপদ মুক্তির সংকেত শোনা যাবে ততক্ষণ ওপরের দিকে তাকাবেন না।

 

 

 

যদি আশে পাশে ঘরবাড়ি থাকে তাহলে

 

 

৫। সময় থাকলে সবচেয়ে কাছের বাড়িতে বা দরদালানে আশ্রয় নেবার চেষ্টা করবেন; নয়তো খোলা জায়গায় থাকলে উপরে লিখিত নির্দেশমত যা করা উচিৎ তাই করবেন।

 

৩। কোনও দেওয়ালের গায়ে হেলান দিয়ে দাঁড়াবেন না।

৬। রাস্তা থেকে সরে যাবেন।

 

 

 

 

যদি বাড়ির ভেতরে থাকেন তাহলে

 

 

৭। ভেতরের দিকে দেওয়ালের কাছাকাছি থাকবেন, বাইরের দিকের দেওয়ালের দিকে যাবেন না।

 

 

৪। কোনও জানালা বা দরজার ঠিক সামনা সামনি কোনও মতেই থাকবেন না।

 

৮। পারলে দুটি দেওয়ালের কোণের দিকে থাকবেন। ভেতরের ঘরে চৌকাঠের নীচে দাঁড়ানোও নিরাপদ।

 

৫। আশ্রয়স্থলের জানালা বা দরজার কাছের শার্সিগুলির ওপর কোনও কিছু চাপা দিয়ে রাখবেন নয়তো আক্রমণের ধাক্কায় কাঁচ ভেঙে ছড়ালে আরও বিপত্তি ঘটবে।

 

যদি বাসে বা গাড়িতে থাকেন

 

 

৯। গাড়ি থেকে বেরিয়ে আসবেন এবং খোলা জায়গায় থাকলে যা করা উচিৎ তাই করবেন।

 

 

 

 

সিনেমা হলের মধ্যে থাকেন

 

১০। নিজেদের আসনেই বসে থাকবেন

 

৬। দৌড়ে বেরোবার চেষ্টা করবেন না।