মুজিব-ইয়াহিয়া বৈঠক সংকট নিরসনের পথে এগুচ্ছে

Posted on Posted in 2

<02.207.769-770>

 

শিরোনামসূত্রতারিখ
মুজিব-ইয়াহিয়া বৈঠক সংকট নিরসনের পথে এগুচ্ছেদৈনিক পাকিস্তান২১ মার্চ, ১৯৭১

 

মুজিব-ইয়াহিয়া বৈঠক সংকট নিরসনের পথে এগুচ্ছে

(ষ্টাফ রিপোর্টার)

 

          রাষ্ট্রীয় নীতির বর্তমান সংকট নিরসনের পথে মুজিব-ইয়াহিয়া আলোচনায় গতকাল শনিবার অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। সংগ্রামী বাংলার অপ্রতিদ্বন্দ্বী নায়ক মুজিবুর রহমান গতকাল তা দলের শীর্ষস্থানীয় অপর ৬জন সহকর্মীকে নিয়ে পাকিস্রানের প্রেসিডেন্টে ইয়াহিয়া খানের সাথে ১৩০ ম্নিট আলোচনা শেষে তিনি ও তাঁর সহকর্মীগণ সহাস্যবদনে প্রেসিডেন্ট ভবন থেকে বেরিয়ে আসেন। পরে তাঁর বাসভবনে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আলোচনায় কিছুটা অগ্রগতি হয়েছে। শেখ সাহেব বলেন, রাজনৈতিক সংকট সমাধানের পথে তাঁরা এগুচ্ছেন।

          তিনি আরো বলেন, উওভয় দলের উপদেষ্টাদের বৈঠক চলবে এবং তিনি ইয়াহিয়া খানের সাথে আগামীকাল সোমবার সকালে পুনরায় আলোচনায় মিলিত হবেন।

          তিনি বলেন, আমাদের আলোচনা চালু রয়েছে এবং আমরা অগ্রসর হচ্ছি।

 

          এই আলোচনায় পশ্চিম পাকিস্তানের নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণ সম্পর্কে এক প্রশ্নের জওয়াবে তিনি বলেন প্রেসিডেন্ট পশ্চিম পাকিস্তানের বিভিন্ন নেতাদের সঙ্গে পৃথকভাবে এই ব্যপারে আলাপ আলোচনা করবেন। তিনি আরো বলেন, প্রয়োজনবোধে আমরাও যৌথভাবে পশ্চিম পাকিস্তানী নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে পারি।

          গতকালের বৈঠকে শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে যারা ছিলেন, তাঁরা হচ্ছেনঃ সৈয়দ নজরুল ইসলাম, জনাব তাজউদ্দীন আহমদ, খোন্দকার মুশতাক আহমদ, জনাব মনসুর আলী, জনাব এ এইচ এম কামরুজ্জামান ও ডক্টর কামাল হোসেন। অপরপক্ষে প্রেসিডেন্টের সাথে ছিলেন বিচারপতি মিঃ এ, আর, কর্নেলিয়াস, লেঃ জেনারেল পীরজাদা ও জজ-এটর্নী জেনারেল (আর্মি) কর্নেল হাসান।

          তাঁরা একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন সম্পর্কে আলোচনা করেছেন কিনা জিজ্ঞাস করা হলে শেখ মুজিব বলেন, তাঁরা দেশের রাজনীতি সম্পর্কে আলোচনা করছেন।

 

          আলোচনায় তিনি সন্তুষ্ট হয়েছেন কিনা, এই প্রেশ্নের জওয়াবে তিনি জানান, “আমি যখন বলি আলোচনায় কিছুটা অগ্রগতি হয়েছে, তাঁর থেকেই আপনারা বুঝতে পারেন।”

          বর্তমান সমস্যা সমাধানের জন্য তাঁদের এই আলোচনা আর কতদিন অব্যাহত থাকবে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন যে, অবশ্যই অনির্দিষ্টকালের জন্য আলোচনা চলতে পারে না। তিনি বলেন যে, তাঁরা রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিয়ে আলোচনা করছেন এবং এর বেশী কিছু তিনি এখন বলবেন না।

 

          জয়দেবপুরের ঘটনা তিনি উল্লেখ করেছেন কিনা, এই প্রশ্নের উত্তরে জানান যে, তিনি উল্লেখ করেছেন এবং প্রেসিডেন্ট এই বিষয়টি তদন্ত করে দেখবেন বলে জানিয়েছেন।

 

          শেখ সাহেব বলেন যে, তাঁর উপদেষ্টারা প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টাদের সঙ্গে পুনরায় পরিস্থিতি ও সমস্যাবলী সম্পর্কে আলোচনা করবেন। এই তিনজন উপদেষ্টা হচ্ছেনঃ সৈয়দ নজরুল ইসলাম, জনাব তাজউদ্দীন আহমদ ও ডক্টর কামাল হোসেন। এরা তিনজন গত শুক্রবার সন্ধ্যায় দুই ঘণ্টা ব্যাপী প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টাদের সাথে আলোচনা করেন।

 

          উপদেষ্টা পর্যায়ে পরবর্তী বৈঠক কখন অনুষ্ঠিত হবে, জনাব তাজউদ্দিনের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন যে, কয়েকটি খুঁটিনাটি বিষয় জানার অপেক্ষায় তাঁরা রয়েছেন।