যুদ্ধ পরিস্থিতি রিপোর্টঃ বানপুর সাব সেক্টর

Posted on Posted in 11
শিরনামউৎসতারিখ
২৭। যুদ্ধ পরিস্থিতি রিপোর্ট গোজাডাঙ্গা সাব সেক্টর৮ নং সেক্টরের দলিলপত্র১৯৭১

 

 

ট্রান্সলেটেড বাইঃ Razibul Bari Palash

<১১, ২৭, ৪১৪-৪৩২>

 

 

ক্রমিক নংসূত্র, নম্বর ও তারিখতথ্য অন্তর্ভুক্তির তারিখঘটনা
০১    G-0083 dt 220600

 

26671২৬০১০০ টায় আমাদের বাহিনী রাজাপুর বি ও পি দখল করে। বাধবখালিতে এক প্লাটুন লোক পাঠানো হয়। শত্রুদের সাথে কোন মোকাবিলা হয়নি।

 

০২G-0084 dt 230600

 

২৬/৬/৭১       আমাদের বাহিনী কুসুমপুর বি ও পিতে আক্রমণ করে। ২২ জুন গয়েস্পুরে ৩০ জন স্থানীয় লোকসহ আমদের এক প্লাটুন বাহিনী শত্রুদের আক্রমণ করে। একজন সেনা নিহত হয় শত্রুদের।

 

০৩G-0090 dt 250600

 

২৬/৬/৭১মাধবখালিতে আমাদের বাহিনী শত্রুদের উপর এম্বুশ করে। কিন্তু কোন মোকাবিলা হয়নি। আরেকটি বাহিনী জয় নগরে এম্বুশ করে। সেখানেও কিছু হয়নি।

 

০৪G-0097 dt 270700

 

২৮/৬/৭১২৫০১৩০ টায় উথালি দর্শনা রেলপথে এবং ২৫০১০০ টায় স্রক পথে মাইন পুঁতে রাখা হয়। দউলতগঞ্জ থানার কাছে ধোপাখালি দৌলত গঞ্জে ২২৩০ টায় মাইন পুঁতে রাখে। ধোপাখালি দৌলত গঞ্জে ২৬২৩৪৫ টায় ৩০ ফুট টেলিফোন তার ধ্বংস করে। শত্রুরা তখন থেকে সারা রাত গুলি চালায়। একটি সেকশন কিছু ওয়েব যন্ত্র জব্দ করে। ২৬১৪৩০ টায় নতুনপারায় ২ টি এল এম জি ম্যাগাজিন ৫ ক্লিপ ৩০৩ বল এমও ৮২ টি এবং একটি বেয়নেট উদ্ধার করে।

 

০৫G-0098 dt 280700

 

২৯/০৬/৭১২৭১১৩০ টা থেকে ২৯০৬০০ টায় দৌলতগঞ্জে এক প্লাটুন বাহিনী পাঠানো হয়। আরেকটি প্লাটুন কোট চাঁদ পুরে রেল ও সড়ক পথে মাইন পুঁততে যায় সেখানকার আইন শৃঙ্খলার অবনতি করার জন্য। একটি প্লাটুন দর্শনায় গ্রেনেড নিক্ষেপ করে শত্রুদের পোস্টে ২৮০৩০০ টায়। একজন মুক্তিফৌজ শত্রুদের একজন সেন্ট্রির সাথে হাতাহাতিও করে। শত্রুরা ১০০ গজ দুরে থেকে গুলি চালায়। আমাদের বাহিনী গুলির পরে সেখান থেকে সরে আসে। শত্রুদের হতাহত ৪ জন। আমাদের নাই। ২৭২১০০ টায় একজন বিস্ফোরক ইঞ্জিনিয়ার কুসুমপুর বি ও পিতে পাঠানো হয়। চূড়ান্ত রিপোর্ট এখনো পাওয়া যায়নি।

 

০৬G-00105 dt 300700

 

৩০/০৬/৭১২৭২২০০ টায় আমাদের বাহিনী দৌলথঞ্জে গ্রেনেড নিক্ষেপ করে শত্রুদের উপরে। শত্রুরা এল এম জি ও পিস্তল দিয়ে জবাব দেয়। হতাহত জানা যায়নি। ২৭২৩০০ টায় কোটচাঁদপুর কালীগঞ্জে মাইন সেট করা হয়। ২৮১১০০ টায় সিভিল ট্র্যাকে মাইন সেট করা হয়। ৫ জন আহত হয়। আটগঞ্জ দত্তনগর ফার্মে জি আর ৬৭৪৮৭০ ২৯০৬০০ টায় আক্রমণ করা হয়। ৩০০০৩০ টায় মেদিনীপুর বি ও পি ধ্বংস করা হয়। ৩০০০২৫ টায় জীবন নগর থানায় আক্রমণ করা হয়। হতাহত জানা যায়নি।

 

০৭G-0709 dt020700

 

৩/৭/৭১আমাদের বাহিনী উথালি থেকে জীবন নগর পর্যন্ত মাইন পেতে রাখে ৭০৩৯৬৭ ০১২২০০ টায়। দর্শনা ও চুয়াডাঙ্গায় ০১১৮০০ টায় রেল লাইনে মাইন পুঁতে রাখে। আরেকটি বাহিনী জীবন নগর এলাকায় পাঠানো হয়। অন্য বাহিনী দত্তনগর পোস্ট অফিস ও কুসুমপুর বি ও পিতে ০২০১০০ টায় আক্রমণ করে কায়া গ্রামের নুরুল ইসলামের বাড়ি থেকে ৯ টি সিল ৩০৩ রাইফেল ১ টি নং ৬৮ এল উদ্ধার করে ৩০০২০০ টায়।

 

০৮0-115 dt 050600

 

৫/৭/৭১৯ টি এ/পি মাইন কুসুমপুর বি ও পি থেকে উদ্ধার হয় ০৩১১৩০ টায়। ০৪১০০০ টায় তারা বি ও পি ধ্বংস করে।
০৯        G-0110 dt 030600

 

৫/৭/৭১আমাদের একটি বাহিনী কুলার গাছি উপজেলা অফিস ও পোস্ট অফিসে যায় এবং ০২১৪৩০ টায় বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করে। মুক্তিবাহিনী ঝিনেদাতে হরিনাকুন্ড থানায় ৩০১৪০০ টায় আক্রমণ করে গোলাম মিলিশিয়া ও রাইসুদ্দিনকে হত্যা করে। আরেকটি দল ঘাগাতালছা গ্রামে আবুল হোসেনের বাড়ি আক্রমণ করে। সে সাবেক সার্ভিস ম্যান ছিলেন এবং পাকসেনাদের সহায়তা করতেন। ০২২০৩০ টায় তার ঘরে মাটির নিচ থেকে চাইনিজ স্টেন ১ টি চাইয়ানিজ রাইফেল ১ টি, ভাঙা ১ ব্যাট গ্রুপ, ৩০৩ রাইফেল ১ টি, চাইনিজ 762 এমও ৪৫ ৩০৩ বল এমও ৫৮ টি Nos হ্যান্ড গ্রেনেড এইচ ই-৩৬ উদ্ধার করেন। সব কিছু স্থানীয় ১৪ পাঞ্জাব রেজিমেন্টের কাছে তুলে দেয়া হয়।

 

০১০G-0118 dt 050600

 

8-7-71০৫০০৩০ টায় আমাদের বাহিনী কুসুমপুর বি ও পি ধ্বংস করে। আরেকটি দল ০৫০১৩০ টায় দত্তনগর ফার্ম এস কিউ ৮২৬৬ আক্রমণ করে। ৮ তিকেটি আর ১ টি রাশিয়ান ট্রাক জব্দ হয়-ট্রাক নং-০৮৫৭৬৭/১৯৬৮। আমাদের বাহিনী মেমনগর এস কিউ ৬৩০১ আক্রমণ করে ০৫০৪০০ টায়। শত্রুরা জবাব দেয়। হতাহত জানা যায়নি।

 

১১    G-0122 dt 071800

 

৮-৭-৭১       গালাদারিঘাটে শত্রুদের দল ০৬১৯৩০ টায় সরে গিয়ে কুড়ালগাছি, সারাবারি এস কিউ ৬০০০ ও বুছিতালা এস কিউ ৫৭০০ পৌঁছায়। আমাদের যে দলটি কৃষ্ণপুরে যাবার কথা জি আর ৬৪৩০০৮ তারা সারাবারিতে এম্বুশ করে এস কিউ ৬০০০। ০৭০২৪৫ টায় তারা আমাদের হল্ট করে এবং সেপাই হাফিজুর রহমান বন্দি হন। তারা নায়েক তাবিবুর রহমানের মুখে ঘুসি মারেন। তবে তিনি নিজেকে মুক্ত করতে সমর্থ হন যখন গুলি শুরু হয় তখন। সেপাই হাফিজুর রহমান ও নিজেকে মুক্ত করেন। এবং সকালে দলের সাথে যুক্ত হন। আমাদের একজন পায়ে সামান্য আঘাত পান। শত্রুদের নিহত ৪ আহত ৮ জন। একটি লাশ কুড়ালগাছিতে পাওয়া যায়। নিচের জিনিসগুলো সেখান থেকে জব্দ হয়-১। ওয়েব বেল্ট ২। ব্যারেট ক্যাপ ৩। পানির বোতল ৪। পে বুক ১ টি ৫। পে বুক সার্টিফিকেট ২ টি, ৬। চিঠি-২ টি ৭। এম ও রিসিট ২ টি ৮। 762 এমও ১ টি ৯। 762 খালিকেস ৬ টি (১৮ পাঞ্জাব ও সি বি কয় এম এস হাসান ক্যাপ্টেন)। বুছিতলায় ০৭০৫৩০ টায় মুজাম্মেল নামের একজন মিলিশিয়াকে হত্যা করা হয় এবং তার বাড়ি জ্বালিয়ে দেয়া হয়। করালগাছি থেকে ফেরার পথে শত্রুরা সাধারণ জনগণের উপর গুলি করে ০৭০৫০০ টায়। নুতনপারায় ২ জন নিহত ও ১ জন আহত হয়। গুরধারায় আমাদের বাহিনী এস কিউ ৫৯৭২ ০৭০১০০ টায় ইউনিয়ন কাউন্সিল অফিস ধ্বংস করে। দত্তনগর দৌলতগঞ্জে যে মাইন পোঁতা ছিল সেটা গরুর গাড়ীর সাথে বিস্ফোরিত হয়। একটি ছেলে ও একটি গরু নিহত হয়। গাড়ীটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। চুয়াডাঙ্গা দামুরহুদা রাস্তায় যে মাইন পোতা ছিল সেটা ০৫২০০ টায় শত্রুদের ২ জনের একটি দলের সাথে বিস্ফোরিত হয় যারা চুয়াডাঙ্গা থেকে দামুর হুদায় আসছিল। তাদের সবাই নিহত/আহত হয়। বাংলাদেশের এলাকার ভেতরে তাদের লাশ সমাহিত করা হয়।

 

১২            G-1023 dt 080600

 

৮-৭-৭১কুসুমপুর বি ও পি আমাদের যে দলটি দখল করেছিল তারা এখনো সেখানে আছে। আমাদের বাহিনী ০৭৩০০ টায় দত্তনগর দৌলতগঞ্জে জি আর ৬৯১৮৩৯, ৬৯১৮৪০, ৬৭৪৮৪৪ ও ৬৭৪৮৪৫ এ মাইন পুঁতে রাখে।
১৩G-0125 dt 081500

 

৯-৭-৭১ধপাখালি এলাকায় শত্রুরা ০২৭০০০ টায় এল এম জি ও এইচ এম জি ও ২ রাউন্ড পিস্তলের গুলি দিয়ে আক্রমণ করে। তারা কালা মাঠে ০৮০২০০ থেকে ০৮০২৩০ গুলি করে যেটা গয়েশরপুরের বামে। আমাদের দল করালগাছিতে প্রভাব বজায় রেখেছে। তারা মদনা আর কুসুমপুরেও আধিপত্য রেখেছে। আরেকটি দল শ্যামকুর উপজেলা কমপ্লেক্স ০৮০০৩০ টায় দখল করে। ঢং করে এবং ৪ টি রেজিস্ত্রার জব্দ করে। অন্য দল পোস্ট অফিস আক্রমণ করে ০৮০১০০ টায় এবং ৭ টি স্ট্যাম্প সিল আটক করে। আমাদের বাহিনী ০৮০১৩০ টায় শত্রুদের উপর আক্রমণ করে যারা দত্তনগরে পাহারা দিচ্ছিল জি আর ৬৯০৮৩৫। হতাহত জানা যায়নি।

 

১৪        No Nil dt 100700

 

১৪-৭-৭১       ০৯ জুলাই ১৪১৫ টায় বেনিপুর থানা সম্পুর্ন ধ্বংস হয়। ৭ জুলায় রেলওয়ে ব্রিজ ধ্বংস করা হয় জি আর ৬৮৬১০২।
১৫No Nil dt 120700

 

১৪-৭-৭১উথলি জীবন নগরে জি আর ৭০৩৯৬৭ যে মাইন পুঁতে রাখে সেটা বিস্ফোরিত হয়। ০৭১৬০০ টায় ৭ জন পাকসেনা নিহত হয়। তারা ১২০৮০০ টায় দর্শনা রেল সড়কে বড় কাঠের বাক্স নামাচ্ছিল।

 

১৬G-0143 dt 130900

 

১৪-৭-৭১       ৩০ জুন ০২৩০ টায় আমাদের বাহিনীর আক্রমণে ৪ জন পুলিশ নিহত হয়।গ্রেনেডে স্টেশন মাস্টার নিহত হন আর এস অফিসে। কাশিম্পুর থানা কোটচাঁদপুরের মিলিশিয়া নেতা আবুল কাশিমকে নিহত করা হয়। পাকসেনারা মুক্তি ফৌজদের আক্রমণ করতে গেলে রেজাউল হক ও আলি আকবর কোন মোঃতে পালিয়ে বাঁচেন। কোটচাঁদপুর, বড় বাজার ও যশোর ক্যান্টনমেন্টে রাজাকারদের ট্রেনিং চলছে। প্রতি ক্যাম্পে ৩৫০ জন সিভিলিয়ান আছে। পুলিশ তাদের ডিউটিতে যোগদান করেছে। পাকসেনারা সাধারণ জনগণকে দিয়ে কাজ করিয়ে নিচ্ছে।

 

১৭        G-0134 di 120700

 

১৪-৭-৭১১১ জুলায় ৬ জন চুয়াডাঙ্গা ও ঝিনেদা ব্রিজ ধ্বংস করতে যায়। তারা এখনো ফেরে নাই।
১৮G-0137 dt 130700

 

১৪-৭-৭১১২০০৩০ টায় আমাদের বাহিনী ৩ জন পাকসেনা ২ বিহারিকে জি আর ৭৩৯০৮৪ চিত্রা ব্রিজের পাশে জালসুকে হত্যা করে।
১৯G-0145 dt 141900

 

১৫-৭-৭১দরশনাতে আমাদের বাহিনী ২ জনকে হত্যা করে। শত্রুরা গয়লাপাড়া থেকে গয়েশরপুরে আগাচ্ছে। আমাদের বাহিনী শত্রুদের উপর আক্রমণ করে। ৩ পাকসেনা ও ২ জন সিভিল গাইড নিহত হয়। আমাদের হতাহত নাই।

 

২০G-0450 Dt 161000

 

১৬-৭-৭১১৬০৯০০ টায় রাজাপুরে আমাদের বাহিনী শত্রুদের উপর আক্রমণ করে। তাদের ১ জন আহত হয়। ১৫ জুলাই ১৮০০ টায় ডিমলিশন পার্টি জি ৬৮৫৮৩২ ধ্বংস করে। ১৪ জুলাই ২০০০ টায় গাজিউর রহমান নামে একজন পাকসেনাদের সাহায্যকারী নিহত হয়।
২১G-0455 Dt 170800

 

১৮-৭-৭১ডামূঢ়ূডা থানায় জিলটার পাড়ড়টী পাঠানো হয়। ১৭১৮০০ টায় চুয়াডাঙ্গা রেস্ট হাঊজ, ওয়াপদা রেস্ট হাঊজ ো শী এন্ড ব্যই রেস্ট হাঊজ এবং ডাকবাংলো।

 

২২        G-0454 Dt 170700

 

১৮-৭-৭১১৩ জুলাই ১০০০ টায় ৩ ইঞ্চি মর্টার শেল দিয়ে সিভিল গোডাউনের সামনে ১২ জন পাকসেনাকে নিহত করা হয়। রেলওয়ে স্টেশনের কাছে শেলিং এ একটি ট্রাক্টর ধ্বংস করা হয়।
২৩G-0462 Dt 180700

 

১৮-৭-৭১১৬-৭-৭১ দরশনায় একজন শত্রু নিহত হয়। ১৭-৭-৭১ শত্রুদের সাথে কোন মুখোমুখি হয়নি। শ্যাম্পুর থেকে প্রায় ৩০ গজ বুবি অয়্যার পাওয়া যায়। ১৬-৭-৭১ একটি রেকি প্লাটুন পাঠানো হয় জীবন নগরে। তারা টেলিফোনের সংযোগ ধ্বংস করে এবং প্রায় ৩০০ গজ তার নিয়ে আসে।

 

২৪        G-0465 Dt 190600

 

২০-৭-৭১১৬ জুলাই ১৪০০ টায় আবুল হোসেন নামে গ্রাম কাছাডাঙ্গা থানা মহেশপুর একটি মাইনসহ ভারতীয় বাহিনীর কাছে আত্ম সমর্পন করে। ১৬ জুলাই সে আরও মাইন আনতে তার গ্রামে যায়। সে আরও মাইন নিয়ে ১৮ জুলাই ১০০০ টায় ফিরে আসে। আমাদের বাহিনীর দত্তনগর জীবন নগর রোডে পুঁতে রাখা ৪ টি মাইন পাকসেনারা জব্দ করে।

 

২৫G-0464 Dt 182000

 

২০-৭-৭১৪ জুলাই ৭১ আলমডাঙ্গায় ল্যান্স নায়েক খলিলুর রহমান, গোলাম সরয়ার সিদ্দিক, আব্দুস শুকুর সিদ্দিককে গোপন আস্তানা করতে পাঠানো হয়েছে। গোলাম সরয়ার সিদ্দিক ফিরে আসেন। ল্যান্স নায়েক খলিলুর রহমান ৫০ জন মুজাহিদ ও আনসারদের একটি দল গঠন করেন। তিনি একটি এল এম জি ও ১২ টি রাইফেল ম্যানেজ করেন। খলিলুর রহমান ও তার দল আলমডাঙ্গা থেকে ২ টি ভারতীয় স্টেন গান ৭০ রাউন্ড ৩০৩ বল জব্দ করেন। বেইজের অবস্থান আলমডাঙ্গা রেল স্টেশন থেকে ২ মাইল পুর্বে। রেলপথের যোগাযোগ নষ্ট করার কাজ তাদের দেয়া হয়। Chuadanaga-KST CKG-DSN CDG সাব ডিভিশনের ভিতরে রাস্তা ধ্বংস ও শত্রুদের এম্বুশ করার জন্য দায়িত্ব পায় তারা।

 

২৬G-0466
Dt 190630 hrs

 

২০-৭-৭১পাক আর্মি এজেন্টদের সহায়তায় বানপুরে পাক বাহিনী ২ টি ইন্ডিয়ান মাইন উদ্ধার করে। একটি বিস্ফোরিত হয়। কোন ক্ষয়ক্ষতি হয় নি। অন্যটি ভারতীয় আর্মিরা রিকাভার করে। এই ঘটনার পরে সি ও ১৪ পাঞ্জাব (ইন্ডিয়ান) তাদের সব মাইন ও বিস্ফোরক সরিয়ে ফেলে। তারা মনে করল এগুলো মুক্তিফৌজরা সেট করেছিল। তারা আমাদের মাইন রেজিস্ট্রার খাতা দেখল। আবুল হোসেন ২ টি মাইনসহ আত্ম সমর্পন করে। তাকে ১৪ পাঞ্জাবের সি ও জিজ্ঞাসাবাদ করে। আবুল হোসেন ও রেজাউল হককে এস এইচ কিউ এ এস পিতে পাঠানো হয় কারা আসলে সেগুলো সেট করেছে তা বেড় করার জন্য। ১৪ পাঞ্জাব আপাতত আমাদের যেসব মাইন ও বিস্ফোরক লাগবে তা সরবরাহ করবে।

 

২৭        G0469 dt 190800

 

২০-৭-৭১       আব্দুর রহমান ও আশরাফুল দামুর হুদায় ১৭-৭-৭১ তারিখে যান ও পরের দিন গ্রেনেড নিক্ষেপ করেন। হতাহত জানা যায়নি। যখন তারা ফিরে আসছিল তখন মিলিশিয়ারা তাদের আক্রমণ করে। তবে তারা সফল ভাবে ফিরে আসে। আমাদের বাহিনী গয়েশপুর ডি বি রোডে শত্রুদের অবস্থানে আক্রমণ করে। ১৮-৭-৭১ তারিখে বরবালদিয়াতে পুলিশ স্টেশন ধ্বংস করা ওয়।

 

২৮G-0473

dt 201400

 

২২-৭-৭১১৯ তারিখ ২৩৪৫ টায় ধপাখালিতে আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। শত্রুদের ২ জন আহত হয়। আমাদের কোন হতাহত নাই।
২৯G-0475 dt 201800

 

২২-৭-৭১মিয়া আকবর হোসেন চেয়ারম্যান, এক্স এয়ার ফোর্স টুপিপারা শ্রীপুর মাগুরা জেলা যশোর মাগুরাতে একটি গোপন আস্তানা গড়েন। তিনি ১৭ টি রাইফেল ও ২ টি চাইনিজ 762 রাইফেল জব্দ করেন। তিনি শৈলকুপা ও শ্রীপুরের সকল এন্টি এলিমেন্ট ধ্বংস করেন। তার গ্রুপে ২০ জন আর্মি/ ইপি আর ছিল। এভাবে পুরো এলাকা সে তার দখলে আনেন। ঝিনাইদহ-মাগুরা, মাগুরা-কুমারখালি-ফরিদপুর-এসব রাস্তার যোগাযোগ তিনি ধ্বংস করেন। তাছাড়া নানান এম্বুশ ও শত্রু দমনের কৌশলে তিনি জড়িত ছিলেন।

 

৩০G-0477 dt 210700

 

২২-৭-৭১১৪ জুলাই ১৯০০ টায় আমাদের ফিলার পার্টি আরমান আলিকে হত্যা করে-তার বাড়ি লাকিপুর, থানা হরিনাকুন্ড, যশোর। ছয় ঘরিয়া চুয়াডাঙ্গায় দলিল মণ্ডলের বাড়িতে ১৭ জুলাই ০০৫০ টায় গ্রেনেড নিক্ষেপ করা হয়। ১৯ জুলাই ০১০০ টায় কসাল মণ্ডলের বাড়িতে গ্রেনেড নিক্ষেপ করা হয়। ভেন্দ্রদয়াতে পাকসেনারা যাবার সময় গ্রেনেড আক্রমণে ৫ জন নিহত হয়। ২০ জুলাই আলমডাঙ্গায় একটি রেল লাইন বিচ্যুত করা হয়।

 

৩১117 Betai

dt 220500

 

২২-৭-৭১২১২ টায় আব্দুল জ্বলিল ও আব্দুস সাত্তার নামক দুইজন মুসলিম লীগ সাহায্যকারীকে হত্যা করা হয়।
৩২G-0480 dt 24771

 

২৬-৭-৭১দর্শনা কলেজে ১ কয় সেনার আগমন ঘটে। স্থানীয়দের সাহায্য নিতে শত্রুরা দর্শনা রেল স্টেশনের সামনে শ্যামপুর শ্যাম নগর গ্রামের মাঝে খাল খনন করে। এগুলো ১২ ফুট গভীর ৪০ ফুট চওড়া। আরেকটি বাহিনী মদনা কুড়াল গাছিতে প্রভাব বিস্তার করছিল। তাছাড়া দত্ত নগর, কুসাডাঙ্গা, কুসুমপুর, বেনিপুরে তাদের প্রভাব আছে। ২ টি এন্টি সোশাল এলিমেন্ট ১ টি ৩০৩ রাইফেল ৫ টি গ্রেনেড লিভার ছাড়া, ২৫ রাউন্ড সর্ড ভব নগর এস কিউ ৬৩৮০ থেকে আটক করা হয় ২৩ জুলাই ০৭০০ টায়।

 

৩৩G-0490 dt 26771

 

২৭-৭-৭১কালা গ্রাম থেকে ২৫১১৩০ টায় ৬০ জন শত্রুসেনা গয়েস্পুরে আসে। তাদের মেশিন গান দিয়ে আক্রমণ করা হয়। ১ জন আহত হয়। আমাদেরকেউ আহত হয়নি। আমাদের বাহিনী মদনা, কুড়াল গাছি, দত্ত নগর, গয়েশপুর, রাজাপুরে আধিপত্য বজায় রেখেছে।

 

৩৪G-0492 dt 27771

 

২৮-৭-৭১কাপাসডাঙ্গায় শত্রুদের একটি কয় জড়ো হয়। পাকসেনারা রিপোর্ট করে প্রত্যেকটি ইউনিয়ন কাউন্সিল থেকে ২০ মন চাল জমা দিতে হবে। আমাদের বাহিনী কুড়াল গাছি, মদনা, দত্ত নগর, রজাপুর, গয়েস্পুর এলাকায় আধিপত্য বজায় রেখেছে।

 

৩৫G0506 dt 291100

 

৩০-৭-৭১২৯০৫০০ টায় দরশনায় ক্যাপ্টেন ওহাবের নেতৃত্বে ২ টি দল আক্রমণ করে। হতাহত জানা যায়নি। পাশের সিভিল গোডাউনের কাছে সুগার মিলের কর্মিদের ক্ষতি সাধন করা হয়। হতাহত জানা যায়নি। দরশনার বাজার সুইপার কলোনির সি ইউ সি হাউজের ক্ষতি করা হয়। শত্রুদের ২ টি মেশিনগান, এস এম জি ও ১০ রাউন্ড ব্লেন্ডিসাইড খরচ করা হয়। দর্সনা উথালি রাস্তা ও দুপাতালিয়া গ্রামে ও চুয়াডাঙ্গা রেল পথে মাইন সেট করা হয়।

 

৩৬G-0512 dt300600

 

৩০-৭-৭১২৯১০০০ টায় আনুমানিক ১ প্লাটুন শত্রু সৈন্য দৌলতগঞ্জ থেকে গয়েশপুরে এসে অটো রাইফেল দিয়ে গুলি করতে থাকে। তারা সেখান থেকে ৬ টি গরু নিয়ে যায়। শত্রুদের কাছে ২ টি ৩ ইঞ্চি মর্টার ছিল গয়েশপুর গ্রামে। হতাহত নাই। আমাদের বাহিনী রাজাপুর, কুসুমপুর, বারাসালদিয়া দখলে রেখেছে। ২৫-৭-৭১ তারিখে শাম পুর থেকে শত্রুদের টেলিফোনের কমপক্ষে ৩ গজ বিচ্ছিন্ন করে নিয়ে আসা হয়।

 

৩৬ বিG-0419 dt 02700 hrs

 

3871৩১১কেকেতে শত্রুদের অবস্থান করতে দেখা যায়। দৌলতগঞ্জ দত্তনগর রাস্তার পাশে। শত্রুরা দউলতগঞ্জ হাটে ০১১৬৩০ টায় আসে এবং স্থানীয়দের বলে ৩ থেকে ১৩ আগস্ট পর্যন্ত স্থান ত্যাগ না করতে। আমাদের দল বারবাদিয়া ও কাছুডাঙ্গায় প্রভাব রেখেছে। পাকসেনারা গ্রাম বাসীদের বলে পতাকা সরিয়া দিতে-তা না হলে পুরো গ্রাম জ্বালিয়ে দেয়া হবে। ০২০৬০০ টায় দত্তনগর-দৌলতগঞ্জে ০২০৬০০ টায় মানি সেট করতে যায়।

 

৩৭জি ০৪২৪ তারিখ ০৩০৭০০৩-৮-৭১০২১১৩০ টায় দৌলতগঞ্জ টুঞ্জি পথের ধপাখালি থেকে শত্রু বাহিনী গুলি চালায়। উদ্যেশ্য ছিল ফসলের মৌসুমে গ্রামবাসী যাতে বর্ডার এলাকায় চাষ না করে। বারাবালদিয়াতে। গয়েশপুর ও রাজাপুরে আমাদের বাহিনীর প্রাধান্য আছে। ০৩০৬০০ টায় উঠলি ও আন্সারবারিয়াতে রেলরাস্তা ধ্বংস করা হয়।

 

৩৮জি ০৪২৬

তারিখ ০৪০৭০০

৮-৮-৭১কাছাডাঙ্গা, কুসুমপুর, রাজাপুর আর বারাবালদিয়াতে আমাদের প্রাধান্য আছে। আমাদের বাহিনী উথলি দর্শনা রেলপথের ২ টি স্থানে ধ্বংস সাধন করে ০৪০২০০ টায়। তারা একজন রাজাকারকে হত্যা করে যখন প্রায় ১০ রাজাকার মিলে তাদের আক্রমণ করেছিল। দৌলতপুর দত্ত নগর ফার্মে ২ টি ব্রিজ ধ্বংস করা হয় জি আর ৬৯০৮৩৪ ও জি আর ৬৭০৮৫৪। এটি ছিল কাউতেন নদীর উপর ০৩১৭০০ টা ও ০৩১৭০৫ টায় ১২ বোরের বন্দুকসহ ১ জন ডাকাত আটক হয় ২ আগস্ট। সেটা ১৪ পাঞ্জাব হস্তগত করে।

 

৩৯জি ০৪২৭ ০৪০৭০০৮-৮-৭১চন্দ্রপুর গ্রামে ০১০২৩০ টায় আমাদের বাহিনী ১৫ টি এ পি মাইন পুঁতে। শত্রুদের বাঙ্কারের চারপাশ দিয়ে। ০১০৭০০ টায় বিস্ফোরণ হয় এবং ৪ জন নিহত হয়। আমাদের বাহিনী ০৩১১৩০ টায় দর্শনায় একটি বুবি ট্র্যাপ উঠায়। দর্শনায় আমাদের বাহিনী ০৪১৩৪৫ টায় ২ নং রেল পথ গোমতীতে একজন শত্রুকে হত্যা করে। দর্শনায় আমাদের বাহিনী ০৩১৭৩০ টায় ২০ জন শত্রুকে হত্যা করে। চাঁদপুরে মর্টারসহ স্পেশাল ট্রুপ্স আছে।

 

৪০জি ০৪২৮ ০৫০৭০০৮-৮-৭১আমাদের বাহিনী ঠাকুর পুকুর কাপাস ডাঙ্গায় ০৪০৭০০ থেকে ১৭০০ টা পর্যন্ত অ্যামবুশ করে। রাস্তার পাশে কোন শত্রুদের চলাচল দেখা যায়নি। আরেকটি বাহিনী করাল গাছি কাপাস ডাঙ্গায় ০৪০৭০০ থেকে ১৭০০ পর্যন্ত অবস্থান নেয়। আমাদের বাহিনী এখনো বারাবালদিয়া, কুড়াল গাছি, রাজাপুর ও কাছাডাঙ্গায় প্রভাব বজায় রেখেছে।

 

৪১জি ০৪৩০ ০৬০০৮-৮-৭১দৌলত গঞ্জ বাজারের কাছে কোট চাঁদ পুর টুঙ্গি রাস্তায় শত্রুদের বাঙ্কার বানাতে দেখা যায়। তারা রোড ব্লক বানাচ্ছিল। স্থানীয়দের খাঁটিয়ে নেয় তারা। শত্রুরা দর্শনা হল্ট স্টেশন ও চাঁদ পুর গ্রামের দুই পাশের রেলপথে বাঙ্কার স্থাপন করে। আমাদের বাহিনী ০৫১২৩০ টায় বাঙ্কার বানানোর জায়গায় গুলি করে। তারা ছড়িয়ে যায়। আমাদের বাহিনী এখনো বারাবালদিয়া, রাজাপুর ও কাছাডাঙ্গায় প্রভাব বজায় রেখেছে। রাজাকার নুরুল ইসলাম আটক হয়। তাকে কাপাস ডাঙ্গা থেকে আটক করা হয়-তখন সে শোবাল্পুর ঘাঁট ০৬০০৩০ টায় পএর হয়ে চেয়েছিল। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

 

৪২জি ০৪৩৭ ০৭০৮০০৮-৮-৭১০৭০০৩০ টায় আমাদের বাহিনী ধোপাখালি বি ও পি দখল করে। তাদের আর্টিলারিসহ কিছু অস্ত্র ছিল। আমাদের বাহিনী শত্রুদের ভারী গুলিবর্শনে ৫ জন নিহত ও ৪ জন আহত হয়। ১ জন নিখোঁজ আছে। ৪ টি লাশ উদ্ধার হয় ও বাংলাদেশের ভিতরে সমাহিত করা হয়। ২ টি এমকে ৪ রাইফেল, একটি স্পেয়ার ব্যারেল এল এম জি, একটি ভারতীয় স্টেন ম্যাগাজিন, ৯ টি এল এম জি ম্যাগাজিন ও একটি রাইফেল নষ্ট হয়।

শত্রুদের হতাহত জানা যায়নি।

 

মৃত-

১। ২৫৩৯ হাবিলদার আব্দুর গফুর

২। ১০৫০ নায়েক রসিদ আলি

৩। ১৭৮৮১ সেপাই মোহাম্মাদ সিদ্দিক

৪। আনসার সেপাহি আব্দুল আজিজ

৫। আনসার সেপাই আবু বাঁকার

 

আহত

১। ১৪৫৮৪ সেপাই শফিকুল ইসলাম

২। সেপাই নুরুল ইসলাম

৩। সায়েদ আহমেদ

৪। গেরিলা-সেপাই মোঃ সাইফুল্লাহ

 

৪৩জি ০৪৪০ ০৮০৬০০৮-৮-৭১০৭১৭০০ টায় যশোর থেকে ট্রেনে প্রায় ৬০০ সেনা দর্শনা এসে আধা ঘণ্টা অবস্থান নেয়। দরশনা হল্ট স্টেশনে তারা আধা ঘণ্টা অবস্থান করেন। চুডাঙ্গায় যাবার চিন্তা করে। শত্রুরা দৌলতগঞ্জ টুঙ্গার রাস্তায় রোড ব্লক দিচ্ছিল। তারা গাছকেটে এই কাজ করছিল। ট্যাঙ্ক দিয়েও তারা ব্লক করছিল এস কিউ ৬৪৮৮। কুসুমপুর, বারাবালদিয়া আমাদের দখলে। স্থানীয়দের রিপোর্টে জানা যায় ১৫ জন নিহত হয়েছে। আমাদের বাহিনী দউলতগঞ্জ ধোপাখালি রাস্তায় মাইন স্থাপন করে ০৬২৮০০ টায়। ২ টি এ টিকে মাইন ও ১০ টি এ পি মাইন মনোহরপুর ধপাখালিতে ০৬২৩৩০ টায় স্থাপন করা হয়। গেরিলা আবুল কাসেম যে ধপাখালিতে হারিয়ে গেছিল সে রাইফেল নিয়ে ০৭১৮০০ টায় ফিরে আসে।

 

৪৪জি ০৪৪৪ ১০০৭০০১১-৮-৭১প্রায় ৩০০ রাজাকার ও সৈন্য নিয়ে শত্রুরা দর্শনা থেকে উথালি হয়ে দঊলতগঞ্জে যাচ্ছিল। তারা উথালি বাজারে এসে কলাকেনে ০৯১৬০০ টায়। ০৯১১৩০ টায় তাদের উথেলি থেকে চাঁদ পুর পর্যন্ত বাঙ্কার করতে দেখা যায়। খালিশপুরের নিকট বৈদ্যনাথপুরেও তারা বাঙ্কার বানায়। গয়েশপুর, দউলতগঞ্জ টুঙ্গি এলাকায় ০৯১০৩০ টায় একটি গরুড় গাড়ী এ টিকে মাইনে আক্রান্ত হয়। দাঙ্গাপারায় ০৯১০৩০ টায় ধপাখালির দিকে যাবার সময় আমাদের বাহিনীর উপর আক্রমণ করে।

 

৪৫জি ০৪৫৪ ১১০৬০০১৩-৮-৭১দউলতগঞ্জে শত্রুরা জনসাধারণের বাড়িতে থাকার সিদ্ধান্ত নেয় রাতে। সময় ১০২১০০ টা। তারা ধপাখালিতে ১ রাউন্ড ব্লেন্ডিসাইড ব্যাবহার করে। সন্তোষপুর ধপখালি রাস্তায় ১০১০০০ টায় একজন এলাকাবাসী নিহত হয় বি ও পির কাছে যাবার জন্য। ১০১১৩০ টায় একজন জনগণ এ পি মাইনে নিহত হয়। আমাদের বাহিনী সন্তোষপুর ধপখালিতে মাইন সেট করে।

 

৪৬G-0456 dt 120700

 

13-8-71শত্রুরা দস্তা গ্রামে অবস্থান নিয়েছে। আমাদের বাহিনী কুসুমপুর, দত্তনগর, কাছাডাঙ্গাতে অবস্থান নিয়েছে। খাগড়াছড়ি-মাদনা এলাকায় বারাবালদিয়াতে আমাদের বাহিনীর প্রাধান্য আছে। আমাদের বাহিনী ১১১৯০০ টায় উথালি স্টেশনে পাঠানোহয়।

 

৪৭G-0466 dt 130600

 

১৩-৮-৭১১১ আগস্ট শত্রুরা উথালি হাই স্কুল দখল করে। ধপাখালিতে আমাদের বাহিনী এল এম জি দিয়ে আক্রমণ করে। শত্রুরা এস এল জি ও ২ ইঞ্চি মর্টার দিয়ে আমাদের উপর আক্রমণ করে। হতাহত জানা যায়নি। যেসব শত্রুরা করালগাছি ও সাদারবারিতে ফসল কাটতে কৃষকদের বাঁধা দিচ্ছিল তাদেরকে আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। শত্রুরা পিছু হটে। আমাদের বাহিনী ১২১০০০ টায় তাদের আক্রমণ করে। ১১১৪০০ টায় একটি প্লাটুন ধপাখালি যায়-তারা ১২১৬ টায় ফিরে আসে। বি ও পির চারপাশে ১৮ টি বাঙ্কার আছে জানা যায়। সেগুলো মাইন ও নানা রকম বাঁধা দিয়ে ঘিরে রাখা।

 

৪৮G-0473 dt 140930

 

১৫-৮-৭১১০০ জনের মত শত্রুবাহিনীর সদস্য টিটুলিয়া এস কিউ ৬৮৮৬ এম / এস ৭৯ এ/১৫তে অবস্থান নেয়। আমাদের বাহিনী দত্ত নগর দৌলত গঞ্জে ১২১২৩০ টায় এম্বুশ করে। গঙ্গাদাস্পুরে এস কিউ ৬৭৮৫ এম/এস ৭৯এ/১৫ অ্যামবুশ করে। তাদের ১৫ জন হতাহত। ধপাখালিতে ১৩১০৩০ টায় আমাদের বাহিনী শত্রুদের ৩০ জনকে অ্যামবুশ করে। তারা কৃষকদের ফসল কাটকে বাঁধা দিচ্ছিল বর্ডার এলাকায়। উভয় বাহিনীর কাছে ২ ইঞ্চি মর্টার ছিল। হেভি মেশিন গান দিয়ে আক্রমণ করায় তারা পালিয়ে যায়। হতাহত নাই। শত্রুদের ৭ জন নিহত ৫ জন আহত। বারাবালদিয়া, দত্ত নগর, কুসুমপুর আর দত্ত নগরে আমাদের বাহিনী প্রভাব বিস্তার করে রেখেছে।

 

৪৮ ইG-3476 dt 151030

 

১৬-৮-৭১১২/১৩ তারিখ রাতে শত্রুদের একটি বাহিনী এসে অবস্থান নেয়। ১৫১৬০০ টায় তারা কুশাডাঙ্গা ফার্ম খালি করে দিতে বলে। শত্রুরা কুশডাঙ্গা আর গোকুল ডাঙ্গা ফার্মে আসে। তারা ১৩১২০০ টায় আরেকটি দলের সাথে মিলিত হয় যারা যাদবপুর ফার্ম থেকে আসে। দুই দল কুশা ডাঙ্গা আসতে থাকলে আমাদের বাহিনী ১৩১২৩০ টায় তাদের আক্রমণ করে। আমাদের বাহিনী ২ টি এল এম জি রাইফেল, ৬ রাউন্ড ২ ইঞ্চি মর্টার ইউজ করে। শত্রুরা ৪ রাউন্ড ৩ ইঞ্চি মর্টারের গুলি, এল এম জি ও ২ ইঞ্চি মর্টার ইউজ করে। শত্রুদের ১৭ জন নিহত ও ২ জন আহত হয়। তারা দউলতগঞ্জ, হাসাডাঙ্গার মাইনে হতাহত হয় জি আর ৭১৩৮৭৭ ১৩০১০০ টায়। ১৪০৮০০ টায় মাইন বিস্ফোরিত হয়। ৬ জনের একটি ট্রাক ধ্বংস হয়। শত্রুদের ৪ জন নিহত ও ২ জন আহত। ড্রাইভার নিহত হয়। ৫ জনের গেরিলা দল রাজাপুর, মাধবখালি, মেদিনীপুর, হরিহরনগর ১৪১৮০০ টা থেকে ১৫০০৭০০ তার মধ্যে।

 

৪৯জি ০৪৮৪ ১৭০৮৩০১৭-৮-৭১কাসাডাঙ্গা, দত্তনগর ফার্মে আমাদের বাহিনী প্রভাব বিস্তার করে। বারাবালদিয়া, খাগড়াছড়ি, মাদনায় আমাদের প্রভাব আছে। আমাদের বাহিনী ১৬০১৩০ থেকে ১৬১৬ টার সময় সামান্তা ধোপাখালি যায়।

 

৫০G-0480 dt 160800

 

১৭-৮-৭১১৫১১৩০ টায় ধপাখালিতে শত্রুদের দুইটি বাহিনী আসে। তারা ২ ইঞ্চি মর্তারের ৪ রাউন্ড গুলি বিনিময় করে। সেখানে ১৩১০৩০ টায় মুক্তিবাহিনী তাদের অবস্থান নিয়েছিল আগে। শত্রুদের ২ জন নিহত ও ৫ জন আহত হয়। ধপাখালি গ্রাম থেকে শত্রুদের ১০ রাউন্ড গুলি ফোটানোর শব্দ পাওয়া যায় ১৫২২১০০ টায়। বারাবালদিয়া ও কুসুমপুরে আমাদের বাহিনী প্রবাভ বিস্তার করে। ৫ জনের দল রাজাপুর, মাধবখালি, মেদিনীপুর, হারিহারপুর ও টুঙ্গি-জীবননগর রাস্তায় ১৫১৭০০ থেকে ১৬০৭৭০ টার সময়।

 

৫১G-0490 dt 181030

 

১৮-৮-৭১১৮০২৪০ টায় কুসুমপুর দত্ত নগর ফার্মে আমাদের একটি সেকশন এম্বুশ করে ৭ রাউন্ড গুলি করে। শত্রুরা প্যারা বোমা ও এল এম জির ৫ রাউন্ড গুলি খরচ করে। শত্রুদের হতাহত জানা যায়নি। ১৭০৮০০ টায় শত্রুরা পেট্রল পার্টিতে গুলি করে। আমাদের বাহিনী ১৭১৪৪৫ টায় জবাব দেয়। আমাদের বাহিনী বারাবালদিয়া, কুড়ালগাছি ও মাদনায় প্রভাব বিস্তার করে।

 

৫২G-0494 dt 19100

 

১৯-৮-৭১কুসুমপুর দত্তনগর ফার্মে ১৮২১০০ টা থেকে ১৯০৪০০ টায় আমাদের একটি সেকশন এম্বুশ করে। ১৯০১৩০ টায় দত্ত নগরে শত্রুদের চলাচল দেখা যায়। আমাদের বাহিনী এল এম জি দিয়ে গুলি করে। হতাহত জানা যায়নি। ১৮০৮০০ টায় ধপাখালিতে আমাদের ফাইটিং প্লাটুন পাঠানো হয়। তারা ১৮১৪০০ টায় ফিরে আসে। আমাদের বাহিনী বারাবালদিয়া, কুড়ালগাছি ও মাদনায় প্রভাব বিস্তার করে।

 

৫৩G-0505 dt 210700

 

২১-৮-৭১দউলতগঞ্জ দত্ত নগরের মাঝের ব্রিজ ধ্বংস করা হয় জি আর ৬৯০৮৩৪। তাল গাছ ও কিছু কাঠ দিয়ে মেরামতের চেষ্টা করা হয়। বারাবালদিয়া ও থাকুরপুকুর বি ও পি ১৮০৭০০ থেকে ৪৮১৯০০ টায় ধ্বংস করা হয়। প্রায় ৯০ জনের দুইটি শত্রু দল বি ও পির দিকে আসছিল বইলে জানা যায়। তাদের সাথে কোন সংযোগ হয়নি। ১৯৩৭০০ টায় আমাদের একটি বাহিন অ্যামবুশ করে।

 

৫৪G-0513 dt 210933

 

২১-৮-৭১শত্রুরা দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে আক্রমণ করে। তারা ১৯০১০০ টায় কাপাসডাঙ্গা থেকে ঠাকুর পুকুরে আসছিল। শত্রুদের কাছে ৫ তি ওয়ারেলেস সেট ছিল। কাপাসডাঙ্গা থাকুরপুকুর রোডে একটি গ্রুপকে আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে ১৯০৯০০ টায়। হতাহত ৭ জন তাদের। আমাদেরকেউ আহত হয় নাই। শত্রুরা কাপাসডাঙ্গা থেকে গুলি চালিয়ে যাচ্ছিল। রাজাপুর থেকে আমাদের বাহিনী বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করে রেখেছিল। বারাবালদিয়া ও মাদনায় আমাদের প্রভাব রয়েছে।

 

৫৫G-0520 dt 220800

 

২৪-৮-৭১২১২৩০০ টায় শত্রুরা ধপাখালিতে আক্রমণ করে। তারা দত্ত নগর থেকে কুসাডাঙ্গা ফার্মে আসতে চায়। ২০১৪৩০ টায় তাদের দুই দলকে আমাদের বাহিনী কুসাডাঙ্গায় আটকে দেয়। আমাদের বাহিনী ২ তি এল এম জি ও ৩ ইঞ্চি ২ ইঞ্চি মর্টার ইউজ করে। শত্রুরা দত্ত নগর ফার্ম থেকে হেভি মেশিন গান দিয়ে জবাব দেয়। তাদের ৩ জন নিহত ও ৪ জন আহত হয়। আমাদের হতাহত নাই। মাধবখালি, রাজাপুর ও মানিকপুরে আমাদের বাহিনী পাঠানো হয়।

 

৫৬জি ৩৫২৪২৩০৮০০২১১২৩০ টায় পাকসেনারা আমাদের দুইটি বাহিনীর উপর আক্রমণ করে। তারা কুসাদাঙ্গা দত্ত নগর ফার্ম ব্লক করে রেখেছিল। আক্রমণ হয় কুসুমপুরে। ২ প্লাটুন আসে দত্ত নগর থেকে আর বাকি ২ প্লাটুন আসে কুসুমপুরের দিক থেকে। আমাদের বাহিনী ৪ রাউন্ড ২ ইঞ্চি মর্টার আর ২ রাউন্ড এল এম জির গুলি ইউজ করে। শত্রুরা ২ ইঞ্চি মর্টার ও এল এম জি দিয়ে জবাব দেয়। আমাদের হতাহত নাই। তাদের ১০ জন নিহত ও ১৮ জন আহত। জানায় স্থানীয়রা। ২২০৮০০ তায়া আমাদের বাহিনী ক্রিশাতপুর ঘাটে যায়-স্থানীয়দের কাছে থেকে জানা যায় যে মাদনা ও কুসাডাঙ্গায় শত্রুরা আসছে। আমাদের বাহিনী এম্বুশ করে ১৩ জন শত্রুকে হত্যা করে। তারা ক্রিশাতপুর ঘাট থেকে এল এম জি দিয়ে আক্রমণ করে। দর্শনা থেকে স্পিড বোটে আসা বাহিনী গুলি করে তাদের ব্যাস্ত রাখে। তারা মাদনার দিকে যাচ্ছিল। আমাদের বারাবালদিয়ার বাহিনী মাদনায় আসে এবং ২ ইঞ্চি মর্টার থেকে ৪ রাউন্ড গুলি করে এবং এল এম জি ইউজ করে। স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায় শত্রুদের ১৫ জন হতাহত হয়েছে। বারস্ট হবার কারণে একটি এস এল আর অব্যাবহারযোগ্য হয়েছে।

 

57জি ০৫২৮ ২৪০৮৩০২৫-৮-৭১জীবন নগর থেকে হাসাদাহ যাবার সময় ২১০৮৩০ টায় আমাদের একটি এক টন বাহন মাইনে বিধ্বস্ত হয়। জানের ১৫ জন হতাহত হয়। ধপাখালিতে ২২০৫৩০ টায় শেলিং করা হয়। মনোহরপুর ও জীবন নগর থেকে আসা ৩ টনের গাড়ি আর একটি এম্বুলেন্স এসে লাশগুলো নিয়ে যায় বলে স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়। ২৩১৭ টায় একটি রেকি পার্টি ধপাখালির দিকে যায়। আমাদের বাহিনী কুসুমপুর আর বারাবালদিয়াতে প্রভাব বিস্তার করে রেখেছে।

 

৫৮G-0542 dt 260800

 

২৬-৮-৭১২৫১৭৩০ টায় দত্ত নগর জিবন্ডাঙ্গায় মাইন সেট করে। ২৫১৮০০ টায় কোটচাঁদপুর দৌলতগঞ্জ রোডেও মাইন সেট করে। তারা কুসাডাঙ্গা শত্রুদের আক্রমণ করে যারা ৩০০ লোকাল নিয়ে সেখানে আর দত্ত নগরের ফার্মের ধান নিয়ে যেতে চেয়েছিল। সময় ছিল ২৪১৩৩০ টায়। শত্রুরা পরে দত্ত নগর ফার্মে ফেরত আসে পরাস্ত হয়ে। বারাবালদিয়া ও মাদনায় আমাদের প্রভাব রয়েছে।

 

৫৯G-0532 dt 250800

 

২৬-৮-৭১২২ আগস্ট দত্তনগরে শত্রুদের একটি বাহিনীকে আমাদের বাহিনী তাড়িয়ে দেয়। ২৪১১০০ টায় গয়েশপুর জীবন নগর টুঙ্গিতে আমাদের বাহিনী ৮ টা এ পি মাইন সেট করে। ২৪১৪০০ টায় শত্রুরা পরাজিত হয়ে ফিরে যায়। তারা হেভি মেশিন গান ইউজ করে। হতাহত জানা যায়নি কারো। ধপাখালির সামনে রাজাপুরে ২৪১২৩০ রতায় আমাদের বাহিনী এম্বুশ করে। শত্রুদের ২ জন নিহত হয়। কুসুমপুর বারাবালদিয়াতে আমাদের বাহিনী প্রভাব রেখেছে।

 

৬০G-0552 dt 280700

 

২৯-৮-৭১২৭ আগস্ট প্রায় ৫০/৬০ জন শত্রুবাহিনীর লোক উথালি হাই স্কুল দখলে রেখেছে। নিম্নোক্ত অফিসার রা দায়িত্বে আছেন –

 

দর্শনা – মেজর আজম মালিক খান

ক্যাপ্টেন মোঃ জাফর খান

ক্যাপ্টেন হেদায়েত উল্লাহ

ক্যাপ্টেন ফিরোজ খান এবং

ক্যাপ্টেন জুলফিকার আলি

 

ধোপাখালি – ক্যাপ্টেন মুতালিব খান

দত্তনগর – ক্যাপ্টেন মনজুর

 

২৬ আগস্ট সন্ধ্যায় দত্ত নগর ফার্মে লোক পাঠানো শত্রু অবস্থান জানার জন্য। ২৭০৮ টায় ধোপাখালিতে ফাইটিং পেট্রল পাঠানো হয় এক সেকশন। তারা এখনো শত্রুর মুখোমুখি হয়নি।

 

৬১জি ০৫৫৫ ২৯০৮০০৩০-০৮-৭১কুসুমপুরে থেকে দুই সেকশন কুসাডাঙ্গায় পাঠানো হয় ২৮০৬০০ টায়। ২৮১৩০০ টায় শত্রুরা এদিকে আসতে থাকে দত্ত নগর থেকে। আমাদের বাহিনী এল এম জি দিয়ে শুরু করে। হতাহত জানা যায়নি। একটি সেকশন ধপাখালিতে পাঠানো হয়। তারা কারো মুখোমুখি হয় নাই।
৬২জি ০৫৫৮ ৩০০৮০০৩১-৮-৭১২৯০১৩০ টায় ধপাখালিতে একটি সেকশন পাঠানো হয়। তারা ২৯১৪০০ টায় ফিরে আসে।

 

৬৩জি ০৫৬২ ০১০৭০০১-৯-৭১ধপাখালি এস কিউ ৬৭৯১ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ও মাধব খালিতে এক সেকশন পাঠানো হয় ৩১০৬৩০ টায়। তারা কারো মুখোমুখি হয় নাই।

 

৬৪জি ০৫৭৮ ০৬০৮০০৭-৯-৭১০৪১১৩০ টায় আমাদের বাহিনী ধপাখালিতে আক্রমণ করে। তারা জবাব দেয়। হতাহত নাই আমাদের। তাদের ৩ জন হতাহত।

 

৬৫জি ০৫৮৭ ০৯০৮০০৯-৯-৭১আলফাপুর গ্রাম শইলকুপা থানায় ৪০ জনের গণবাহিনী ও স্থানীয় মিলে পাকসেনাদের সাথে যুদ্ধ করে ০৩৪০০ সেপ্টেম্বর। গন বাহিনী অস্ত্র আর ৩৪ তা লাশ নিয়ে যায়। পাকসেনাদের ১৯ টি লাশ ও ২০ টি রাজাকারের লাশ রেখে যায়। আমাদের ১ জন আহত। ৩০৩ রাইফেল ১৬ টি চাইনিজ এমও ৭ বক্স, একটি ওভাল ইডেনটিটি ডাইস ১৩৪১৪৬০ মোহাম্মদ ইউনুস আটক করে। ০৮১৪০০ সেপ্টেম্বর গয়েশপুর জীবন নগরে আমাদের বাহিনী একটি মাইন উদ্ধার করে।

 

৬৬০৫৯৪ ১১০৭০০১২-৯-৭১০৮ সেপ্টেম্বর ৭১ গণবাহিনী রাজাকার পোস্ট দামিলেহাট আক্রমণ করে একটিরাইফেল ৫৩ এমও আটক করে। সেগুলো বাংলাদেশের ভেতরে রাখা হয়।

 

৬৭জি ০৬০৩ ১৩০৭০০১৪-৯-৭১উল্বারিয়া পুলিশ আউট পোস্টে ০২২৩৩০ সেপ্টেম্বর গন বাহিনী আক্রমণ করে। ৭ জন পুলিশ নিহত হয়। আমাদের হতাহত নাই। ৬ টি রাইফেল আটক। তাঁর মধ্যে ৫ টি নিয়ে আসা হয় আরেকটা বেইজে রাখা হয়।

 

৬৮জি ০৬০৬ ১৪০৭০০ জি ০৬১৩ ১৫০৭০০১৫-৯-৭১আমাদের বাহিনী ধপাখালিতে ১৩১০০০ সেপ্টেম্বর শত্রুদের আক্রমণ করে। তারাও জবাব দেয়। ০৯২২০০ টায় গণবাহিনী নীল মানিগঞ্জ মুন্সিগঞ্জ এ আক্রমণ চালায়। হতাহয় জানা যায়নি। একজন জনসাধারণ নিহত ও ১ জন আহত হয় ১৩০১৩০ টায়। মুক্তি ও গন বাহিনী কুড়ালগাছি উপজেলা কমপ্লেক্স আক্রমণ করে। ৬ রাজাকার নিহত ও ২ জন আহত হয়। ১৪০২৩০ সেপ্টেম্বর গণবাহিনী দত্ত নগর আক্রমণ করে। ১৩১৮ তাই ১৭ সেপ্টেম্বর বানপুর রেলওয়ে স্টেশনের কাছে এক রাজাকার আটক হয়।

 

৬৮ বিজি ০৬২০ ১৬১২৩০১৭-৯-৭১নিয়মিত বাহিনী রাজাপুর বি ও পি জি আর ৬৫৭৯৪৫ পুড়িয়ে দেয় ১৬০৫০০ টায়। নিয়মিত বাহিনী গঙ্গাদেশপুর জি আর ৬৭২৮৫৪ আক্রমন করে। ২ জন নিহত ও ৩ জন আহত হয় শত্রুদের। রাজাকারদের কাছ থেকে গনও বাহিনী ২ টি রাইফেল উদ্ধার করেয়ে ০৪০১০০ টায়। এটা ছিল ডাঙ্কি বেলগাছি-আলমডাঙ্গা থানায়। অস্ত্র বাংলাদেশের ভিতরে রাখা হয়।

 

৬৯জি ০৬২৭ ১৮১৪০০১৯-৯-৭১ধপাখালিতে ৬৭৩৯২৫ এম এস ৭৯এ / ১৫ ১৮০৯০০ সেপ্টেম্বর নিয়মিত ও গন বাহিনীআক্রমণ করে। হতাহত জানা যায়নি।

 

৭০জি ০৬৩৭ ২০০৮০০২০-৯-৭১নিয়মিত বাহিনী দত্ত নগর শত্রু অবস্থানে জি আর ৬৯০৮৫৫ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ১৯২০৩০ সেপ্টেম্বর আক্রমণ করে। শত্রুদের ১ জন নিহত ও ৩ জন আহত হয়। আমাদের হিতাহত নাই। ধপাখালি ৬৭৩৯২৫ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ১৮০৮০০ টায় শত্রু অবস্থানে নিয়মিত বাহিনী আক্রমণ করে। ১২ জন আহত হয় তাদের। 

 

৭১জি ০৬৪১ ২১০৮০০২৪-৯-৭১২০০৮৩০ সেপ্টেম্বর সারাবারিয়া জি আর ৬০০০০৫ এম/এস ৭৯ এ/১০ অ্যামবুশ করে নিয়মিত বাহিনীর দুইটি দল। ৪ জন নিহত হয় শত্রুদের। আমাদের হতাহত নাই। একটি এল এম জি ম্যাগাজিন, বেয়োনেট ও স্ক্যাবার্ড হারানো যায়। ২০০৯৩০ টায় গনও বাহিনী মাদনায় জি আর ৬১৮০০৫ এম/এস ৭৯ এ/১৪তে আক্রমণ করে ৮ জন পাকসেনা নিহত ও ১ জন আহত হয়। ১ জন সাধারণ জনগণ নিহত ও ২ জন আহত হয়। শত্রুরা ধুপ্তালিয়া ৬৭ এক্স ৪০ এম/’এস ৭৯ এ/১৪ থেকে খালিশপুর জি আর ৮২৫৮৪৫ এম/এস ৭৯ এ /১৫ তে ফিরে যায়।

 

৭২জি ০৬৪৪ ২২০৮০০২৪-৯-৭১নিয়মিত বাহিনী ২১২২০০ টায় ধপাখালি ৬৭৩৯২৮ এম/এস ৭৯ এ/১৫ আক্রমণ করে। হতাহত জানা যায়নি। দত্ত নগর বাজারে গ্রেনেড নিক্ষেপ করা হয় ৬৯২৮২৮ এম/এস ৭৯ এ/১৫ তারিখ ২০১৮৩০। শত্রুদের ১ জন নিহত ২ রাজাকার আহত। গণবাহিনী ১৩ সেপ্টেম্বর মধুপুর ঝিনেদা উপজেলা অফিস পুড়িয়ে দেয়

 

৭৩জি ০৬৬২ ২৫০৭০০২৬-৯-৭১নিয়মিত বাহিনী ২৩০২১৫ টায় দত্তনগর ফার্মে জি আর ৬৯০৮৫৫ এম/এস ৭৯ এ/১৫ আক্রমণ করে। কুতুবপুর এস কিউ ৫ এক্স ৮ এম/এস ৭৯ এ/১০ আক্রমণ করে। গণবাহিনী ২৪০৮৩০ টায় আক্রমণ করে। হতাহত জানা যায়নি

 

৭৪জি ০৬৬৮ ২৭০৭০০২৭-৯-৭১নিয়মিত বাহিনী জি আর ৬৮৮৯২০ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ২৪০৩০০ সেপ্টেম্বর ৪ টি মাইন পুতে। ২৪০৮০০ সেপ্টেম্বর মাইন বিস্ফোরণে একজন সাধারণ জনতা নিহত হয়। ২৫০৯০০ সেপ্টেম্বর ১ জন পাকসেনা নিহত হয়।

 

৭৫জি ০৬৭৪ ২৮০৭০০৩০-৯-৭৮কুতুবপুরে এস কিউ ৫০০৮ এম/এস ৭৯ এ/১০ ২৪১২০০ সেপ্টেম্বর গনও বাহিনী অ্যামবুশ করে। শত্রুদের ২ জন আহত। আমাদের নাই।

 

৭৬জি ০৬৭৯ ২৯০৭০০৩০-৯-৭৮২৮১৭০০ সেপ্টেম্বর নিয়মিত বাহিনী শ্যাম্পুরে ৬৫৪০০৪ এম/এস ৭৯ এ/১৪ আক্রমণ করে-হতাহত জানা যায়নি। এস কিউ ৬৭৮২ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ২৭০৫০০ টায় আক্রমণ করে। শত্রুদের ১ জন আহত হয়। আমাদের নাই।

 

৭৭জি ০৬৮২ ৩০০৭০০১-১০-৭১মাদনায় এস কিউ ৬৪৯৫ এম/এস ৭৯ এ/১০ শত্রুরা গুলি করে ২ জন রিফুজিকে হত্যা করে ২৯১২৩৫ টায়

 

৭৮জি ০৬৯০ ০২০৭০০৩-১০-৭১যাদবপুরে জি আর ৬৬৭৮৪৯ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ০২০৩০০ অক্টোবর আক্রমণ করে আমাদের বাহিনী শত্রুদের ৩ জন আহত হয়। আমাদের হতাহত নাই

 

৭৯জি ০৬৯৫ ০৩০৭০০৪-১০-৭১২ অক্টোবর দামুর হুদায় নিতমিত বাহিনী ১১ টি রাইফেল উদ্ধার করে রাজাকারদের কাছ থেকে। গণবাহিনী মাদনায় জি আর ৬১৮০০৫ এম/এস ৭৯ এ/১৪ ০২১২৩০ টায় আক্রমণ করে। হতাহত জানা যায়নি। হাস্নাদহ এস কিউ ৭৩৮৬ এম/এস ৭৯ এ/১৫, ধপাখালি ও জীবন নগরে প্রায় ৭০০ পাকসেনা জড় হয়েছে বলে যানা যায়।

 

৮০জি ০৬৯৭ ০৪০৮০০৫-১০-৭১০৩১২৩০ অক্টোবর গয়েশপুর এস কিউ ৬৪৯০ এম/এস ৭৯ এ/১৫ আমাদের বাহিনী এম্বুশ করে। শত্রুদের ৫ জন নিহত ও ৪ জন আহত হয়। আমাদের হতাহত নাই। শত্রুদের অ্যামবুশ থেকে ধানক্ষেতের ভেতর দিয়ে শরীর টেনে নিয়ে যাবার দাগ, মরফিয়া এম্পুল, ডেসিং সামগ্রী পাওয়া যায়। আমাদের বাহিনী মেদিনীপুর এস কিউ ৬২৮১ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ০৩১২৪৫ টায় অক্টোবর আক্রমণ করে ৩ জন পাকসেনা হত্যা করে। আমাদেরকেউ আহত হয়নি। ছান্দিপুরে এস কিউ ৫৯০৩ এম/এস ৭৯ এ/১০ ০৩ অক্টোবর রাইফেলসহ ৭ রাজাকার আত্ম সমর্পন করে। মতামায়াতে গণবাহিনী এস কিউ ০৩৯৯ এম/এস ৭৯ ই/২ ৬ রাজাকার হত্যা করে, ৭ টি রাইফেল আটক করে শৈলকূপা যাবার পথে। তারিখ ২১ সেপ্টেম্বর। রাইফেল বাংলাদেশের ভেতরে রাখা হয়।

 

৮১জি ০৭১৬ ০৭০৭০০৮-১০-৭১গণবাহিনী কুড়ালগাছি এস কিউ ৫৮০৪ এম/এস ৭৯ এ/১০ ০৫২৩০০ অক্টোবর রাজাকারদের অবস্থানে আক্রমণ করে। হতাহিত জানা যায়নি। পাকসেনারা জলসুকে এস কিউ ৭৪০৮ এম/এস ৭৯ এ/১৪ ও ফুলহারিতে এস কিউ ৭৬০৬ এম/এস ৭৯ এ/১৪ অবস্থান নিয়েছে।

 

৮২জি ০৭০৮ ০৬০৭০০৯-১০-৭১রাজাকাররা তারানগর লুট করার সময় এস কিউ ৪৭১৩ এম/এস ৭৯ এ/১০ ০৩১২৩০ সেপ্টেম্বর আমাদের বাহিনী তাদের আক্রমণ করে ৩ রাজাকার হত্যা করে। আমাদের হতাহত নাই। ২ অক্টোবর কানাইডাঙ্গায় এস কিউ ৫১১১ এম/এস ৭৯ এ/১০ শান্তি কমিটির মেম্বারএর বাড়ি আক্রমণ করা হয়। একটি ডি বি বি এল গান আটক করে। এটা কয় কএদ কোয়ার্তারে জমা দেয়া হয়।

 

৮৩জি ০৭২৬ ১১-১০-৭১১২-১০-৭১কাপাসদাঙ্গায় এস কিউ ৫৬০৬ এম/এস ৭৯ এ/১০ ০৮০৯৩০ টায় আক্রমণ করে আমাদের বাহিনী ১২ জন হত্যা করে। আমাদের ১ জন নিহত হয়। আমরা ৩০৩ রাইফেল একটি, এস এল আর ম্যাগাজিন ৫ টি নষ্ট করি।কেশবপুড় ফার্মে এস কিউ ৬৮৮২ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ০৮১৩০০ অক্টোবর আমাদের বাহিনী এম্বুশ করে শত্রুদের ৫ জন নিহপ্ত করে। আমাদের হতাহত নাই। কুশাদাঙ্গা ফার্মে এস কিউ ৬৮৮২ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ০৯০৮০০ অক্টোবর আমাদের বাহিনী আক্রমন করে ১১ জন শত্রু হত্যা করে। আমাদের ১ জন আহত হয়। ০৯২০০০ অক্টোবর ২ টি এস বি বি এল গানসহ ২ রাজাকার বারিপুরে এস কিউ ৬২৮৪ এম/এস ৭৯ এ/১৫ আত্ম সমর্পন করে।

 

৮৪জি আর ০৭৬০ ১৪-১০-৭১        ১৬-১০-৭১মাদনায় এস কিউ ৬১০০ এম/এস ৭৯ এ/১৪ ১৩ অক্টোবর শত্রুরা আমাদের বাহিনীকে আক্রমণ করে। হতাহত নাই। তাড়া ১২ টি ঘর জ্বালিয়ে দেয়। একটি বেয়নেট উদ্ধার হয়।

 

৮৫জি ০৩৫৯ ১৫-১০-৭১১৬-১০-৭১গণবাহিনী মাসান্দাহে এস কিউ ৭৫৮৬ এম/এস ৭৯ এ/১৪ জীবন নগরে এস কিউ ৬৯৮৮ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ১৪২৩৩০ অক্টোবর টেলিফোনের তাঁর নষ্ট করে। তাড়া ৩০০ গজ তাঁর নিয়ে আসে।

 

৮৬জি ০৭৫০ ১৬-১০-৭১১৭-১০-৭১গয়েস্পুরে এস কিউ ৬৪৮৭ এম/এস ৭৯ এ/১৫ ১৫০৬০০ অক্টোবর ৫ টি পাকিসেনাদের মাইন উদ্ধার করে আমাদের বাহিনী। তাড়া এ টি মাইন দিয়ে উথালি আন্সারবারিয়া জি আর ৭৩২৯৬৮ এম/এস ৭৯ এ/১৫ রেলপথে পাকসেনাদের রেলগাড়ি ধ্বংস করে। তারিখ ১৫১৯১৫ অক্টোবর। হতাহত জানা যায়নি।

 

৮৭জি ০৭৫০ ১৭-১০-৭১১৮-১০-৭১বি কয় হেড কোয়ার্টার বানপুরে একটি রাইফেলসহ একজন রাজাকার আত্ম সমর্পন করে।

 

৮৮জি ০৭৫৯ ২৩-১০-৭১২৪-১০-৭১নিয়মিত বাহিনী দর্শনায় এস কিউ ৬৫৯৯ এম/এস ৭৯ এ/১৪ ২২০৯০০ অক্টোবর আক্রমণ করে। শত্রুরা আমদের ঘিরে ফেলার চেষ্টা করে। গুলি বিনিময়ের পরে তাড়া পালিয়ে যায়। হতাহত জানা যায়নি। গনও বাহিনী বিনদপুর এস কিউ ৪৪৯০ এম/এস ৭৯ ই/১০ শত্রুদের অবস্থানে আক্রমণ করে ১০০৫০০ অক্টোবর। শত্রুরা আহত হয়। আমাদের একজন সাধারণ জনতার পক্ষ থেকে আসা সাহায্যকারী নিহত হয়।আত্মকৃত ৪ টি রাইফেল ও ৪৫০ এমও বাংলাদেশের ভেতরে রাখা হয়। শত্রুদের ২ টি কয় ও রাজাকার শ্রীপুরে এস কিউ ৩২০৮ এম এস ৭৯ ই/৬ ১৫০৫০০ অক্টোবর আক্রমণ করে। ২ ঘণ্টা গুলি বিনিময় চলে। শত্রুদের নিহত ১৪ জন। আমাদের নাই। একটি দুরবিন আটক হয়। সেটি বাংলাদেশের ভেতরে রেখে দেয়া হয়। শত্রুদের একটি জান ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাড়া সেটি নিয়ে যায়। শত্রুদের ২ টি কয় অভয়পুরে এমদের অবস্থানে এস কিউ ২৫১০ এম/এস ৭৯ ই/৬ ১৩০৪০০ অক্টোবর আক্রমণ করে। শত্রুদের হতাহত জানা যায়নি। আমাদের ২ জন নিহত। আরও ২ টি কয় জুন্ধাতে আমাদের অবস্থানে এস কিউ ৯২২৮ এম/এস ৭৯ ই/২ আক্রমণ করে ০৮০৮০০ অক্টোবর। শত্রুদের হিতাহত জানা যায়নি। আমাদের ২ জন আহত হয়ে ধরা পরে।

 

৮৯জি ০৭৪৪ ২৫-১০-৭১২৬-১০-৭১গণবাহিনী রামনগরে এস কিউ ৪৫১৮ এম/এস ৭৯ এ/১১ স্থানীয় এন্টি সোশ্যাল বাহিনীর সাথে যুদ্ধে ৩০৩ রাইফেল ৩ টি ও ২ টি স্টেনগান আটক করে। সেগুলো বাংলাদেশের ভেতরে রাখা হয়।

 

৯০জি ০৭০১ ২৬-১০-৭১২৬-১০-৭১রামনগরে এস কিউ ৬৪০১ এম/এস ৭৯ এ/১৪ ২৫১১৩০ অক্টোবর আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। শত্রুদের ৩ জন নিহত হয়। আমাদের হতাহত নাই। গনও বাহিনী ২৫০৬৪৫ ট্রেন জেতা শত্রুদের বহন করে নিয়ে যাচ্ছিল সেটাতে আক্রমণ করে। মাইন সেট করা ছিল এস কিউ ৮১৯৪ এম/এস ৭৯ এ/১৫ সাফদারপুর ও আনন্দবারি রেলওয়ে স্টেশনের মাঝে। মাইন বিস্ফোরণের পরে শত্রুরা গুলি চালায়। ৩ টি বগি নষ্ট হয়। শত্রুদের হতাহত ৫০ জন। আমাদের নাই।

 

৯১জি ০৭০৬ ২৮-১০-৭১২৯-১০-৭১টিতুধা এস কিউ ৭৮০২ এম/এস ৭৯ এ/১৪ এলাকায় আমাদের অবস্থানে শত্রুরা আক্রমণ করে ২৪১১০০ অক্টোবর। শত্রুদের ১ জন পাকসেনা নিহত ও ৪ রাজাকার নিহত হয়। আমাদের হতাহত নাই।