যুদ্ধ পরিস্থিতি রিপোর্টঃ বয়রা সাব সেক্টর

Posted on Posted in 11

শিরনাম
উৎসতারিখ
১৯। যুদ্ধ পরিস্থিতি রিপোর্ট বয়রা সাব সেক্টর৮ নং সেক্টরের দলিলপত্র১৯৭১

 

 

ট্রান্সলেটেড বাইঃ Razibul Bari Palash

<১১, ১৯, ৩৬৩-৩৬৬>

 

 

ক্রমিক নং

 

সূত্র নম্বর ও তারিখ

 

তথ্য অন্তর্ভুক্তির তারিখঘটনা
১      ডি/০১৬/জি

১১-৫-৭১

১২-৫-৭১১। নড়াইলে সব সময় শত্রুরা থাকেনা। দিনের বেলায় মাঝে মাঝে তারা আসে। বেশীর ভাগ সময় তারা ১৫/২০ টা বাহন একসাথে নিয়ে আসে। একটি গানবোট আনে যার নম্বর পি/১৪০। অবস্থানের সময় তারা শহরের সব গুলো অবস্থান ঘুরে দেখে।

২। নড়াইলে সিভিল প্রশাসন নেই। মাত্র একজন ও সি আর ২ জন অফিসার আছে যারা নড়াইল থানায় জয়েন করেছেন। তারা জামাতের লোক।

৩। নিম্নের গুরুত্তপূর্ন ব্রিজ গুলোর পাহারা নেই। ক-নীলগঞ্জ খ-তুলারাম্পুর গ-দাইতলা ঘ-সিতারাম্পুর

৪। স্থানীয় জনগণ শত্রুদের সাথেসহযোগিতা করেনা। তাদের মনোবল অনেক শক্ত।

৫। পাকসেনাদের সাপোর্ট করে এমন কিছু সঙ্ঘ আর লোকের তালিকা শান্তি বাহিনী রেজিস্টার পৃষ্ঠা ৩ এ আছে।

 

২     জি ০০৩০

২৫ মে

২৫-৫-৭১কাবেল্পুরে এস কিউ ৮৭৬২ ৭৯ এ/১৬ ২ টি ফাইটিং পেট্রোল আসে। সময় ২৫০৮৩০। সাথে কিছু সিভিল পোশাকের লোক। আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। ইউনিফর্মের ৮ জন আর সিভিল ড্রেসের ৪ জন নিহত হয়। ৩ জন আহত হয়। একটি শত্রু জিপ নম্বর এম ৩৮ এ আই ধ্বংস করা হয়। প্রাকৃতিক বাঁধার জন্য একটি জিপ মারাত্মক ভাবে ধ্বংস হয়। এগুলো মেরামতের অযোগ্য। ২ টি রাইফেল ১ বক্স এমও ও ১ টি ম্যাপ জব্দ করা হয় গ্রেডিং এ-১ খোজার সময়। আরও ২ টি বাহিনী চৌগাছা থেকে আসছে। গ্রেডিং-বি-৩

 

সাইট্রেপ ২

২৪-৫-৭১

 

২৯-৭-৭১ইন্টারনাল লগ দেখুন। লেটেস্ট ভেরিফায়েড রিপোর্ট নিম্নে দেয়া হল।
 

ডি-০৩

২৭-৫-৭১

২৮-৫-৭১১। একজন জে সি ওসহ ৫ জন আহত, ৭ জন নিহত।

২। একটি জিপ পার্টলি ক্ষতিগ্রস্ত, আরেকটি শত্রুরা পরিত্যাক্ত করেছে। কিন্তু দ্রুত অনেক ফোর্স আসল। তারা প্রচুর গুলির আড়ালে যান দুটি নিয়ে যায়।

জব্দ করা জিনিসের তালিকা-

১। ম্যাপসহ একটি ম্যাপকেস

২। চায়না এল এম জি ম্যাগাজিন। ২ টি এমও ও পাউচ

৩। এম টি টুল বক্স

সাধারণ জনগণ ভয়ে চাইনিজ রাইফেল পানিতে ফেলে দেয়। শত্রুরা গুলির আওয়াজ দিয়ে লাশ গুলো নিতে আসে।

সিট ন ৩

২৭-৫-৭১

২৯-৫-৭১১। ২ জিপে ১ক্তি ছোট প্লাটুন আসে। ঝিকরগাছা থেকে দুলানিঘাটে আসে। এস কিউ ৯১৬২ ৭৯ ই/৪।

২। রিপোর্ট আসে যে ৪ জন পাকসেনা গতকাল মাসিলায় সাপের কামড়ে মারা গেছে। গত সন্ধ্যায় তাদের মিলাদ মাহফিল ও নামাজে জানাজা হয়েছিল মাসিলায়।

 

এন নিল

৩-৫-৭১

২-৬-৭১১২/১৪ টি শত্রুদের মালবাহী ট্রাক মাসলিয়া এস কিউ ৮৫৬৬ ৭৯ এ/১৬, পুরাপারা এস কিউ ৮১৭০ এম/এস ৭৯ এ/১৫ চৌগাছা এস কিউ ৯০৬৯ এম /এস ৭৯ ই/৩ থিক ছেড়ে যায়। এগুলো যশোরের দিকে যাচ্ছিল। এই মুহুর্তে ডিফেন্স কম আছে শত্রুদের। ইনফো গ্রেড-সি-৪। ৩০ মে ১৩০০ টার দিকে খবর আসে যে ছুটিপুরঘাট এস কিউ ৯২৫৮ এম/এস ৭৯ ই/৪ এবং আতলিয়া এস কিউ ৯১৬০ এম/এস ৭৯ ই/৪ এ ঝিকরগাছা থানার একজন এস আই সাথে আরও কিছু এজেন্ট নিয়ে ঝিকরগাছার আঞ্জুমানে মোহাজেরিনে লুট ও দখল করতে গেছে। আতলিয়াতে একটি স্বল্প ভিজিটে যেখানে এস আই আছে তার ও পরিবারের তথ্য নেয়া হয়। তারপর তাকে ধরতে দ্রুত যাওয়া হয়। ল্যান্স নায়েক আরব আলিকে হাতে নাতে ধরে আত্ম সমর্পন করানো হয়। সনাউ আত্ম অমর্পন করেছে কিন্তু একজন এজেন্ট তাকে খুন করতে চাইল। তবে আরম আলি ৩ জনকেসহ আরও ২ জনকে হত্যা করল। আমাদের বাহিনী তাদের ২ জনকে হত্যা করে। একজন শত্রুসেনা পালাবার চেষ্টা করে। কিন্তু গ্রামবাসী তাকে ধরে ফেলে ও প্রশ্ন করে। জিপের ড্রাইভারকে ধরা হয়েছে। জিপের নম্বরকে-৩৯১ উইলিস। ১ টি ৩০৩ রাইফেল, এমকে আই নম্বর ৪ তিনটি এস বি বি এল ১২ বোর গান যাদের ১টা স্থানীয় বি এস এফ ইন্সপেক্টর নিয়ে গেছে।

 

৭     নিল

২-৬-৭১

২-৬-৭১

০৮৩০ টা

২ জুন ৭১ ০৬৩০ টায় পাক আর্মি হেভি মর্টার দিয়ে ছুটিপুর ঘাঁটে এস কিউ ৯০৬২ এম/এস ৭৯ ই/৪ শেলিং করে।

 

৮     জি ০০৩৮

১৪০৯৪৫

১৫-৬-৭১       ধেংকিপোঁতা এস কিউ ৮৭৬৪ এম/এস ৭৯ এ/১৬ শত্রু ডিফেন্স বন্ধ ঘোষণা করা হয়। মাস্লিয়া ও হিজুলি বি ও পি ১৩১৭০০ টায় দখল করা হয়।

 

জি ০০৪০

১৪২২৩০

১৫-৬-৭১পাক রেঞ্জারসহ ৬০ জন শস্ত্র শান্তি বাহিনীর লোকেরা পুখিয়াতে আক্রমণের চেষ্টা করছিল। এস কিউ ৮৪৫৭ এম/এস ৭৯ এ/১৬। কিন্তু একজন সিপাহি তাতে বাঁধা দেয়। ৪ জন আহত হয়। ৫০/৬০ জনের একটি শত্রুর দল গয়রা গ্রামে আসে। এস কিউ ৮৪৬৪ এম/এস ৭৯ এ/১৬। ৮ জন চিভিলিয়াঙ্কে বন্দি করে ও গরু ধরে নিয়ে যায়। আমাদের বাহিনী তাদের বাঁধা দিয়ে কাজুলির দিকে নিয়ে যায়। শত্রুদের হতাহত এখনো জানা যায়নি। ভারতীয় আর্মিদের সহায়তায় সেইসব সিভিলিয়ান ও আত্মকৃত গরু মুক্ত করা হয়।

 

১০জি ০০৪২

১৬০৮১৫

১৬-৬-৭১বর্নিতে পাকসেনাদের ডিফেন্সে ভারী শেল আক্রমণ হয়। ক্ষয়ক্ষতি জানা যায়নি। চৌগাছায় টেলিলিঙ্ক ধ্বংস। আন্দুলিয়া বি ও পি পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয় ১৬০৩৫০ টায়।

 

১১    জি ০০৪৩

১৬১৯৩০

১৭-৬-৭১শারশা থানার নাভারনে ১ প্লাটুন মুক্তি ফৌজ পাঠানো হয়। তারা হ্যান্ড গ্রেনেড দিয়ে ৪ জন পাকসেনা হত্যা করে। সাথে ১ টি জিপ ধ্বংস করে। ১৭৩০ থেকে ১৮৩০ পর্যন্ত প্রচর শেল নিক্ষেপ হয়।

 

১২জি ০০৪৬

১৮-০৮-১৫   

১৮-০৬-৭১       ১৭/১৮ জুন রাতে মাস্লিয়া ও হিজুলি বি ও পি ধ্বংস করা হয়।
১৩    জি ০০৫০

১৮১৯০০

১৯-৬-৭১পাকসেনারা ঝিকরগাছা চৌগাছা রাস্তা থেকে ৮ মাইল ভিতরে সকল জনগণকে সরে যেতে বলে। রবিবারের মধ্যে তাদের সরে যাবার নির্দেশ দেয়। সিভিলিয়ানদের কাছ থেকে রেডিও ছিনিয়ে নেয়।

 

১৪জি ০০৫২১৯২১০০       ২০-৬-৭১পাকসেনারা বর্নিয়া বি ও পি এলাকায় পাঁচ পিরতলায় জয়বাংলা পতাকা নামিয়ে ফেলার চেষ্টা করে। এস কিউ ৭৭৬৬ এম/এস ৭৯ এ/১৬। আমাদের বাহিনীর সাথে গুলি বিনিময় হয় ১৪২৫ থেকে ১৫৩০ পর্যন্ত। ৩ ইঞ্চি মর্টার ব্যাবহার হয়। হতাহতের হিসাব এখনো জানা যায়নি। যশোর ও মাসিলার এজ কিউ ৮৬৬৬ অন্যন্য জায়গা থেকে যানা যায় যে পাকসেনারা প্রচুর পরিণামে কৃষকদের ব্যাবহৃত মাথাল নামক জিনিসটা কিনছে। এর নিশ্চয়ই কোন উদ্যেশ্য আছে। বর্নিয়া ডিফেন্সের ক্যাপ্টেনের নাম আব্বাস।

 

১৫জি ০০৫৪

২০৭৩০

২০-৬-৭১খালিসায় এস কিউ ৯৪৫৯ এম/এস ৭৯ ই/৪ ৪০ ফুট ব্রিজ ০২০০ টায় উড়িয়ে দেয়া হয়। মাইনিং চলছে। শত্রুরা যশোরে রাজাকার বাহিনী তৈরি করছে। জানা যায় শত্রুদের লাশ ভর্তি কিছু ট্রাক বেনাপোল থেকে যশোরের দিকে নেয়া হচ্ছে।