রাজশাহীতে দস্যুবাহিনীর বর্বরতার প্রাথমিক জরীপ

Posted on Posted in 8

৭১। রাজশাহীতে দস্যুবাহিনীর বর্বরতার প্রাথমিক জরীপ (৪৭৪)

রাজশাহীতে দস্যুবাহিনীর বর্বরতার প্রাথমিক জরীপ

সুত্র -দৈনিক পূর্বদেশ, ২২ মে, ১৯৭২।

রাজশাহী, ২১শে মে (এনা)।– ইয়াহিয়ার হানাদার দস্যুবাহিনী রাজশাহীতে যে গণহত্যা, নির্যাতন, ধর্ষণ, ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়ে গেছে তার একটি প্রাথমিক জরীপ রিপোর্ট বের হয়েছে।

সম্প্রতি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়য়ের সমাজকল্যাণ বিভাগের ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকগণ সপ্তাহব্যাপী এক জরীপের মাধ্যমে বহু ঘটনা উদ্ঘাটন করেছেন।

তারা পঁচিশটি গ্রাম থেকে এ ব্যাপারে বহু তথ্য সংগ্রহ করেছেন। গণবাড়ীয়ার জনৈক জেলে প্রত্যক্ষদর্শীর বিবরণে জানান, পবিত্র রমজান মাসের এক কালো রাতে হানাদার বাহিনী গ্রামে ঢুকে মেশিনগানের সাহায্যে পঁচিশ জনকে গুলি করে হত্যা করে। জেলেটি গুলিবিদ্ধ হওয়া স্বত্ত্বেও অলৌকিকভাবে বেঁচে যায়।

১৯৭১ সালের মে মাসে জুগিসশো গ্রামে হানাদার বাহিনী শান্তি কমিটি গঠনের নামে ১৭ জন গ্রামবাসীকে একত্রীত করে সারিবদ্ধভাবে দাঁড় করায়। তারপর পেছন থেকে মেশিনগানের গুলিতে সকলকে হত্যা করা হয়। এখানে ইয়াহিয়ার বর্বর সৈন্যরা ২১৪ জনের উপর নির্যাতন চালায়। এর মধ্যে ১৪৫ জনকে মারধর করা হয় এবং অবশিষ্টদের গ্রেফতার, ধর্ষণ ও নানাভাবে নির্যাতন চালানো হয়। অত্যাচারিতদের মধ্যে ১৫৯ জন পুরুষ ও ৫৫ জন মহিলা ছিলেন।

এছাড়া হানাদার বাহিনীর দালালদের হাতে ৫০ জন নির্যাতিত হয়েছেন। এসব গ্রামের ৩০৯টি ঘর আংশিকভাবে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে এবং মোট ৭০৭টি বাড়ী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। পাক বাহিনী যেসব ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে তাতে ৫ লক্ষ ৬৯ হাজার ২০০ টাকার মতো সম্পতি নষ্ট হয়েছে।