সাক্ষাৎকারঃ মেজর অলি আহমদ

Posted on Posted in 10
শিরোনামসূত্রতারিখ
২১। ‘জেড’ফোর্স গঠন ও তার যুদ্ধ তৎপরতাবাংলা একাডেমীর দলিলপত্র১৯৭১…

<১০, ২১.১, ৪৭৬-৪৭৭>

সাক্ষাৎকারঃ মেজর অলি আহমদ

মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের প্রথম ব্রিগেড ‘জেড’ফোর্স গঠিত হয় ৭ জুলাই। মেজর জিয়াউর রহমানের নামানুসারে এই ব্রিগেডের নামকরণ করা হয় ‘জেড’ফোর্স  (জিয়া ফোর্স)। বাংলার স্বাধীনতা যুদ্ধে ‘জেড’ফোর্স  এক বিশেষ অবদান রেখেছে। এই ফোর্সে তিনটি নিয়মিত পদাতিক বাহিনী ছিলো – যথাক্রমে ১ম ইষ্ট বেঙ্গল, ৩য় ইষ্ট বেঙ্গল এবং ৮ম ইষ্ট বেঙ্গল ব্যাটালিয়ান। ব্রিগেড কমান্ড করেন তৎকালীন মেজর জিয়াউর রহমান (বর্তমান মেজর জেনারেল)। আমি নিজে ব্রিগেডের ব্রিগেড মেজরের দায়িত্ব পালন করি।

১ম ইষ্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টে যেসব অফিসার কর্তব্য পালন করেছিলেন, তারা হলেনঃ

কমান্ডিং অফিসারঃ মেজর মঈনুল হোসেন চৌধুরী। আগষ্ট মাস থেকে মেজর জিয়াউদ্দিন এই ব্যাটালিয়নের দায়িত্ব নেন। মেজর জিয়াউদ্দিন পাকিস্তান থেকে পালিয়ে এসে বাংলার মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন।

সেকেন্ড ইন কমান্ডঃ ক্যাপ্টেন বজলুল গণি পাটোয়ারী এ্যাডজুট্যান্ট এবং কোয়ার্টার মাস্টারের দায়িত্ব পালন করেন ফ্লাইট লেফট্যান্যান্ট লিয়াকত আলী খান।

ব্যাটালিয়নে ৪ টি কম্পানী যারা কমান্ড করেছেন তারা হলেনঃ

‘এ’কোম্পানী কমান্ডারঃ ক্যাপ্টেন মাহবুব।

‘বি’কোম্পানী কমান্ডারঃ ক্যাপ্টেন হাফিজুদ্দীন।

‘সি’কোম্পানী কমান্ডারঃ ক্যাপ্টেন আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী।

‘ডি’কোম্পানী কমান্ডারঃ ক্যাপ্টেন বজলুল গণি পাটোয়ারী।

৩য় বেঙ্গল ব্যাটালিয়নে যারা দায়িত্ব পালন করেছেন তারা হলেনঃ

কমান্ডিং অফিসারঃ মেজর শাফায়েত জামিল।

সেকেন্ড-ইন কমান্ডঃ ক্যাপ্টেন মহসীন।

‘এ’কোম্পানী কমান্ডারঃ ক্যাপ্টেন আনোয়ার হোসেন।

‘বি’কোম্পানী কমান্ডারঃ ক্যাপ্টেন আকবর হোসেন।

‘সি’কোম্পানী কমান্ডারঃ ক্যাপ্টেন মহসীন।

‘ডি’কোম্পানী কমান্ডারঃ লেঃ নুরুন্নবী চৌধুরী।

এছাড়া লোঃ মঞ্জুর, লেঃ ফজলে হোসেন, ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট আশরাফুল আলম প্রমুখ অফিসার এই ব্যাটালিয়নের বিশেষ ভূমিকা পালন করেন। এই ব্যাটিলিয়নে নায়েক সুবেদার আজিজের নেতৃত্বে একটি আপোর্ট প্লাটুনও ছিল।

৮ম বঙ্গলে যেসব অফিসার কমান্ড করেছেন তারা হলেনঃ

কমান্ডিং অফিসারঃ মেজর এ, টি, এম আমিনুল হক।

সেকেন্ড-ইন কমান্ডঃ ক্যাপ্টেন খালেকুজ্জামান চৌধুরী।

‘এ’কোম্পানী কমান্ডারঃ ক্যাপ্টেন খালেকুজ্জামান চৌধুরী।

‘বি’কোম্পানী কমান্ডারঃ ক্যাপ্টেন সাদেক হোসেন।

‘সি’কোম্পানী কমান্ডারঃ ক্যাপ্টেন মোদাসসের হোসেন।

‘ডি’কোম্পানী কমান্ডারঃ লেঃ মাহবুবুর রহমান।

এছাড়া লেঃ এমদাদুল হক, লেঃ কাজী মনিবুর রহমান, লেঃ ওয়ালি-উল-ইসলাম, লেঃ বাকের প্রমুখ তরুন অফিসাররা এই ব্যাটিলিয়নে কাজ করেন।

‘জেড’ফোর্স কামালপুর, বাহদুরপুর ঘাট, দেওয়ানগঞ্জ থানা, চিলমারী, হাজীপাড়া, ছোটখাল, গোয়াইনঘাট, টেংরাটোলা, গোবিন্দগঞ্জ, সালুটিকর বিমানবন্দর, ধলাই চা-বাগান, ধামাই চা-বাগান, জাকিগঞ্জ, আলি ময়দান, এম সি কলেজ, ভানুগাছা, কানাইয়ের ঘাট, বয়মপুর, ফুলতলা চা-বাগান, বড়লেখা, লাতু, সাগরনাল চা-বাগান ইত্যাদি স্থানে পাকসেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে নজিরহীন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন।

*১৯৭১ সালে ক্যাপ্টেন হিসাবে ৮ম বেঙ্গলে কর্ম্রত ছিলেন।