১৩৭. ১৩ সেপ্টেম্বর সম্পাদকীয়ঃ (১) দুর্ভিক্ষ ও ত্রাণ সংস্থা (২) একটি শুভ পদক্ষেপ

Posted on Posted in 6

জেসিকা গুলশান তোড়া

<৬,১৩৭,২২৫>

শিরোনামঃ সম্পাদকীয় ১| দূর্ভিক্ষ ও ত্রাণ সংস্থা ২| একটি শুভ পদক্ষেপ

সংবাদপত্রঃ জন্মভূমি ১ম বর্ষঃ ৮ম সংখ্যা

তারিখঃ ১৩ সেপ্টেম্বর, ১৯৭১

সম্পাদকীয়

.

(১) দূর্ভিক্ষ ও ত্রাণ সংস্থা

অন্নপূর্ণার সোনার বাংলা আজ অন্নরিক্তা। সেখানকার মানুষ আজ একমুঠো অন্নের অভাবে ধুঁকে ধুঁকে মরছে। অথচ কোন দেশ বা কোন আন্তর্জাতিক ত্রাণ সংস্থা পর্যন্ত এগিয়ে আসছে না বাংলাদেশের দূর্ভিক্ষগ্রস্থ মানুষের সাহায্যের জন্য। কিন্তু কেন? পৃথিবীর অভিধান থেকে কি তবে সেবা, সহানুভূতি, মানবিকতা প্রভৃতি শব্দ নির্বাসিত হয়েছে? অন্ততঃ বাংলাদেশের ব্যাপারে যেন তাই।

.

কিন্তু কেন? তাহলে, বাংলাদেশের অপরাধ সে গণতন্ত্র দাবী করেছে, শোষণের অবসান চেয়েছে, হানাদারদের প্রতিহত করেছে, ন্যায়ের সংগ্রামে, স্বাধীনতা সংগ্রামে লিপ্ত হয়েছে।

.

এই অপরাধে বাঙ্গালী আর তাদের বাংলাদেশ যদি আজ বিশ্বের নিকট থেকে কোনরুপ সাহায্য পাওয়ার অযোগ্য হয়ে দূর্ভিক্ষ আর মহামারীতে প্রাণ হারায় তাহলে ভবিষ্যতে যুগ যুগ ধরে বর্তমান বিশ্ববাসীকে অপরাধীর কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে প্রায়শ্চিত্ত করতে হবে।

.

(২) একটি শুভ পদক্ষেপ

বাংলার ভাগ্যাকাশে নতুন আলোর রেখা দেখা দিয়েছে। বাংলার মুক্তিকামী মানুষেরা আবার একত্র হয়েছে। সাড়ে সাত কোটি মানুষের পূণ্যভূমি আজকে আবার নব শয্যায় সজ্জিত। পঞ্চদল বিশিষ্ট উপদেষ্টা কমিটি গঠনের ফলেই বাংলার মানুষের মনে আনন্দ জেগেছে। উপদেষ্টা কমিটি প্রথমেই বাংলাদেশ সরকারকে বাংলাদেশের জনগণের সরকার বলে স্বীকৃতি দিয়েছে এবং শেখ মুজিবের বিনা বিচারে মুক্তি দাবি করেছে। আমরা উপদেষ্টা দলটিকে জানাই আমাদের আন্তরিক অভিনন্দন। আমরা মনে করি বাংলার স্বাধীনতাপ্রিয় মানুষের সব রকম অসুবিধা এই কমিটি দূর করতে পারবে। যুদ্ধরত বাঙ্গালীদের ঠিক পথে চালিয়ে নিয়ে যাবে। এই আশাই আমরা করি।