৭৩। ১৫ নভেম্বর বাঙ্গালী রাজাকাররা সাবধান

Posted on Posted in 6

পার্থ সুমিত ভট্টাচার্য্য

<৬,৭৩,১২২>

শিরোনামঃ বাঙালী রাজাকররা সাবধান।

সংবাদপত্রঃ বাংলাদেশ ১ম বর্ষঃ ২১শ সংখ্যা।

তারিখঃ ১৫ নভেম্বর, ১৯৭১।

.

বাঙালী রাজাকাররা সাবধান।

নরপিশাচ ইয়াহিয়া খান তাঁর বর্বর সামরিক বাহিনীকে সাহায্য করার জন্য বাঙালী যুবকদের জোর করিয়া রাজাকার বাহিনীতে যোগদান করিতে বাধ্য করিয়াছেন। সমাজবিরোধী এক শ্রেণীর গুন্ডা বদমায়েশ লম্পটরাও এই সুযোগে রাজাকার বাহিনীতে ঢুকিয়া পড়িয়াছিল। ইহারা জনসাধারণের জান মালের যথেষ্ট ক্ষতিসাধন ও ধনসম্পত্তি লুন্ঠন করিয়া অরাজকতা সৃষ্টি করিয়াছিল। কিন্ত ইদানিং মুক্তিফৌজের ক্রমাগত সাফল্যের ফলে এক শ্রেণীর রাজাকার যারা নিজের ইচ্ছার বিরুদ্ধে রাজাকার বাহিনীতে যোগদান করিতে বাধ্য হইয়াছিল তাহারা মুক্তিফৌজের গেরিলাদের হাতে প্রত্যহ আত্মসমর্পন করিয়া চলিয়াছে। রাজাকারদের মনে আরও ভীতির সঞ্চার করিয়াছে যখন তাহারা দেখিতে পায় পাঞ্জাবী হানাদার বাহিনী মুক্তিফৌজের ভয়ে তাহাদিগকেই প্রথমে সম্মুখে ঠেলিয়া দেয়। রাজাকাররা ইদানিং তাদের ভবিষ্যত সম্বন্ধে অত্যন্ত চিন্তিত হইয়া পড়িতেছে। তাদের মানসিক অবস্থার দিকে লক্ষ্য রাখিয়া এই কথাই বলিব অবিলম্বে যেন তারা তাদের অস্ত্র শস্ত্রসহ মুক্তিফৌজের হাতে আত্মসমর্পন করেন। তাদের অপকীর্তি দেশ দ্রোহিতার শামিল এবং দেশদ্রোহিতার একমাত্র শাস্তি মৃত্যুদন্ড। এই মৃত্যুদন্ড এড়াইবার পথ হইল নিকটস্থ মুক্তিফৌজ শিবিরে অবিলম্বে আত্মসমর্পন।