১ অক্টোবর ইয়াহিয়ার গোপনীয়তার অন্তরালে

Posted on Posted in 6

অনুবাদঃ নিয়াজ মেহেদী

<৬, ৮৩, ৭২৮-৭২৯>

শিরোনামঃ ইয়াহিয়ার গোপনীয়তার অন্তরালে

সংবাদপত্রঃ বাংলাদেশ ভলিউম ১ নং. ৫

তারিখঃ ১ অক্টোবর, ১৯৭১

.

ইয়াহিয়ার গোপনীয়তার অন্তরালে

.

২১ শে জুন ১৯৭১ তারিখে তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের তথ্য ও জাতীয় বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সচিব রোয়েদাদ খানের স্বাক্ষরিত গোপন আদেশ নং U. O. No. 2303/71-Secy(s) তে বিদেশী সংবাদদাতা, ইউ.এস সিনেটর ও কংগ্রেসম্যান এবং ব্রিটিশ সংসদ সদস্যদের ম্যানেজ করার জন্য পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় এবং প্রাদেশিক কর্মচারীদের প্রতি কিছু দিক নির্দেশনা জারি করা হয়েছিল।

.

“বিদেশী সংবাদদাতাদের ভ্রমনে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পরের অবস্থা মোকাবেলা করার জন্য নিম্নোক্ত দিকনির্দেশনা গুলো সুপারিশ করা হয়েছিলঃ আমাদের অবশ্যই জানতে হবে কে ঢাকায় পা রাখছে এবং পূর্ব পাকিস্তানে কে কোথায় যাচ্ছে। এই জন্য পি.আই.এ (পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স) কে অনুরোধ করা হয়েছে চাতুর্যের সাথে তথ্য সংগ্রহ করতে এবং তা পি.আই.ও (প্রিন্সিপাল ইনফরমেশন অফিসার)/ডি.জি.পি.আর (ডিরেক্টর জেনারেল অফ পাবলিক রিলেশন্স) এবং JS, ঢাকাকে জ্ঞাত করার জন্য।”

.

“ঢাকা এবং করাচিতে তাদের দ্বারা পূরণকৃত সকল কাগজপত্র তৎক্ষণাৎ পি.আই.ও (প্রিন্সিপাল ইনফরমেশন অফিসার)/ডি.জি.পি.আর (ডিরেক্টর জেনারেল অফ পাবলিক রিলেশন্স) এর নিকট পাঠাতে হবে”

.

“ইন্টারকন্টিনেন্টাল, ঢাকায় পি.আই.ডি (প্রেস ইনফরমেশন ডিপার্টমেন্ট) একটি ইনফরমেশন ডেস্ক স্থাপন করবে যাতে বিদেশী সাংবাদিকদের সাথে লিয়াজো বজায় রাখা যায় এবং তাদের নিকট আমাদের তথ্য সরবরাহ করা যায়, পূর্ব পাকিস্তানের তথ্য মন্ত্রনালয়ের সচিব প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নিবে যাতে মহকুমা পর্যায় পর্যন্ত বিদেশী সাংবাদিকের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রাখার ব্যাবস্থা থাকে। এবং মহকুমা পর্যায়ে প্রাদেশিক তথ্য অফিসার শুধু তথ্য সরবরাহের জন্যই প্রস্তুত থাকবেনা, সেই সাথে ভ্রমনকৃত বিদেশী সাংবাদিকদের ও ব্রিফ করতে হবে। এর মানে এই যে, তাঁর প্রান্তে তাঁকে সবকিছু অবহিত করে রাখতে হবে এবং তাঁকে বলার মত পয়েন্টস এবং অন্যান্য দলিল সরবরাহ করতে হবে যাতে পূর্ব পাকিস্তানের প্রতি সরকারের নীতি প্রকাশ পায়।”

.

“চিফ সেক্রেটেরী একই সাথে ডিভিশনাল কমিশনার, ডিস্ট্রিক্ট ও সাব-ডিভিশনাল অফিসারদের কিভাবে বিদেশী সাংবাদিকদের মোকাবেলা করতে হবে সে ব্যাপারে সতর্ক করে দেবে, যারা সাধারনত স্থানীয় প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করতে পারে তাদের অনুসন্ধানের জন্য। এটাও আসা করা যাচ্ছে যে, বিদেশী সাংবাদিকদের ক্যান্টনমেন্ট ও সামরিক অফিসারদের থেকে দূরে রাখা হবে।”

.

“VIP দের ভ্রমন প্রসঙ্গে (যেমনঃ ব্রিটিশ এম.পি এবং কংগ্রেসম্যান) ঃ

.

“VIP দের সাধারণত যেসকল সুবিধা দেয়া হয় এবং বিবেচনা করা হয় তা দেয়া সাপেক্ষে অতিরিক্ত কোন বিনোদনের ব্যাবস্থা করা যাবেনা, যেটি বর্তমানের পূর্ব-পাকিস্তানের অবস্থার সাথে বেমানান। এবং অতিরিক্ত সামরিক ব্যাক্তিদের প্রদর্শন করানো যাবেনা। নিরাপত্তা ব্যাবস্থা হবে বিচক্ষন…

.

“তাদের বন্ধুত্বপূর্ন বিদেশীদের সাথে দেখা করার ব্যাপারে উৎসাহিত করা যেতে পারে। বিশেষত তাদের সাথে যারা চট্টগ্রাম ও সিলেটে আছে। এবং ব্যাক্তিগত ভাবে বিদ্রোহীদের ধ্বংসযজ্ঞ প্রত্যক্ষ করেছে।”

.

“তাদের বেশিরভাগই চট্টগ্রাম বন্দরের স্বাভাবিক অর্থনৈতিক কার্যক্রম এবং নারায়ণগঞ্জের স্বাভাবিক জীবন-যাপন নিজে থেকে দেখতে চাইবে।”

.

“সর্বোপরি, তারা দেখতে চাইবে যে উদ্বাস্তু ব্যাক্তিদের ফেরত নেয়ার ব্যাপারে এবং তাদের গ্রহণ ও পুনর্বাসনের ব্যাবস্থার ব্যাপারে যথাযথ ব্যাবস্থা নেয়া হয়েছে কিনা। এই ব্যাপারে তারা দুই-তিনটি শরনার্থী শিবির ভ্রমন করতে পারে। তাদের জনাকীর্ন গুলোই দেখানো হবে, কিন্তু জনতাকে পুনর্বাসনের মিথ্যা আশ্বাস দেয়ার বদলে তাদের নিশ্চিত করতে হবে যে তাদের পুনর্বাসনে দেরি হবে”

.

“অতিরিক্ত ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাগুলো যেমন খুলনা, থেকে তাদের দূরে রাখার চেষ্টা করা হবে। কিন্তু তাদের দূরে রাখার জন্য কোন ইচ্ছাকৃত সুস্পষ্ট পদক্ষেপ নেয়া যাবেনা।”

.

“আশা করা যাচ্ছে যে বুদ্ধিজীবী হত্যার কথিত প্রচেষ্টার ব্যাপারে তারা জেনেছে, এবং তারা এই ব্যাপারে অনুসন্ধান করার চেষ্টা করবে এবং জগন্নাথ হল ঘুরে দেখা এবং কিছু বুদ্ধিজীবীর সাথে দেখা করার ব্যাপারে জোর করবে। এই ব্যপারে আমাদের কোন আপত্তি থাকবেনা কিন্তু শুধু নির্ভরশীল ব্যাক্তিদের তাদের সাথে দেখা করিয়ে দেয়া হবে।….

.

অ্যাব্রিভিয়েশনের অর্থঃ

ডি.জি.পি.আর-ডিরেক্টর জেনারেল অফ পাবলিক রিলেশন্স

জে.এস- জয়েন্ট সেক্রেটারি

পি.আই.এ- পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স

পি.আই.ডি- প্রেস ইনফরমেশন ডিপার্টমেন্ট

পি.আই.ও-প্রিন্সিপাল ইনফরমেশন অফিসার।