11

যুদ্ধ পরিস্থিতি রিপোর্টঃ হাকিমপুর সাব সেক্টর

Posted
শিরনাম উৎস তারিখ
২৯। যুদ্ধ পরিস্থিতি রিপোর্ট  হাকিমপুর সাব সেক্টর ৮ নং সেক্টরের দলিলপত্র ১৯৭১

 

ট্রন্সলেটেড বাইঃ Razibul Bari Palash

<১১, ২৯, ৪৪২- ৪৫২>

 

 

ক্রমিক নং

 

সূত্র নম্বর ও  তারিখ

 

তথ্য অন্তর্ভুক্তির তারিখ ঘটনা

 

1 জি  0053

২২০৫০০

২২-৬-৭১ কাকডাঙ্গা, মান্দ্রা, কলারোয়াতে শত্রুরা তাদের সংখ্যা বাড়াচ্ছে। ৪ ট্রাক সেনা কাকডাঙ্গা, তালুইগাছা ও গারাখালিতে এসেছে। বাংলাদেশের পতাকা পাহারায় রাখা আছে।
জি ০০৪২

২২১৯০০

২২-৬-৭১ ২১১৬৩০ টায় তালুইগাছা বি ও পি তে ৪০ জন পাকসেনারা বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে যেতে আসে।  জি আর ৮৩৯১০৩ এম/এস ৭৯ বি/১৩। আমাদের বাহিনী ২১০৬০০ টায় ২০০ গজের ভেতর থেকে অ্যামবুশ করে ও গুলি চালায়।  আমাদের বাহিনী ১ টি চাইনিজ এল এম জি  ও ৩০ রাউন্ড গুলি, ২ টি ছাগল ও ১ টি গরু উদ্ধার করে। শত্রুদের ৪ জন নিহত হয়। তারা পতাকা নিতে পারেনি। জব্দক্রিত অস্ত্র দরগা তেতুলিয়ার ব্যাটালিয়নকে দেয়া হয়। প্রাণীগুলো স্থানীয়দের দেয়া হয়। ৬৫৭৭৩৯০ সেপ্টেম্বর আব্দুল অয়াহেদ বুকের বাম পাশে উপরের দিকে মারাত্মক আঘাত পান ও দগড়া ব্যাটালিয়নের সাহায্যে তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়।   
জি ০০৫৫

২২২৩০০

২৩-৬-৭১ ২২০৮০০  টায় আমাদের বাহিনীর  ২ কয় সৈন্য তালুইগাছাতে ১৭০০ টা পর্যন্ত আক্রমণ করে। শত্রু হতাহতের পরিমাণ জানা যায়নি। আমাদের বাহিনীর সাথে আরও ২ সেকশন সৈন্য যোগ হয়। ১ টি বেল্ট চাইনিজ এমও জব্দ করা হয়। আমাদের হতাহত নাই। জয় বাংলা বলে আমাদের বাহিনী আক্রমণ শুরু করে। শত্রুরা পালিয়ে যায়। তালুইগাছাতে আমাদের বাহিনী অবস্থান নেয়। আমাদের মনোবল অনেক বেড়ে  যায়। আক্রমণের আগে আমাদের বাহিনী ১ জন স্পাই কে আটক করে এবং সে স্বীকার করে যে তাকে শত্রুরা পাঠিয়েছে।  
জি ০০৫৬

২৩০৫০০

২৩-৬-৭১ ২ কয় শত্রু সেনা পিছন থেকে আমাদের বাহিনীকে আক্রমণ করে ০০১৫ টায়। আমাদের বাহিনী জবাব দেয়। আমাদের কোন হতাহত নাই। তালুইগাছাতে আরও সৈন্য পাঠানো হয়। কাকডাঙ্গার কাছে বাদিয়ালি তে মুক্তিফৌজ আরও একটি বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করে। একটি সেকশন ২ টি পতাকা পাহারায় রেখেছে।
জি ০০৫৯

২৩১৭০০

২৪-৬-৭১ কাকডাঙ্গা ও কামেনডাঙ্গায় ১ কয় শত্রু আমাদের বাহিনী কে আক্রমণ করে। আমাদের বাহিনী তালুইগাছা তে ছিল। তালুইগাছা, কেউরাগাছি ও বাদিয়ালি গ্রামে  বাংলাদেশের পতাকা এখনো টানানো আছে।
জি ০০৬১

২৪১৭০০

২৫-৬-৭১ শত্রু অবস্থান – হিজলদি, মান্দ্রা, কাকডাঙ্গা।

শত্রুরা ৩ ইঞ্চি মর্টার দিয়ে ২৪ জুন তালুইগাছা অবস্থানে আক্রমণ করে। উভয় পাশে কোন হতাহত নাই। ২৩/২৪ রাতে আব্দুল হোক, মোঃ ইসহাক মোল্লা ও কেরাল্গাছ, থানা কলারোয়ার শান্তি কমিটির সেক্রেটারি  কে হত্যা করা হয়। জুরাবার এর ১ মাইল পশ্চিমে সোনাবাড়িয়াতেআমাদের বাহিনী একটি মাইন পোতে।  কাকদাঙ্গা- মান্দ্রার মাঝে আমাদের বাহিনী ৩০০ গজ টেলিফোনের তার ০৬০০ টায় বিনষ্ট করে।  আমাদের কোন হতাহত নাই।

জি ০০৬৩

২৫০৫৩০

২৫-৬-৭১ কাকডাঙ্গা ও হথাতগঞ্জে ২ কয় শত্রু সৈন্য অবস্থান করছিল। আমাদের বাহিনী তালুইগাছে পতাকা পাহারা দিচ্ছিল। আমাদের সি ডি ও পার্টি কলারোয়া থানায় অপারেশনের জন্য রওনা দেয়। এখনো ফিরে আসেনি।

 

জি ০০৬২

২৪১৭০০

২৫-৬-৭১ তালুইগাছায় ২৪১৪০০ টায় ২ কয় শত্রু সেনা লক্ষ্য করে আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। কারো হতাহত জানা যায়নি
জি ০০৬৫

২৫১৭০০

২৬-৬-৭১ ২৫ জুন আমাদের রেইড পার্টি কলারোয়ায় পাঠানো হয়। তারা ১- আকবর আলি সরকার, ২- আকরাম আলি সরকার পিতা – মাহতাব উদ্দিন সরকার কে হত্যা করে। তারা সিল ছবি সহ একটি পরিচয় পত্র ও শান্তি কমিটির একটি ব্যাজ জব্দ করে। রাকিব উদ্দিন নামে একজন ছাত্র বাম হাতের আঙ্গুলে ব্যাথা পায়। তাকে ব্যারাকপুর হাসপাতালে পাঠানো হয়। কয় কমান্ড বলেন সেকশন চাইলে পাকা অবস্থান তৈরি করা হবে তালুইগাছায়। পাবলিসিটির জন্য প্রেস ও টি ভি র লোক পাঠানো যেতে পারে।
১০ জি ০০৬৮

২৭০৫০০

২৭-৬-৭১ কাকডাঙ্গায় ১ কয় পাকসেনার উপর আক্রমণের জন্য ৪ জন ছাত্র রওনা দেয়। ২৩০০ টায় আমাদের বাহিনী গুলি শুরু করে। আমাদের ১ টি ২ ইঞ্চি মর্টার ও ১ টি এল এম জি নষ্ট হয়। অন্য একটি দল হিজলদিতে পাঠানো হয়। সেখানেও আক্রমণ চলছে। ফলাফল এখনো আসেনি। আমাদের বাহিনী অক্ষত আছে। একটি দল তালুইগাছা পাহারা ও পেট্রোলে আছে।
১১ জি ০০৭২

২৮১৭০০

২৯-৬-৭১ কাকডাঙ্গায় শত্রু অবস্থান চিনহিত। আমাদের ১ সেকশন সৈন্য এম এম জি নিয়ে ১১৩৫ টায় আক্রমণ করে। শত্রুদের  হতাহত ৫ জন। আমাদের হতাহত নাই।
১২ জি ০০৭১

২৮০৫০০

২৯-৬-৭১ শত্রুদের ২ কয় সৈন্য কাকডাঙ্গা, মান্দ্রা ও হিজলদিতে চিনহিত। ২৯ জুন ২৩০০৪০ টায় আমাদের তিনটি প্লাটুন ভিন্ন ভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়। হটাথগঞ্জে একটি সি ডি ও পার্টি শত্রুদের উপর আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। তারা গ্রেনেড নিক্ষেপ করে। কিন্তু ফাটেনাই। কলারোয়ার আরুয়াখালিতে  একটি সি ডি ও পার্টি আক্রমণ করে। শত্রুদের ১ জন নিহত হয়। নিরাপদে আমাদের বাহিনী ফিরে আসে।
১৩ জি ০০৭৩

২৯০৫০০

৩০-৬-৭১ শত্রু অবস্থান – কাকডাঙ্গা, মান্দ্রা , হিজলদি।

শত্রু অবস্থানে অ্যামবুশ করার জন্য আমাদের লোক পাঠানো হয়। আমাদের বাহিনীর একটি প্লাটুন কাকডাঙ্গা, একটি কলারোয়া- চান্দুরিয়া মাইন সেট করতে যায়। সোনাবারিয়াতে ৩ টি এ টি কে মাইন সেট করা হয়। আরেকটি প্লাটুন কলারোয়া জে এস আর / এস টি কে রাস্তায় পাঠানো হয়। তারা কলারোয়া- ঝিনেদা রাস্তায় ও মাইন পুঁতে রাখে। এখনো ফেরেনি।

১৪ জি ০০৭৬

০১০৭০০

২-৭-৭১ কলারোয়ার কাছে একটি অংশ ধ্বংস করার জন্য একটি সি ডি ও পার্টি পাঠানো হয়। ব্রজবাক কিউ টি ৯৩২৬ এম/এস ৭৯ এফ নাভারন সাতক্ষিরা রাস্তা পুরো ধ্বংস করা হয়। আরেকটি সি ডি ও পার্টি বান্সদাহা কিউ টি ৯৫০৭ এম/এস ৭৯ এফ এর ব্রিজ ধ্বংস করতে আমাদের বাহিনী পাঠানো হয়। বান্সদাহা  গ্রামে পাকসেনাদের দোসরকে হত্যা করার জন্য বাহিনী পাঠানো হয়। আরও ২ জন দোসরকে হত্যা ও তাদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দেয়া হয়। আরও কিছু দোকান ও পোস্ট অফিস ধ্বংস করা হয়। আমাদের বাহিনীর একটি প্লাটুন কাকডাঙ্গা শত্রু অবস্থানে পাঠানো হয় ও তারা ০০৩০ ০১৩০ পর্যন্ত গুলি চালায়। ফায়ারিং এর কারণে ১ টি রাইফেল নষ্ট হয়। আমাদের কোন হতাহত হয়নি। 
১৫ জি ০০৮০

০৪০৬০০

৪-৭-৭১ ৩/৪ তারিখ রাতে কাকডাঙ্গার জমিরকে তালুইগাছা থেকে পেট্রোল পার্টি আটক করে। তাকে হত্যা করা হয়। সে শত্রুদের তাঁর বাড়িতে আশ্রয় দিত। সাধারণ লোক মারফত তার লাশটি শত্রু ঘাঁটিতে পৌঁছানো হয়।
১৬ জি ০০৮২

০৪০৭০০

৪-৭-৭১ কলারোয়াতে শত্রুরা একটি ব্রিজ মেরামতের জন্য ৪০০ কুলি দিয়ে কাজ করাচ্ছিল। আমাদের বাহিনী সেটি ধ্বংস করে দেয়। দামদামাতে জি আর ৯০৮২৩ এম/এস ৭৯বি/১৩ ও ৭৯ এফ/৯ একটি ব্রিজ ধ্বংস করার জন্য আমাদের লোক পাঠানো হয়। আরেকটি দল সনাবারিয়া গি আর ৮৪৫২২৩ এম/এস ৭৯বি/১৩ তে একটি ব্রিজ ধ্বংস করে।
১৭ জি ০০৮৩

০৪১৭০০

৬-৭-৭১ কাকডাঙ্গায় শত্রু অবস্থান চিনহিত। ১০৩০ টায় তাদের সাথে আমাদের মোকাবিলা হয়। হতাহত জানা যায়নি। ২৬০০টায় তালুইগাছায় গুলি বিনিময় হয়। বালাডাঙ্গায় আমাদের একজন মুক্তিফৌজ ধরা পরে। তারা তাঁর জামা আর সাথের ৫ টাকা ও ২ টি গ্রেনেড নিয়ে যায়। কিছুক্ষণ মারার পর তাকে ছেড়ে দেয় এবং সে ১১৬৩০ টায় ফিরে আসে।
১৮ জি ০০৮৯

০৬০৫০০

৬-৭-৭১ হিজলদিতে আমাদের বাহিনীর সাথে ০২০০ টায় ১৫ মিনিটের যুদ্ধ হয়। শত্রুদের হতাহত জানা যায়নি। তালুইগাছায় আমাদের পেট্রল চলছে।
১৯ জি ০০৯০

০৮০৭০০

৮-৭-৭১ আমাদের বাহিনী কাশখালি থানা আক্রমণ করে ও সব  ডকুমেন্ট জব্দ করে  নিয়ে ফিরে আসে। একটি প্লাটুন বান্সদাহাতে পাঠানো হয় পাকি দালাল আটকের উদ্যেশ্যে। আরেকটি প্লাটুন কেন্দ্রগাছি ও মকামতলা হাটে  সি ডি ও পার্টি পাঠানো হয়। কাকডাঙ্গা ও মান্দ্রায় ৫০ গজ টেলিফোন তার নষ্ট করা হয়। চান্দুরিয়ার দল টি এখন ফেরত আসেনি। 
২০ জি ০০৯২

০৯০৫০০

৯-৭-৭১ কাকডাঙ্গায় শত্রু অবস্থান চিনহিত। ২৩০০ টায় আমাদের বাহিনী  গুলি করে। ০৫০০টা পর্যন্ত চলে। কোন হতাহত জানা যায়নি। 
২১ জি ০০৯১

০৮১৭০০

৯-৭-৭১ চান্দুরিয়া আমাদের বাহিনী  কর্তৃক বি ও পি ধ্বংস করা হয়। কাকডাঙ্গা বি ও পি তে গুলি বিনিময় হয়। শত্রুদের হতাহত জানা যায়নি। 
২২ জি ০০৯৪

১০০৫০০

১০-৭-৭১ কাকডাঙ্গা/ হাওয়ালখালিতে শত্রুদের ২ টি কয় চিনহিত। হিজলদিতে আমাদের বাহিনীর সাথে ২ ঘণ্টা যুদ্ধ চলে।
২৩ জি ০০৯৭

১১১৭০০

১২-৭-৭১ কাকডাঙ্গা – মান্দ্রাতে ২ কয়ের সাথে আমাদের বাহিনীর যুদ্ধ চলে। শত্রুদের ৩ জন আহত হয়।
২৪ জি ০০৯৫

২০৫০০

১২-৭-৭১ হিজলদি, মান্দ্রা ও কাকডাঙ্গায় শত্রুদের ৫ টি কয় চিনহিত। ২৩০০ টায় জে ডি ও পার্টি হিজলদিতে আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে।
২৫ জি ০১০১

১৩০৫০০ 

১৪-৭-৭১ শত্রুদের ৫ টি কয় চিনহিত। সাঁতারই রাস্তায় ও হাওয়ালখালি থানায় ২ টি এ টি কে মাইন পোঁতা হয়। উপজেলা অফিস ধ্বংস করা হয়। আমাদের বাহিনী কিছু দরকারি দলিল জব্দ করে। সব ৩১ দগড়ায় জমা দেয়া হয়।
২৬ জি ০১১১

১৪০৫০০

১৪-৭-৭১ শত্রুদের ৫ টি কয় চিনহিত। কলারোয়া থানার মুরারিকাটি আমাদের বাহিনী পোস্ট অফিস ধ্বংস করে। দরকারি কাগজ জব্দ করে। সেগুলো ১৩ দগড়া তে হস্তান্তর করে। কিছু দালাল নিহত হয়। নাম – সরুফ সরদার, আঁকাস সরদার, মকবুল সরদার, শফিকুল ইসলাম, সাব্দুল গাজি সরালিয়ার, থানা – তালা, খুলনা, এঝার সরদার, মজাহার সরদার – খালিশকাঠি, থানা – তালা, খুলনা। এম এল নেতা ও ৬ জন শান্তি কমিটি ও জামাতের সদস্য। 
২৭ জি ০০৯৯

১২১৭০০

১৪-৭-৭১ ১২ তারিখ রাতে আমাদের বাহিনী বোয়ালিয়া থানা ও বান্সদা উপজিলা অফিসে আক্রমণ করে। দরকারি কাগজ জব্দ হয়। সেগুলো ১৩ দগড়ায় জমা দেয়া হয়। শান্তি কমিটির লোক নিহত হয়। নাম – ক্যাপ্টেন কদম আলি, পিতা – বাকের আলি, পাছড়ালি, সাতক্ষিরা।
২৮ জি ০১১৮

২১১৭০০

২৩-৭-৭১ হিজলদি কাকডাঙ্গা, সাইয়ানি ও বান্সদাতে ৫ টি র বেশী কয় চিনহিত। বান্সদা বাজারে পাকিরা বাঙ্কার খনন করছে বলে জানা যায়। আমাদের বাহিনী ১/৭ ফায়ার করে ১২৩০ টায়। গুলিতে একটি আম গাছ ভেঙ্গে পরে। তাদের হতাহত ৭ জন। আমাদের হতাহত নাই ।
২৯ জি ০১২০

২৩০৭০০

২৪-৭-৭১ ২১ জুলাই আমাদের চি ডি ও পার্টি হিজলদি, মান্দ্রা ও কাকডাঙ্গায় ৬০০ গজ টেলিফোনের তার ধ্বংস করে।
৩০ জি ০১২২

২৫০৭০০

২৫-৭-৭১ আমাদের সি ডি ও পার্টি আখ্রাখোলা ও দেবনগর পোস্ট অফিস ধ্বংস করে। থানা -সাতক্ষীরা। কিছু দরকারি কাগজ জব্দ হয়। ৫৯ টাকা ৫৯ পয়সা পাওয়া যায়। দেবনগরের শান্তি কমিটির সেক্রেটারি শমশের রহমান নিহত – তার থানা সাতক্ষীরা। একটি রাম দা উদ্ধার হয়। আরেকটি সি ডি ও পার্টি এখনো বাংলাদেশের ভিতরে অবস্থান করছে।
৩১ জি ০৭২৬

২৮০৮০০

২৯-৭-৭১ সি ডি ও পার্টি পাক দালাল আসির উদ্দিন ও ওয়ায়েজ আলির বাড়ি আক্রমণ করে, ঠিকানা – গ্রাম – আখ্রাখোলা, থানা – সাতক্ষীরা – কিন্তু তাদের বাড়িতে পাওয়া যায়নি। তারা একটি টেবিল ঘড়ি, ৩ ব্যাটারির টর্চ ১ টি, ২ টি ট্রাঞ্জিস্টর জব্দ করে ও ১৩ দগড়ায় রশিদ সহ জমা দেয়। 
৩২ জি ০৭২৭

২৯০৮০০

২৯-৭-৭১ আমাদের বাহিনী সাতক্ষীরায় বাবুলিয়া পোস্ট অফিস ও আগারদারি তহশিল অফিস ধ্বংস করে। দরকারি কাগজ জব্দ করে। তারা ২৩ টি গুলির কার্টিজ উদ্ধার করে। অন্য একটি সি ডি ও শান্তি কমিটির সেক্রেটারি এদু মিয়াঁর বাড়ি আক্রমণ করে। গ্রাম – বালাডাঙ্গা, থানা – সাতক্ষীরা – একটি ট্রাঞ্জিস্টর জব্দ করে কিন্তু এদু মিয়াকে পায়নি।
৩৩ জি ০৭৩০

৩১১০৩০

৩১-৭-৭১ চাঁদপুর উপজেলার জামাত ই ইসলামির  সেক্রেটারি আব্দুল মজিদকে হত্যা করা হয়। বাঘাছরায় কেরাল্কাটা ব্রিজ পাহারা রত এক চকিদারকে হত্যা করা হয়। আব্দুল মজিদের বাড়ি থেকে ১ টি  ১ ব্যান্ডের রেডিও উদ্ধার হয়।
৩৪ জি ০৭৩১

০১০৮০০

১-৮-৭১ এখানে শত্রুদের ৩ টি কয়  ছিল। হিজলদি পুরো এলাকায় আমাদের দখলে ছিল ও বাংলাদেশের পতাকা টানানো ছিল। ২ টি সি ডি ও পার্টি বাইরে আছে। তারা আসলে ফলাফল জানা যাবে। 
৩৫ জি ০৭৩২

০২১০০

২-৮-৭১ কাকডাঙ্গায় ৩ টি কয়ের বিরুদ্ধে ০১২০০০ থেকে ০১২৩০০ পর্যন্ত ৩ টি কয়ের সাথে যুদ্ধ হয়। সি ডি ও পার্টি আগারদারি উপজেলা কমপ্লেক্স ও হাটখোলা হিজালদি পোস্ট অফিসে আক্রমণ করে দরকারি কাগজ জব্দ করে । ২ টি সি ডি ও পার্টি বাইরে আছে।
৩৬ জি ০৭৩৩

০২১৯০০

৩-৮-৭১ আমাদের একটি দল ২৮১৮০০ জুলাই গিয়েছিল। তারা ০২১৩৩০ আগস্ট ফিরে আসে। আমাদের বাহিনী সাব রেজিস্ট্রার অফিস, তহসিল অফিস ও পোস্ট অফিস থানা – ইসলাম কাঠি, থানা – তালা  – ধ্বংস করে ও দরকারি কাগজ জব্দ করা হয়। আমাদের আরেকটি দল ০১১৫০০ টায় যায় ও ০২৪০০ টায় ফিরে আসে। তারা কাইবা উপজেলা কমপ্লেক্স অফিস, চালতা বাড়িয়া পোস্ট অফিস ও পাচকাইবা পোস্ট অফিস ধ্বংস করে ও দরকারি কাগজ নিয়ে আসে। ২ টি বন্দুক ১০ টি কার্ল , ৯ টি গ্রামোফোন রেকর্ড কাদপুর শান্তি কমিটির সেক্রেটারি আহাইনাদ হোসেন ও গোয়ালপাড়ার হজরত আলি মেম্বার – থানা – কলারোয়া – এদের  বাড়ি থেকে জব্দ করা হয়। তালুইগাছায় আব্দুস সাত্তার চেয়ারম্যান ভাদ্রা উপজিলা কমপ্লেক্স থানা – সাতক্ষীরা এর বাড়িতে আক্রমণ করা হয়। সে বাড়ি ছিলনা। তার ভাই যে পাক সেনাদের সাহায্য করত তাকে কিছু রাজাকারের সাথে হত্যা করা হয়। তাদের বাড়ি ধ্বংস করা হয়।  
৩৭ জি ০৭৩৫

০৪০৯০০

৬-৮-৭১ আমাদের দল কাটান্দা তহসিল অফিস ধ্বংস করে। ৩০০ গজ টেলিফোন তার নষ্ট করে। বাইকারি বি এইচ এম থেকে। ৪ আগস্ট ১৩ দগড়ায় জমা দেয়া হয়।
৩৮ জি ০৭৩৬

০৫১৭০০

৬-৮-৭১ সিডি ও পার্টি বাল্লি উপজেলা কমপ্লেক্স ও মাল্টি পারপাস সোসাইটি ধ্বংস করে – থানা সাতক্ষীরা। বাল্লির শান্তি কমিটির ৭ জনকে হত্যা করা হয়। একটি প্লাটুনে ১ অফিসার সহ ১৪ জন হিজলদি থেকে গাইরা অন্য একটি প্লাটুনে ১২ জন ছিল হিজলদি থেকে মান্দ্রা পর্যন্ত তাদের সাথে আমাদের বাহিনীর হেভি গুলি বিনিময় হয়। পাক দালাল আকবর আলি – নথুপুর, থানা কলারোয়া নিহত হয়। মর্টার শেলিং সহ ০৪২০০ টায় কাকডাঙ্গায় গুলি বিনিময় হয়। শত্রুরা বিছানাপত্র, এমও, রেশন ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। কাকডাঙ্গা বি ও পি দখল করে বাংলাদেশের পতাকা টানানো হয়। হঠাতগঞ্জ হাই স্কুলের  কাছে একটি ব্রিজ ধ্বংস করা হয়। 
৩৯ জি ০৭৩৭

০৬০৭০০

৬-৮-৭১ আমাদের ২ টি দল ফিরে আসে। কান্দ্রাগাছি উপজিলা কমপ্লেক্স, পোস্ট অফিস আমাদের বাহিনী ধ্বংস করে। দরকারি কাগজ জব্দ করে নিয়ে আসে। আর মাধব কাঠিতে টেলিফোন লাইন ধ্বংস করে।
৪০ জি ০৭৪০

০৭১৮০০

১-৮-৭১ কাকডাঙ্গা ও হঠাতগঞ্জ স্কুলে শত্রুদের ২ টি কয় আছে। সেখানে শত্রুরা বাঙ্কার ও আশ্রয় তৈরি করছিল। তারা মান্দ্রা আর কাকডাঙ্গার মাঝে অবস্থা নিচ্ছে। আমাদের বাহিনী হিজলদি, তালুইগাছা তে অবস্থান করছে – এটা কাকদাঙ্গা শত্রুদের থেকে ৫০০ গজ দূরে। ০৬ আগস্ট ইউ এস এইচএ এর একজন নিহত হয় আমাদের বাহিনীর গুলিতে। ২ রাজাকার আটক হয়। এস পি ইউনিটের কাছে হস্তান্তর করা হয়  তাকে এবং জেরা করা হয়। রাঘু গ্রামে একজন দুষ্কৃতিকারী গ্রেফতার হয়। ৫ আগস্ট পেয়ারাডাঙ্গা সাতক্ষীরায় আমাদের বাহিনীর সাথে যুদ্ধে  ৫ জন নিহত হয়। তারা ডাকাতি করছিল। সুলতানপুরে থানা – খুলনা – বন্দুক সহ সি ইউ সি আবুল হোসেন গ্রেফতার।
৪১ জি ০৭৪১

০১১৭০০

৯-৮-৭১ শত্রুদের মান্দ্রাতে ১ কয়, কাকডাঙ্গা হঠাতগঞ্জে ২ কয় ও ৩ ইঞ্চি মর্টার আছে। সাতক্ষীরা যশোরে কদমতলার রাস্তায় আমাদের বাহিনী আর্টিলারি ফিট করে। বাঘাছরার কাছে পাছগাতি ব্রিজ উড়িয়ে দেয় তারা। তালুগাছিয়া থেকে হঠাতগঞ্জে ৫ আগস্ট আমাদের বাহিনীর আক্রমণে ২ জন নিহত ও ৬ জন পাকসেনা আহত হয়। শত্রুরা কাকডাঙ্গায় বাঙ্কার বানাচ্ছে আর সেখানে সারাদিন গুলি চলছে।
৪২ জি ০৭৪৪

১০১০৭০০

১১-৮-৭১ ০৭২১০০ টায় শত্রুদের ৩ কয় সৈন্যদের তথ্য পাওয়া যায়। ০৮১১০০ টায় কাকডাঙ্গায় আমাদের বাহিনীর আক্রমণে  ৩ জন নিহত ও ১ জন আহত হয়। মর্টার শেলিং এ কাকদাঙ্গা স্কুলে ১ জন নিহত ও ১ জন আহত হয়। একই দিনে বাগডাঙ্গায় ০৮০২০৩০ টায় ৪ জন নিহত ও ৬ জন আহত হয়। বাল্লা তে অ্যামবুশে শত্রুদের ২ জন নিহত ও ২ জন আহত হয়। মশারফুদ্দিন গাইন এগুলো চাক্ষুষ দেখেছেন। আমাদের বাহিনী কেরাত কালি পোস্ট অফিস ও উপজেলা অফিস  ধ্বংস করেছে।
৪৩ জি ০৭৪৫

১১০০০

১১-৮-৭১ আমাদের ২ টি কয় ৩ টি ফাইটিং পেট্রোলের সাথে  তালুইগাছা কাকডাঙ্গায় শত্রুদের সাথে যুদ্ধ হয়। মুক্তি বাড়ি ও হিজলদি ও মান্দ্রায় গুলি বিনিময় হয়। নেতৃত্ব দিয়েছেন নায়েক সুবেদার ইলিয়াস পাটোয়ারি।  ২ বক্স সিল করা ৩০৩ বল এমও ৭৬৮।  সি ডি ও পার্টি রাজনগর থানা ধ্বংস করে।
৪৪ জি ০৭৪২

০৯০৭০০

১১-৮-৭১ ৩ কয় শত্রু আছে। লাঙ্গলজরায় আমাদের বাহিনী পোস্ট অফিস ধ্বংস করে। দরকারি কাগজ জব্দ করে। আমাদের বাহিনী ৩০০ গজ টেলিফোনের তার বিচ্ছিন্ন করে হঠাতগঞ্জ কলারোয়া রাস্তায়। হঠাতগঞ্জ কলারোয়া রাস্তায় ৫ টি মাইন পোঁতা হয়। তালুইগাছার রেয়ারি বাজার ও হিজলদির বাড়ালিতে যুদ্ধ চলে।
৪৫ জি ০৭৪৬

১২০৫৩০

১২-৮-৭১ বাইকারি বি ও পি তে দুই সেকশন শত্রুসৈন্য আছে। একজন নায়েক সুবেদার তাদের প্রধান। তাদের কাছে আছে একটি এল এম জি ও রাইফেল। আমাদের ৬ জন শত্রুদের মাইনে আহত হয়। তাদের হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। কাকডাঙ্গা বাইকারিতে প্রায় ১০০ শত্রুমাইন উদ্ধার করা হয়েছে। আমাদের ধারনা আরও পাওয়া যাবে। মাইন ডিটেক্টর চাওয়া হয়েছে। ২ টি এল এম জি , ১ টি ২ ইঞ্চি মর্টার ও অটো রাইফেল সহ লোকবল চাওয়া হয়েছে। আমাদের বাহিনীকে মাইনের ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে। ব্যারাকপুর হাসপাতালে আমাদের আহত লোকদের দেখাশোনা আর তাদের জন্য কাপড় ও টাকা সহ একজন নির্ভরযগ্য লোক চাওয়া হয়েছে। বাইকারি কয় কমান্ডে ৪ জন মুক্তিফৌজ ঠিকমত ডিউটিতে না থাকায় তাদের বিরুদ্ধে একশন নেয়া হয়েছে। গোজাডাঙ্গা কয় কমান্ডো তে  তদের রাখা হয়েছে। মেরামতের জন্য পিক আপ দেয়া হয়। বাইকারির কয় কমান্ড ব্যাস্ত থাকায় সেকশন কমান্ডারের ইচ্ছা ছাড়া প্রস্তুতি নেয়া হবেনা। কয় কমান্ড অনুরোধ করেছেন আহতদের প্রত্যেককে বাংলাদেশের ১০০০ টাকা দেয়া উচিৎ। এতে স্থানীয় লোকদের মুক্তিদের সাহায্য করার মনোবল বাড়বে। 
৪৬ জি ০৭৪৮

১৩৯০০

১৪-৮-৭১ সি ডি ও পার্টির ৫ জন হাকিমপুর যুব ক্লাব থেকে ঝাউডাঙ্গা বাজারে পাক দোসর শুকুর আলিকে ধরতে যায় – কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি। শুকুর আলির দোকানে বন্দুক চালানের সময় হাফিজুদ্দিন পিতা- তাছির মোল্লা, কারিয়া, কলারোয়া স্টেনগানের গুলিবিদ্ধ হন কোমরের  পেছনে। এই অপারেশনে আমরা ২ টি স্টেনগান ম্যাগাজিন হারাই; সাথে ৪০ রাউন্ড ৯ মিমি গুলি। 
৪৭ জি ০৭৪৭

১৩০৭০০

১৪-৮-৭১ বাইকারি বি ও পি ধ্বংস করা হয়। মাইনের জন্য বাঙ্কার ধ্বংস করা যায়নি। কাকডাঙ্গা থেকে আরও মাইন উদ্ধার করা হয়েছে। রাইফেলসহ রমজান আলি, থানা – কলারোয়া আমাদের কাছে আত্মসমর্পন করে। সে নিজেকে মুজাহিদ পরিচয় দেয়। এস টি কে থেকে শত্রুরা আমাদের বান্সদাহার দিকে ঠেলে পাঠাতে চাচ্ছিল। মান্দ্রা ও কাকডাঙ্গায় আরও শত্রু সৈন্য জড়ো হচ্ছে। শ্রীরামপুরে কাঠের ব্রিজ ধ্বংস করা হয়
৪৮ জি ০৭৪৯ ১৪-৮-৭১ ১২ আগস্ট ২ জন আনসার ও ৩ জন সিভিলিয়ানকে আবেদারহাটখোলা রেকি করতে পাঠানো হয় ও টেলিফোনের তার কাটতে বলা হয়। তাদের ৩ জন রাইফেল ও ১০০ রাউন্ড ৩০৩ বল এমও সহ পাকসেনাদের হাতে ধরা পরেন।

১- হাজি মোহাম্মাদ আলি পিতা-ম্রিত হাজি আমির আলি

২। মিস্ত্রি জাহিদ মোল্লা , পিতা- হোসেন আলি মোল্লা বান্সদাহা, থনা – সাতক্ষিরা।

৩- আব্দুল মজিদ নারায়ণগঞ্জ আটক হন।

৪৯ জি ০৭৪৯

১৬১৪০০

১৭-৮-৭১ ২-৮-৭১ ১৯০০ টায় ৫ জন সি ডি ও পার্টিতে যোগ দেন। তাদের সাথে ২ টি রাইফেল, ১০০ রাউন্ড ৩০৩ বল এমও , ২ টি স্টেনগান, ৬ টি স্টেন ম্যাগাজিন, ১০৮ রাউন্ড এম এম গ্রেনেড ৬ টি, ৩ টি এ টি কে মাইন ছিল।
৫০ জি ০৭৫৫

২২১৩৪৫

২২-৮-৭১ ২১ আগস্ট ১০০০ টায় ১৭৯১৭ সিপাহি নজরুল ইসলাম ডান বাহু ও বুকের মাঝখানে গুলিবিদ্ধ হন। প্রাথমিক চিকিৎসার পরে তাকে ব্যারাকপুরে পাঠানো হয়।
৫১ জি ৭৬০

২৫০৭০০

২৭-৮-৭১ শত্রুরা ২ কয়। আমাদের বাহিনী দোগাছিয়া ব্রিজ ধ্বংস করেছে। এটি ৪০ বাই ১৫ ফুট দীর্ঘ ছিল। মাধবকাঠি ও রেওয়াই বাজারের মাঝে অবস্থিত। আক্রমণের সময় ছিল ০০৩০ টা।
৫২ জি ০৭৬১

২৫০৮০০

২৭-৮-৭১ কাকডাঙ্গা অবস্থান থেকে ০৭৩০ টায় শত্রুরা আমাদের উপর গুলি চালায়। ২৪ আগস্ট সারাদিন গুলি চলে। তারা রাওয়াই হাট ঢুকতে চায় হঠাতগঞ্জ থেকে।
৫৩ জি ৯৭৬৪

২৮২১৩০

২৯-৮-৭১ ২৭০৮৩০ থেকে ২৮১২৩০ আগস্ট রাতে শত্রুরা রেওয়াই বাজার থেকে হঠাতগঞ্জ স্কুলের ডান থেকে আমাদের বাহিনীর উপর আক্রমণ করে। শত্রুদের ১ জন নিহত ২  জন আহত হয়। আমাদের ১ জন আনসার আব্দুল ওয়াহিদ এম কে ৪ রাইফেল সহ নিখোঁজ আছেন। শত্রুরা ২ জন সাধারণ জনগণকে হত্যা করে ও ২ জনকে আহত করে। তাদের স্বরূপনগর হাসপাতালে পাঠানো হয়। শত্রুরা কাকডাঙ্গায় ওপেন ফায়ার করলে একটি টিন এইজ বালক আহত হয়। তাকে বশীর হাট হাসপাতালে নেয়া হয়। হিজলদিতে একজন রাজাকার গোয়েন্দা আটক করে আমাদের বাহিনী। সে আমাদের কাছে বন্দি আছে। ঠিকানা – আতিউর রহমান রাজাকার, পিতা- মোঃ মোকসেদ আলি, কোটাবারই, কলারোয়া।
৫৪ আর ০৭৭৮

১০০৯১৫

১০-৯-৭১ আব্দারহাটে ০৯০৮০০ টায় আমাদের বাহিনী গুলি শুরু করে শত্রু অবস্থানে। শত্রুদের ১ জন ক্যাপ্টেন আহত হয়। ২ জন ও আর নিহত হয়। ১ জন পাবলিক আহত হয়। আমাদের কোন হতাহত নাই।
৫৫ জি ০৭৮৫

১৩১৯০০

১৪-৯-৭১ ১২/১৩ রাতে কাকডাঙ্গা ও মান্দ্রায় আমাদের বাহিনীর সাথে শত্রুদের ভারী গুলি বিনিময় হয়। এতে হতাহতের সংখ্যা জানা যায়নি। 
৫৬ জি ০৭৯৩

১৪১৮৩০

১৫-৯-৭১ ১২/১৩ তারিখ রাতে কাকদাঙ্গা, মান্দ্রা ও আবদার হাটে ভারী আমাদের সাথে শত্রুদের গুলি বিনিময় হয়। কোন হতাহত জানা যায়নি। শত্রুরা সাতানি, নারায়েনঘাট, আবদার হাট ও কাকডাঙ্গা তে ৩ কয় নিয়ে আসে। ১৪০৩৯০ থেকে ০৬০০ টায় আমাদের সাথে গুলি বিনিময় হয়। তাদের ১০ জন নিহত ও অনেক আহত হয়। আমাদের ২ জন সাধারণ জনতা আহত হয়।
৫৭ জি ০৭১৫

০১১১০০

১-১০-৭১ ৩০১৬০০ টায় শত্রুদের ১ ব্যাটালিয়ন হাতাইগঞ্জ ও বালিয়াডাঙ্গা তে আসে জি আর ৮৭১৬/৮৬১৬
৫৮ জি ০৭১৮

৫০৭০০

৫-১০-৭১ আমাদের বাহিনী কাকডাঙ্গার কাছে জি আর ৮৫১১৭৩ এম/এস৭৯ বি/১৩ ০৩২৩০০ টা থেকে ০৪০৩০০ অক্টোবর অ্যামবুশ করে। শত্রুদের ৬ জন নিহত ৫ জন আহত হয়। আমাদের হতাহত নাই। ০৪০২০০ টায় সোনাবারিয়া / মান্দ্রা তে আমাদের বাহিনীরা অ্যামবুশ করে। শত্রুদের ৭ জন নিহত হয়। আমাদের হতাহত নাই।
৫৯ জি ০৭২২

০৭২১০০

৮-১০-৭১ গন বাহিনী ৪ জন রাজাকার আটক করে ৮৯৪২৭৫ এম/এস ৭৯ এফ/১ ৬ অক্টোবর। ৩ টি রাইফেল জব্দ হয়। রাজাকারদের এস পি ইউনিটে হস্তান্তর করা হয়।
৬০ জি ০৭৩০

১৪-১০-৭১

১৬-১০-৭১ বাকশাতে এস কিউ ৮৭১৯ এম/এস ৭৯ বি/১৩ তে ১৩১৪০০ অক্টোবর অ্যামবুশ করে। শত্রুদের ৪ জন নিহত ও ২ জন আহত হয়।
৬১ জি ০৭৩১

১৫-১০-৭১

১৬-১০-৭১ এস পি ইউনিট রামক্রিশ্নপুরে এস কিউ ৮৪৩৮ এম/এস ৭৯১৮ /১৩ ১৪২০০০ টায় শেলিং করে। শত্রুদের ৫ জন নিহত হয়।
৬২ ই ৫/৮৮/আর

১৫-১০-৭১

১৭-১০-৭১ গণবাহিনী ১১০১১৫ অক্টোবর সাতক্ষীরা পি আই পাম্প ও  মিটার বক্স ধ্বংস করে। একই রাতে আরেকটি দল ছয় ঘরিয়া রাস্তায় সাতক্ষীরা কলারোয়া এস কিউ ৯৩০৮ এম/এস ৭৬৯/১ মাইন পোতে। কলারোয়া যাবার সময় একটি যান মাইনে আক্রান্ত হয়। ১১০৩৫৫ অক্টোবর। শত্রুদের ৮ জন নিহত হয়। ১ জন মেজর সহ ৩ জন আহত হয়। আমাদের হতাহত নাই। শত্রুরা ৩ জন স্থানীয় লোক নিহত করে। ৪ টি ঘর জ্বালিয়ে দেয়। এটি ছিল রসুলপুরে এস কিউ ৯৩০৪ এম/এস ৭৯৬/২ ও কাসেম্পুর এস কিউ ৭৪০৫ এম/এস ১৯/এফ/২ । দাউদ আলি সরদারের বাড়ি আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। স্থান – গ্রাম – বাওখোলা এস কিউ ৮৩০ এম/এস ৭৯ বি/১৩০০ – তারিখ – ৩০ অক্টোবর। ৬ টি রাইফেল উদ্ধার ও ১ টি এস এল আর জব্দ করা হয়। 
৬৩ জি ০৭৩৫

১৮-১০-৭১

১৯-১০-৭১ ১৩ অক্টোবর কেশবপুর থানার ছাড়ির বাজারে গণবাহিনী অ্যামবুশ করে। প্রচুর গুলি বিনিময় চলে। শত্রুদের ৪০ জন রাজাকার নিহত হয়। আমাদের হতাহত নাই।
৬৪ জি ০৭৩৭

২০-১০-৭১

২০-১০-৭১ ২০ অক্টোবর ১ টি রাইফেল সহ ১ জন রাজাকার আত্ম সমর্পন করে।
৬৫ জি ০৭৪১

২১-১০-৭১

২২-১০-৭১ রামক্রিশ্নপুরে জি আর ৮৪৩২২৫ এম/এস ৭৯ বি/১৩ ২১৩৩০০ অক্টোবর আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। শত্রুদের ২ জন নিহত ও ৪ জন আহত হয়। শত্রুরা ২৩ টি জনসাধারণের বাড়ি জ্বালিয়ে  দেয়।
৬৬ জি ০৭৫৩

২৬-১০-৭১

২৭-১০-৭১ ২৫ পাউন্ডার দিয়ে ২৬১৩০০ অক্টোবর হালিম্পুর ক্যাম্পে আমাদের বাহিনীর উপর আক্রমণ হয়। আমাদের ১ জন সামান্য আহত হয়। স্থানীয় লোক ২ জন নিহত ও ৫ জন আহত হয়। আহতদের হাসপাতালে নেয়া হয়।
৬৭ জি ০৭৫২

২৬-১০-৭১

২৬-১০-৭১ অক্টোবর এ ৩ জন রাজাকার আমাদের বাহিনীর কাছে অস্ত্র ও এমও সহ আত্ম সমর্পন করে।
৬৮ জি ০৭৭৫

২৭-১০-৭১

২৭-১০-৭১ গণবাহিনীর ১ জনকে ২৬০৭০০ অক্টোবর শত্রুরা আটক করে।