2

নির্বাচনোপলক্ষে সম্ভাব্য বিশৃঙ্খলা প্রতিরোধের সরকারী ব্যবস্থা সম্পর্কে ঘোষণা

Posted

<2.47.255-256>

শিরোনামঃ নির্বাচনোপলক্ষ্যে সম্ভাব্য বিশৃঙ্খলা প্রতিরোধের সরকারী ব্যবস্থা সম্পর্কে ঘোষণা

সূত্রঃ সরকারী

তারিখঃ জানুয়ারী, ১৯৬৫

সরকার কিছুদিন যাবৎ লক্ষ্য করিয়া আসিতেছেন যে, কিছু সংখ্যক লোক আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন প্রাক্কালে দেশে ব্যপকভাবে শান্তি ভঙ্গকরার পরিকল্পনা করিতেছে। প্রদেশের বিভিন্ন স্থান হইতে বিশৃঙ্খলাজনিত দুর্ঘটনা, শান্তি ভঙ্গ ও ভীতি প্রদর্শনের সংবাদ পাওয়া যাইতেছে। সুতরাং দেশে যাহাতে মুক্ত ও শান্তিপূর্ণ আবহাওয়ায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হইতে পারে, সে জন্য সুস্থ ও স্বাভাবিক পরিবেশ রক্ষা করা একান্ত প্রয়োজন। নির্বাচক মণ্ডলীর সদস্যরা যাহাতে পূর্ণ স্বাধীনতার সহিত তাহাদের ভোট প্রদান করিতে পারেন, উহার নিশ্চয়তা বিধানে সরকার স্থিরসংকল্প। এই উদ্দেশ্যে সরকার উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করিয়াছেন। শান্তি ও শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য প্রত্যেক নির্বাচন কেন্দ্রে কড়া পুলিশ প্রহরা মোতায়েন কড়া হইতেছে। নির্বাচন কেন্দ্রের বাইরে যে কোন জরুরী অবস্থার মোকাবিলার জন্য ভ্রাম্যমাণ প্রহরার বন্দোবস্ত কড়া হইবে। নির্বাচন মণ্ডলীর সদস্যদের ভীতি প্রদর্শন, অন্যায়ভাবে কোথাও আটক না কোনরূপ বল প্রয়োগ করিলে কঠোর শাস্তি প্রদান কড়া হইবে। প্রদেশের নিরবিচ্ছিন্ন শান্তি বজায় রাখার উদ্দেশ্যে সশস্ত্র বাহিনীর প্রতি প্রশাসন বিভাগের সঙ্গে সহযোগিতা করার জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশ দান করা হইয়াছে।

প্রয়োজনবোধে বেসামরিক কর্তৃপক্ষ তলব করিলে শান্তি রক্ষার জন্য সামরিক বাহিনীও আগাইয়া আসিবে। নির্বাচন কেন্দ্রের ভিতরে ও বাইরে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার জন্য স্থানীয় কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনবোধে উপযুক্ত নিষেধাজ্ঞা জারি করিতে পারিবেন।

নির্বাচনমণ্ডলীর সদস্যদের নির্ভীক ও স্বাধীনভাবে ভোট প্রদানে বাধা দানের জন্য নির্বাচনের পূর্বে বা নির্বাচন চলাকালে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারী অথবা ভোট কেন্দ্র হইতে প্রত্যাবর্তনের সময় কোন সদস্যের প্রতি বল প্রয়োগ করিলে তাহাদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হইবে।

 

শিরোনামঃ প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফল

সূত্রঃ সরকারী

তারিখঃ ৮ই জানুয়ারী, ১৯৬৫

পরিশিষ্ট ৭

নির্বাচনী রিটার্ন,

১৯৬৫ রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক নির্বাচন কমিশনের নিকট দাখিলযোগ্য

প্রদেশ ক্রমিক

নম্বর

প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর নাম প্রদত্ত বৈধ ভোটের সংখ্যা অবৈধ ভোটের সংখ্যা প্রদত্ত বৈধ ও অবৈধ ভোটের মোট সংখ্যা প্রত্যেক প্রার্থীর লব্ধ ভোটের শতকরা হার
পূর্ব পাকিস্তান মোট ফিল্ড মার্শাল মুহম্মদ আইয়ুব খান ২১,০১২ ২৭৪ ৩৯,৮২৪ ৫৩.১২
জনাব কে এম কামাল ৯৩ ০.২৩
মিয়া বশীর আহমদ ১১ ০.২০
মিস ফাতিমা জিন্নাহ ১৮,৪৩৪ ৪৬.৬০
পূর্ব পাকিস্তান মোট ফিল্ড মার্শাল মুহম্মদ আইয়ুব খান ২৮,৯৩৯ ৫৩৬ ৩৯,৮৭৬ ৭৩.৫৬
জনাব কে এম কামাল ৯০ ০.২৩
মিয়া বশীর আহমদ ৫৪ ০.১৪
মিস ফাতিমা জিন্নাহ ১০,২৫৭ ২৬.০৭
পূর্ব পাকিস্তান মোট ফিল্ড মার্শাল মুহম্মদ আইয়ুব খান ৪৯,৯৫১ ৮১০ ৭৯,৭০০ ৬৩.৩১
জনাব কে এম কামাল ১৮৩ ০.২৩
মিয়া বশীর আহমদ ৬৫ ০.০৮
মিস ফাতিমা জিন্নাহ ২৮,৬৯১ ৩৬.৩৬

 

 

আমি, ১৯৬৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনী আইনের ৩৮(১) ধারা অনুসারে, এদ্বারা ঘোষণা করছি যে, ফিল্ড মার্শাল মুহম্মদ আইয়ুব খান সর্বোচ্চসংখ্যক ভোট লাভ করে পাকিস্তান ইসলামী প্রজাতন্ত্রের প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনের এই রিটার্ন এতদ্বারা নির্বাচনী কমিশনের নিকট পেশ করা হল।

স্থানঃ রাওয়ালপিন্ডি                                             স্বাক্ষরঃ জি মঈনুদ্দীন,

তারিখঃ ৮ই জানুয়ারি, ১৯৬৫ সাল।                                    রিটার্নিং অফিসার