অনুরাধা চৌধুরী

Posted on Posted in 4

লিও…ফ্রেন্ড রিকুয়েস্টে তার নামখানি দেখে ভ্যাবাচ্যাকা খাওয়ার দশা..পরে একজনকে জিজ্ঞেস করে দেখলাম, হ্যাঁ সেই মানুষটাই। জন্মদিনে ভাইয়াকে শুভেচ্ছা জানাই….তিনি আমার কাছে দুটি উপহার চান..প্রথমটি মুক্তিযুদ্ধের দলিলপত্র পেইজের লিংক ফেসবুকে শেয়ার দিতে বলেন….দ্বিতীয় উপহার চেয়েছিলেন মুক্তিযুদ্ধের দলিলপত্রের অনুবাদে সাহায্য করার জন্য….মনে মনে নিজের যোগ্যতা নিয়ে কিঞ্চিত শংকা থাকলেও রাজী হয়ে যাই…এই কাজ এ অংশ নিতে পারলে মনের শান্তি হয় বটে….আমাকে যোগ করে দিলেন সজীবদার দলে….অনুবাদ তো এতটা সহজ নয়…সময় মিলিয়ে ঠাণ্ডা মাথায় বসার সময়টা করে নিয়ে অনুবাদটা সঠিকভাবে করা হয় না….এই লিখি তো এই কাগজ ছুঁড়ে ফেলি….এদিকে সজীবদা তাড়া দিতে থাকেন..কিন্তু কিছু ঝামেলার কারণে শেষ মুহূর্তে এসে জমা দেই….ভুল শুদ্ধ দেখার ভার দাদার… এই প্রোজেক্টে কাজ করার সুবাদে জানতে পেরেছি অনেক কিছু..মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে পড়েছি বেশ কিছু বই…আগ্রহ জমেছে…আরো জানার….অনুবাদের সুবাদে জেনেছি না জানা তথ্য….জনগণের কাছে মুক্তিযুদ্ধের সমস্ত ইতিহাস পৌঁছে দিতে পারলে এই প্রোজেক্ট সার্থক…আমাদের দেশ আমাদের মা আমাদের বাংলাদেশের জন্ম সম্পর্কে জানুক প্রজন্ম….ভুল তথ্যের ভিড়ে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানুক সকলে…এই প্রজেক্টে আরো সময় দিতে চাই…নিজের দেশের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে…আর কিছুর জন্য নয়।