অভিজিৎ সরকার

Posted on Posted in 6

এই উদ্যোগের কথা আমি প্রথম জানি, যখন যুদ্ধদলিলের নবম খণ্ডের ওয়ার্ড ডকুমেন্টের রাফ ভার্শন প্রকাশ করা নিয়ে একটা পোস্ট শেয়ার হয় আমার এক ফেসবুক বন্ধুর প্রোফাইল থেকে। আমি নিজেও কোন একটা প্রজেক্ট খুঁজছিলাম যেখানে আমি আমার বঙ্গানুবাদে দক্ষতা বাড়ানোর কাজ করতে পারবো। এ স্বেচ্ছাসেবামূলক কার্যক্রমে যোগ দিলে ডকুমেন্টগুলো নিয়ে কাজ করতে করতে, অনুবাদ করতে করতে মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে অনেক কিছু প্রথমবারের মত জানার সুযোগ হবে, এ আশায়ই মূলত জড়িয়ে পড়া। নানা ব্যস্ততার মধ্যেও কিছুটা সময় মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানতে ও জানাতে ব্যয় করতে পারছি, এটাই আমার সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি। এ অনুবাদগুলো ছড়িয়ে যাক, বাংলা ভাষায়ই মানুষজন জানতে থাকুক বাংলাদেশের জন্মের পেছনের ইতিহাস এবং এরকম আরো অনেক অনেক উদ্যোগ আসুক আমাদের তরুণ সমাজের পক্ষ থেকে।