নাজমুল হাসান পিয়াস

Posted on Posted in 2

একটি জাতিকে নিশ্চিহ্ন করে দিতে হলে তার ইতিহাস আর সংস্কৃতি বিকৃত করে দিতে হয়। সেই ১৯৪৮ সাল থেকে শুরু, আমাদের বাঙালি সত্ত্বা তথা বাংলাদেশের অস্তিত্ব বিলীন করার জন্য হায়েনারা সদা তৎপর। আমাদের রয়েছে গৌরবজ্বল ইতিহাস, আমরা মায়ের মুখের ভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছি। ১৯৭১ সালে দেশের জন্য বীর মুক্তিযোদ্ধারা নিঃস্বার্থভাবে জীবন বাজী রেখে যুদ্ধ করেছেন, প্রাণ দিয়েছেন, পঙ্গু হয়েছেন, মা বোনেরা দেশের জন্য নিজের সম্মান ত্যাগ করেছেন, নির্যাতিত হয়েছেন, রাজাকারেরা বাদে আপামর মানুষ জাতি ধর্ম নির্বিশেষে একসাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সব ঝড় মোকাবেলা করেছেন। এরকম হাজারো হীরকস্তম্ভ দিয়ে গড়া আমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, যা কালি আর কাগজে লিপিবদ্ধ করেও শেষ করা যাবে না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখতে শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত সচেতন থাকবো, অন্তরে প্রতি মুহূর্তে লালন করবো।

তাজকিয়া আপুর হাত ধরে এই প্রকল্পে আসা, এখন পর্যন্ত আমার কাজ অতি নগণ্য, কিন্তু ভবিষ্যতে সময় নিয়ে যত্ন দিয়ে এই অভাবটা পূরণ করার চেষ্টা করবো। আর এই প্রকল্পে নিরলস কাজ করে যাওয়া প্রতিটি সেনানিকে অন্তরের গভীর থেকে শ্রদ্ধা জানাই। রাজাকার মুক্ত, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা অন্তরে লালন করা সমাজের স্বপ্ন দেখি নিরন্তর।