নাবিলা তারিন

Posted on Posted in 7

স্বাধীনতা যুদ্ধ আমার কাছে সবসময়ই স্পর্শকাতর বিষয়। আমার আম্মা প্রায়ই যুদ্ধের সময়কার গল্প বলেন। সেই সময়টা হয়ত এখন নেই, কিন্তু অনুভুতি গুলো মনে হয় কখনও বদলায় না। স্বাধীনতা শব্দের সাথে জড়িত প্রতিটা বিষয় একজন বাঙালিকে শিহরিত করার জন্য যথেষ্ট। এই বিষয়টা নিয়ে কাজকরবার সৌভাগ্য হবে কখনও ভাবিনি। আমার এক ছোট ভাই এর মাধ্যমে পরিচয় হয় সজীব বর্মনের সাথে। ছেলেটা নাকি স্বাধীনতার দলিল বাংলায় রূপান্তরের কাজ করে। তেমন একটা কথাবার্তা আমার তার সাথে হয় নি, কিন্তু খুব সহজ ভাবে সে আমাকে বুঝিয়ে দিল যে কাজটা আসলে কিভাবে করতে হবে এবং ধীরে ধীরে জানতে পারলাম সজীব বর্মনের সাথে আরও বেশ কিছু মানুষ নিজ দায়িত্বে এই গুরু ভার হাতে নিয়েছে যেখানে তাদের পরিচালনায় আরও ছেলেমেয়েরা এই কাজে অংশনিচ্ছে। এত বড় একটি দ্বায়িত্ব পালনকরা সহজ বিষয় নয়, যেখানে একটি দেশের ইতিহাস, সম্মান ও মর্যাদার বিষয় জড়িত। অনেক শুভকামনা রইল তাদেরজন্য। কেবল শব্দ ও বাক্যে আটকে না থেকে কিছুমানুষ যে সত্যিই কিছু করে দেখায়, এই মানুষ গুলো তার দৃষ্টান্ত দেখিয়েছে। কেবল অনুবাদে সীমাবদ্ধ না থেকে নতুন প্রজন্মের মাঝে জানার তাগিদ তৈরিতেও তারা সহায়তা করবে এই কামনা করি।