পল্লব দাস

Posted on Posted in 2

আমার মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক সকল জ্ঞান বা তথ্য-ভিত্তিক ধারণা পাঠ্যপুস্তকের বাইরে সম্পূর্ণ অনলাইন নির্ভর।লিও ভাইয়ের পোস্টের মাধ্যমে জানতে পারলাম, মুক্তিযুদ্ধের দলিলপত্র নিয়ে কাজ শুরু হবে। যখন বিস্তারিত জানলাম, তখন মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে আবেগের বাইরে যে জিনিসটা কাজ করেছে, সেটা হল ফ্যাক্ট, কিসের জন্য তরুণ-যুবক থেকে শুরু করে মধ্যবয়সী, বৃদ্ধ সবাই নিজের জীবন বাজি রেখেছিলেন? তাঁরা কি চিন্তা করেন নি, তাঁদের প্রতিপক্ষ আধুনিক অস্ত্র-শস্ত্রে সুসজ্জিত একটি দেশের সেনাবাহিনী? তাঁরা নিজের জীবনের পরোয়া না করেই ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য ঠিককোন কারণে যুদ্ধে গিয়েছিলেন? তৎকালীন সরকারগুলোর অত্যাচার কি এই পর্যায়ের ছিল যে, সাধারণ মানুষ মনে করেছিল- যুদ্ধ করে, প্রয়োজনে নিজের জীবন উৎসর্গ করা বেঁচে থাকাই সবচেয়ে ভালো?“বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ দলিলপত্র” ওই সময়ের চিত্র তুলে এনেছে তৎকালীন প্রিন্ট মিডিয়ায় প্রকাশিত খবর, এবং অন্যান্য তথ্য উপাত্তের মাধ্যমে যা মুক্তিযুদ্ধের পটভূমি ও ইতিহাস জানার সবচেয়ে ভালো উপায়।এই প্রজেক্টের সাথে যুক্ত সকলকে আমি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাই।