বৈশালী রহমান

Posted on Posted in 7

আমি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। দাদা মুক্তিযোদ্ধা হওয়ার সুবাদে পারিবারিক শিক্ষার কারণে মুক্তিযুদ্ধকে ছোটবেলা থেকেই হৃদয়ে ধারণ করেছিলাম। তবে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ছোটবেলা থেকেই দেখেছি ইতিহাস বিকৃতি। পাঠ্যবইয়ের পাতায় পাতায় সেই বিকৃত ইতিহাস, সহপাঠীদের অনেককে সেই ইতিহাস বিশ্বাস করতে দেখাএবং সেই সাথে পরিবারের কাছ থেকে সঠিক ইতিহাস শোনার প্রচেষ্টা-এসব নিয়ে অল্প বয়সে একটা সময় বেশ কনফিউজড অবস্থায় ছিলাম। সেই সময় এক আত্মীয়ের বদান্যতায় জানতে পারি বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধঃ দলিলপত্রের কথা। টিউশনির টাকা জমিয়ে এবং বাবা মায়ের কাছ থেকে টাকা নিয়ে প্রচুর দাম দিয়ে বইগুলো কিনি। জানতে চেষ্টা করি সঠিক ইতিহাস। এরপর থেকে শুরু করি অনলাইনে অফলাইনে বিভিন্ন জনের সাথে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস নিয়ে তর্ক বিতর্ক। এদেশে প্রতি পদে পদে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছে। তাই নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধঃ দলিলপত্রের আসলে কোনো বিকল্প নাই। কিন্তু এটি যোগাড় করা অনেক কষ্টসাধ্য। হার্ডকপি কিনতে হলে প্রচুর টাকা দরকার। লিও ভাইয়ার সাথে পরিচয় হওয়ার পর জানতে পারলাম এই দলিলপত্রের ইউনিকোড ভার্সন করে সেগুলো অনলাইনে উন্মুক্ত করার কথা, যাতে করে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস সহজেই সবার কাছে পৌঁছানো যায় এবং কারো কোন তথ্য প্রয়োজন হলেই সহজে খুঁজে বের করা যায়। শুনে মুগ্ধ হলাম, অনুপ্রাণিত হলাম। পরবর্তী সময়ে চমৎকৃত করে দিয়ে লিও একদিন অনুবাদক হিসেবে তাঁদের সাথে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দিলেন। সানন্দে রাজি হলাম এবং সপ্তম খণ্ডের কিছু অংশের অনুবাদের কাজ শুরু করলাম। আমাকে এই সম্মানজনক কাজে অন্তর্ভূক্ত করার জন্য লিওকে যতোই ধন্যবাদ দিই না কেন, তা কম হয়ে যায়। এই প্রকল্পের সকল উদ্যোক্তা এবং প্রকল্প সংশ্লিষ্ট সকলকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা। আমি সেই দিনের স্বপ্ন দেখি, যেদিন আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম খুব সহজেই মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে পারবে এবং ইতিহাস বিকৃতির কারণে বিভ্রান্ত হবে না। এটা সম্ভব হবে শুধু এই প্রকল্পের কারণে। আমি নিশ্চিত, একসময় এই প্রকল্পের উদ্যোক্তাদের এদেশের মানুষ শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে।মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে উজ্জ্বল হয়ে উঠুক দেশবাসীর অন্তর।