মুক্ত বিহঙ্গ

Posted on Posted in 7

ছোটবেলায় যখন বড়দের মুখে মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে শুনতাম, তখন এক অজানা শিহরণে শিহরিত হতাম।অবাক হতাম তাদের কষ্ট লাঞ্ছনার কথা শুনে। দিন মাস বছর ঘুরে এখন আর ঐ সব দিনের মত বড়দের মুখে মুক্তিযুদ্ধের গল্প শোনা হয় না।মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কাজ করার আগ্রহ ছিল সবসময়। কিন্তু ঐ ধরণের কোন প্ল্যাটফর্ম ছিল না বা থাকলেও সেটা অজানা ছিল।একদিন লিও ভাইয়ার একটা পোস্ট দেখলাম, দলিলপত্রকে ইউনিকোডে সবার হাতে পৌঁছে দেয়ার একটা উদ্যোগ নিচ্ছেন। নিজেকে জড়িয়ে নিতে চেয়েও বেশ কিছু কারণে হচ্ছিলো না। এর মাঝেই একদিন ফারজানা আপুকে মেসেজ দিয়ে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করি। এভাবেই যুদ্ধদলিল প্রকল্পে কাজ করার সুযোগ পাই। আমি আনন্দিত, গর্বিত। মুক্তিযোদ্ধারা বড় বড় অপারেশনে নিজেদের সঁপে দিচ্ছেন, জীবনের মায়া ত্যাগ করে যুদ্ধ করেছেনদেশকে স্বাধীন করার নিমিত্তে। কতবার যে ঐ সব মুক্তিযোদ্ধাদের জায়গায় নিজেকে কল্পনা করেছি! অনেক ক্ষেত্রে মনে হতো, এই বুঝি মুক্তিযোদ্ধারা হানাদার বাহিনীর পাতা ফাঁদে পা দিল, এই বুঝি পেছন থেকে অতর্কিত আক্রমণের শিকার হলো আমাদের মুক্তিযোদ্ধারা! মনে মনে ভাবতাম, তাদের যদি কিছু হয়ে যায়, দেশ স্বাধীন করবে কে! হাজারো রকমের চিন্তা-কল্পনার ভিতর দিয়ে কম্পাইলেশনের কাজ করেছি।মুক্তিযোদ্ধারা নিজেদের জীবন বাজী রেখে যুদ্ধ করেছিলেন; আমরা তো তাদের সম্মানটাও ধরে রাখতে পারছি না! অন্তত মানুষের কাছে না হয় পৌঁছে দিলাম তাদের কথা; এটাওবা কম কিসে?