শাহরিয়ার ফারুক

Posted on Posted in 8

মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে যখন থেকে বুঝতে শিখেছি, তখন থেকেই মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানার আগ্রহ প্রবলভাবে কাজ করত। আর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি প্রচন্ড ভালোবাসা অনুভব করতাম। লিও একদিন বললো, উনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধঃ দলিলপত্র থেকে বলছি নামক একটা প্রোজেক্ট হাতে নিয়েছেন, কাজ করতে আগ্রহী কিনা? মুক্তিযুদ্ধকে জানার এই সু্যোগ হাতছাড়া করি নি। এভাবেই এই প্রোজেক্টের সাথে আমার পথচলা শুরু। এই প্রোজেক্টে কাজ গিয়ে অনেক অজানাকে জানতে পারছি। কিভাবে মুক্তিযোদ্ধারা ঝাঁপিয়ে পড়েছিল এই দেশকে শত্রুমুক্ত করতে, কিভাবে দেশের সব শ্রেণি, পেশার মানুষ কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে অস্ত্র ধরেছিল হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে, যারা অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করতে পারেন নি, তাঁরা কিভাবে দেশের জন্য বিশ্বজনমত গঠনে ভূমিকা রেখেছিল। এছাড়া পাকিস্থানিদের নির্মম নির্যাতনের কথা ছাড়াও এবং প্রতিনিয়ত অনেক অজানাকে জানতে পারছি। কখনো শিহরিত হচ্ছি, কখনো পড়তে পড়তে নিজের অজান্তেই চোখের কোণায় পানি জমছে, কখনো গর্বে বুক ফুলে উঠছে। ইতিমধ্যে এই প্রজেক্টের আওতায় ফেইসবুকে একটা পেইজ ওপেন করা হয়েছে, তরুণ প্রজন্মের প্রচুর সাড়া মিলেছে, পেজ ওপেন হওয়ার একমাসের মধ্যে প্রায় লক্ষাধিক লাইক পড়েছে। এরই মধ্যে দেশের একটি প্রথম সারির দৈনিকে এবং একটি অনলাইন নিউজপেপারে এই পেজ নিয়ে প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে। সম্প্রতি আমাদের প্রজেক্টের কয়েকজন একটি এফএম রেডিও-র লাইভ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে এই প্রজেক্ট সম্পর্কে জানিয়েছেন। এই প্রজেক্ট নিয়ে অনেক স্বপ্ন, আমরা যারা এই প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করছি, একদিন সবার টুকরা, টুকরা স্বপ্নগুলো যখন এক হবে, তা বিরাট মহীরুপের আকার ধারন করবে। এভাবেই মুক্তিযুদ্ধের মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস বয়ে যাক প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে।