3

হৈমন্তি হিমি

“বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধঃ দলিলপত্র থেকে বলছি” পেজের পোস্টগুলো প্রথম দিক থেকে না হলেও বেশ কয়েক মাস ধরেই পড়ছি। আমার পড়তে, জানতে অনেক ভালো লাগে। এই পেজের লেখা পড়ছি আর শেয়ার করছি,পড়ছি আর শেয়ার করছি। পড়তে পড়তে মনে হয় সেই ‘৭১ এ ফিরে যাচ্ছি। তাঁদের পাশে আবছা ছায়ার মতো দাঁড়িয়ে আছি। এটা এক অন্যরকম অভিজ্ঞতা।

 

হঠাৎ একদিন লিও ভাইয়া বললেন ” অনুবাদে হেল্প করবা? ” মেসেজটা দেখে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। অনেকক্ষণ ঘুরেফিরে দেখলাম মেসেজটা সত্যি কিনা ? যদিও অনুবাদ করাটা খুব কঠিন একটা বিষয়, অন্তত আমার জন্য। তবুও সাহস করে ফেললাম। ধন্যবাদ ভাইকে ? আপনাদের মতো এত বড় উদ্যোগ এর আগে আর কেউ নেয় নি।আপনাদের জন্য অভিনন্দন আর শুভকামনা রইলো। আর আপনাদের এ কাজের ছোট্ট একটা অংশ হতে পেরে খুব ভালো লাগছে। যদিও তেমন কিছুই করতে পারি নি বলে আমার মনে হয়,তবু চেষ্টা করেছি। আমার অনেক স্টুডেন্ট আছে যারা এই যুদ্ধের ঘটনা পড়ছে, জানছে ‘৭১ এর ইতিহাস। মুক্তিযোদ্ধাদের সংগ্রাম, সাহসের পরিচয় ভবিষ্যত প্রজন্ম যদি পায়, আর ধীরে ধীরে তাদের মননে যদি পরিবর্তন আসে, মাতৃভূমির প্রতি ভালোবাসা জন্মে তবে আমার বিশ্বাস আজ থেকে বিশ/ ত্রিশ বছর পর দেশে আর হিংসা, বিদ্বেষ, হানাহানি, মারামারি, জ্বালাও-পোড়াও, নারীদের প্রতি হওয়া সকল অন্যায় থাকবে না।

 

কুসুম আপুকে ধন্যবাদ। আপু অনেক ভালো। একটুও ঝাড়ি দেয় নি । আপুর সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্য লিও ভাইকে ধন্যবাদ ?