4

বাংলাদেশ এখন সহস্র মাইলাই-এর অবস্থায়: স্বাধীনতা সংগ্রামকে সমর্থনের আবেদন

<৪,৩০,৫২>

অনুবাদকঃ উম্মে তৈয়বা নিশাত

শিরোনামসূত্রতারিখ
৩০। বাংলাদেশ এখন সহস্র মাইলাই-এর অবস্থায়: স্বাধীনতা সংগ্রামকে সমর্থনের আবেদনলন্ডন এ্যাকশন কমিটির প্রচারপত্রএপ্রিল, ১৯৭১

 

বাংলাদেশ – সহস্র মাই-লাই এর দেশ

দক্ষিণ  ভিয়েতনামের এক মাই-লাই সারা বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছিল।

“কিন্তু বাংলাদেশে প্রতিদিনই মাই-লাই ঘটছে”, রয়টার পত্রিকায় একজন ব্রিটিশ এমপির পর্যবেক্ষণ।

নারী-পুরুষদেরকে সারিবদ্ধভাবে দাঁড় করিয়ে তাদের  মেশিন গান চালানো হচ্ছে। ছোট শিশুদেরকেও বেয়োনেট দিয়ে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে মেরে ফেলা হচ্ছে, যাতে অনাথ শিশুগুলো পাকিস্তান বিদ্বেষ নিয়ে বেড়ে না উঠতে পারে। দিনের পর দিন শহর আর গ্রামগুলোকে ধূলোয় মিশিয়ে দেয়া হচ্ছে।

বন্ধুরা, আমরা কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করি আপনারা যেভাবে সাইক্লোন আক্রান্ত বাংলাদেশিদের জন্য বিশ্ববাসীর কাছ থেকে সাহায্য  সংগ্রহ করেছেন, যখন বাংলাদেশের অর্জিত বৈদেশিক আয়ে সমৃদ্ধ পাকিস্তান সরকার ছিল সহানুভূতিহীন ও দ্বিধাপূর্ণ।

আপনারা কি আরেকটিবার প্রমাণ করে দিতে পারেন না যে হাজারো প্রাণের ক্ষয় আর লাখো মানুষের দুর্দশায় আপনারা চুপ করে থাকতে পারেন না?

যত বড় শক্তিই হোক না কেন, তা বিশ্বের অষ্টম বৃহত্তম জাতিকে চিরদিন দমিয়ে রাখতে পারবেনা।

কিন্তু মানবতা, ন্যায়বিচার ও গণতন্ত্রের  জন্য আপনাদের ভালবাসা রুখে দিতে পারে এই বর্তমান ভয়ংকর হত্যাকাণ্ড  এবং মানুষের অসহনীয় দূর্ভোগ। তাই নতুন এই পাকিস্তানি হিটলারের বিরুদ্ধে গর্জে উঠুন আপনাদের প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর নিয়ে। 

অত্যাচারী ও বর্ণবাদী পাকিস্তানকে অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক এবং সামরিকভাবে বর্জন করার জন্য আপনাদের সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করুন।

জানতে  চান বিদেশি সাংবাদিকদের এবং এমনকি রেডক্রসের দলগুলোকে কেন বাংলাদেশে প্রবেশের অনুমতি  দেওয়া হবেনা।

আপনাদের সরকারকে বাংলাদেশকে স্বীকৃতি প্রদানের আহ্বান জানান।