7

ভারতীয় বিমানের আকাশ সীমা লঙ্ঘন ও চৌগাছার বিমান যুদ্ধ সম্পর্কে সরকারী মুখপাত্র

৭.১১২.২৩৭

শিরোনামঃ ১১২। ভারতীয় বিমানের আকাশ সীমা লংঘন ও চৈগাছার বিমান যুদ্ধ সম্পর্কে সরকারী মুখপাত্র

সূত্রঃ দৈনিক পাকিস্তান

তারিখঃ ২ডিসেম্বর, ১৯৭১

.

ভারতীয় বিমানের আকাশ সীমা লংঘন ও চৌগাছার বিমান যুদ্ধ সম্পর্কে সরকারী মুখপাত্র

 

রাওয়ালপিন্ডি, ১লা ডিসেম্বর (এপিপি)।- গতপ মংগলবার ভারতীয় বিমান বাহিনো কতৃক পাকিস্তানের আকাশ সীমা লংঘন সম্পর্কে জনৈক সরকারী মুখপাত্র আজ নিম্নোক্ত বিবৃতি দিয়েছেন।

 

গতকাল বেলা সাড়ে ১১টা হইতে ১২-২ মিনিটের মধ্যে ৪টি ভারতীয় জংগী বিমান ও একটি আলোকচিত্র গ্রহণকারী বিমান শিয়ালকোর্ট এলাকায় পাকিস্তানের আকাশসীমা লংঘন করে। তাহাদের গতিরোধের জন্য পাকিস্তান বিমান বাহিনীর ফাইটার ইন্টার সেক্টর বিমান দেখামাত্র বিমানগুলো দ্রুত নিজেদের আকাশ সীমায় সরিয়া পড়ে।

 

চৌগাছায় ‘স্যাবর’ বিমান ধ্বংস প্রসংগ প্রত্যক্ষদর্শীর বিবরনের ভিত্তিতে এক্ষনে একথা উল্ল্যেখ করা যায় যে, আক্রমনকারী ভারতীয় ন্যাট জংগী বিমানের গুলীতে ভূপাতিত হইয়া নয় বরং শত্রুর গ্রাউন্ড ফায়ারেই পাকিস্তান বাহিনীর ২টি স্যাবর গত ২২শে নভেম্বর চৌগাছায় ধ্বংস হয়।

 

এই ঘটনা সম্পর্কে ভারতীয় পত্রিকার পরস্পরবিরোধী খবরেও ইহার সত্যতা সমর্থিত হইয়াছে। গত ২৩শে নভেম্বর ভারতীয় পত্রিকাগুলো দাবী করে যে, পাকিস্তানী স্যাবর বিমানসমূহ তাড়াইয়া দেওয়া হইয়াছে এবং কোনটাই ভারতীয় ন্যাটের গুলিতে ভূপাতিত হয় নাই।

 

কিন্তু দুই দিন পর ভারতীয়রা যখন দেখিল দুই জন পাকিস্তানী পাইলট ভারতীয় বাহিনীর হাতে ধরা পড়িয়াছে, তখন ভারতের স্টেট মন্ত্রী দাবী করেন যে, ভারতীয় ন্যাট স্যবর গুলিকে গুলী করিয়া ভূপাতিত করিয়াছে।

 

কিন্তু প্রকৃত প্রস্তাবে, ঐ বিমান যুদ্ধের নীট ফল হইল: পাকিস্তান বিমান বাহিনীর স্যবর বিমান একটি ন্যাটকে (যথারিতী যাচাই করা হইয়াছে) গুলি করিয়া ভূপাতিত করে। পক্কান্তরে আমাদের স্যাবর বিমান সমূহের ২টি গ্রাউন্ড ফায়ারে ধ্বংস হয়।