11

যুদ্ধ পরিস্থিতি রিপোর্টঃ গোজাডাঙ্গা সাব সেক্টর

Posted
শিরনাম উৎস তারিখ
২৫। যুদ্ধ পরিস্থিতি রিপোর্ট গোজাডাঙ্গা সাব সেক্টর ৮ নং সেক্টরের দলিলপত্র ১৯৭১

 

ট্রান্সলেটেড বাইঃ Razibul Bari Palash

<১১, ২৫, ৩৯৪-৪০৭>

 

 

ক্রমিক নং

 

সূত্র নম্বর ও তারিখ

 

তথ্য অন্তর্ভুক্তির তারিখ ঘটনা
১       জি ০০২৪

২২ জে ০০০

২২-৬-৭১ গোজাডাঙ্গায় এ/ পি মাইনে ১ জন শত্রুসেনা আহত হয়। ০১১ ২১-৬-৭১

 

২      জি ০০২৮

২৩০৬৩০

২৩-৬-৭১ ২২১৭০০ টায় একজন শত্রুসৈন্য আমাদের স্নাইপারের গুলিতে বাইকারি জি আর ৭৯৫০৬৫ এম/এস ৭৯ বি/১৩ নিহত হয়। ২৩০০১০ টায় আমাদের বাহিনী বাইকারিতে আক্রমণ করে। এটা ৩ ঘণ্টা চলে। তাদের ৪ জন হতাহত হয়। ২২ জুন রাতে ভোমরাতে একজন সেন্ট্রিকে আমাদের ফিলটার পার্টি হত্যা করে। শত্রুরা এম এম জি ও এল এম জি দিয়ে আমাদের জবাব দেয়। হতাহত নিশ্চিত করা যায়নি।

 

জি ০০২৯

২১১৯০০

২৪-৬-৭১ ২৩ জুন বাইকারি স্কুলে জি আর ৭৯২০৮৭ এম/এস ৭৯ বি/১৩ একজন পাকসেনা হত্যা করা হয়। ২৩০৫০০ টায় বাইকারি এলাকায় আমাদের বাহিনী ৪ জন সৈন্য হত্যা করে।

 

জি ০০৩০

২৪০৭৫০

২৫-৬-৭১ ০১১ ভোমরা শত্রু অবস্থানে আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। শত্রুরা ভারী অস্ত্র দিয়ে আক্রমণ করে। ৩ ইঞ্চি মর্টার ইউজ করা হয়। তাদের অনেক আহত হয়। ২ টি ফিল্টার পার্টি বাইকারি স্কুলে ও বি ও পিতে আক্রমণ করে। হতাহতের পরিমাণ জানা যায়নি। ৪ টি এ টিকে মাইন পাতা হয়।

 

জি ০০৩৩

২৫০৭০০

২৫-৬-৭১ ২৪০৩৩০ টায় বাইছানাতে জি আর ৮৪৫৯৪৫ এম/এস ৭৯ বি/১৩ ৩ জন মুসলিম লিগের ও শান্তি কমিটির লোক এরেস্ট করা হয়।

 

জি ০০৩৫

২৬-০৬-৭১

২৬-৬-৭১ ২৫১২ টায় আমাদের বাহিনী শত্রুদের একটি বাহিনীকে বাইকারিতে জি আর ৭৯৩০৬৫ এম/এস ৭৯ বি/১৩ হত্যা করে। কলারোয়াতে শান্তি বাহিনীর প্রেসিডেন্টসহ কয়েকজনকে হত্যা করা হয়। কিছু টেলিফোনের তার কাটা হয়। দেবহাটাতে জি আর ৮৪৮৩৩৯ এম/এস ৭৯ বি/১৪ ২৩/২৪ তারিখ রাতে শান্তি বাহিনীর কয়েকজন সদস্যকে হত্যা করা হয়।

 

 

জি ০০৩৬

২৬২০০০

২৭-৬-৭১ ২৪ জুন বাইকারিতে এ টিকে মাইনে একটি গরুর গাড়ী আক্রান্ত হলে ১ জন সিভিলিয়ান নিহত হয়। পাকসেনারা রাস্তাটি পরিত্যাক্ত করে। ২৫/২৬ তারিখ রাতে এ টিকে মাইন পোতা হয়।

 

জি ০০৩৭

২৭০৭৩০

২৭-৬-৭১ বাইকারি ও সানকাঢ়া বি ও পিতে দুইটি ফইলার পার্টি পাঠান হয়।। ২৭০১০০ থেকে ২৭০৩০০ টার মধ্যে শত্রুরা এল এম জি ও রাইফেল দিয়ে জবাব দেয়। ২৬/২৭ তারিখ রাতে কিছু বাঁধার কারণে ঘোনা পৌঁছান সম্ভব হয়নি।

 

সি জে ০০৩৮

২৮০৮০০

২৮-৬-৭১ ১ টি ফইলার পার্টি ৪ টি মাইন পোতে। ২৭১৩০ টা ও ২৮০৩০০ টায় রকেট লাঞ্চার দিয়ে শত্রুদের বাঙ্কারে আঘাত করা হয়। হতাহতের হিসাব পরে জানানো হবে। সাংকারা বি ও পিতে আঘাত করা হয়। সিক্রিতে এস কিউ ৮০০৮ এম/এস ৭৯ বি / ১৩ ২ জন মিলিশিয়া ও রাজাকার হত্যা করা হয় ও তাদের বাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়।

 

১০ জি ০০৩৯

২৮১২০০

২৯-৬-৭১ সাঙ্ক্রিলা পারুলিয়াতে পোতা একটি এ টিকে মাইনের আঘাতে ৩ টি টোঙার ধ্বংস হয়। ১৫/১৬ জন মারা যায়। ২৮ জুলাই বিকেলে এটি ঘটে। সঠিক হিসাব পরে দেয়া হবে।

 

১১ জি ০০৪০

২৯১৩৩০

২৯-৬-৭১ ২৮ জুন বিহারি সিপাহিসহ ১ জন পাক ক্যাপ্টেন নিহত হয় জি আর ৮৩৫৮৮৫ এ। অফিসার যে জিপে আসছিলেন সেটিকে সম্পূর্ন ধ্বংস করা হয় ও বিলের ভেতর ফেলে দেয়া হয়।

 

১২ জি ০০৪১

২৯১৩৩০

৩০-৬-৭১ গাংনিতে সি ৩ আর ৮৫৩৯৭২ ৩ টি পাক ট্রুপ্স আক্রমণে অনেক হতাহত হয়। খালিল নগরে এস কিউ ৮১০৬ অ্যামবুশ ও মাইন পাতা হয়। এস কিউ ৮২০৮।

 

১৩ জি ০০৪২

২৯২১০০

৩০-৬-৭১ ৮০৫৯৪০ থেকে ০৩২০৫০ পর্যন্ত ইস্টার্ন ব্যাংক ইছামারিতে বাঁধা দেয়া হয়।

 

১৪ জি ০০৫০

০৪১০০০

৫-৭-৭১ যশোর সাতক্ষিরার টেলিফোন লাইনকেটে দেয়া হয় ৩ টি পয়েন্টে। বাইকারিতে একজন দালাল হত্যা করা হয় ৩-৭-৭১ তারিখ। কাথান্দার জি আর ৮২৫০৬২ এম/এস ৭৯ এ/১৩ পিছনে রাস্তা নির্মানের ইট ভর্তি গরুর গাড়ীতে এ টি মাইন আঘাতে ৩ জিন সিভিলিয়ান নিহত হয়। কিছু সিভিলিয়ান ও নিহত হয় সানকাঢ়া পারুলিয়া রাস্তায়।

 

১৫ জি ০০৫১

০৫০৬৩০

৫-৭-৭১ ২ ০ ৩ জুলাই বাইকারিতে ৩ টি শত্রু ট্রুপ্স মারাত্মক আহত হয়।

 

১৬ জি ০০৫৮

০৫১০০০

৫-৭-৭১ ঘনাতে জি আর ৮৪২০৬৩ এম/এস ৭৯ বি/১৩ পোস্ট অফিল ও উপজেলা অফিস ধ্বংস করা হয়-প্রচুর ডকুমেন্ট নষ্ট করা হয়। মহাম্মাদপুর বাইকারিতে টেলিফোন লাইন কাটা হয়। ২ জন শান্তি বাহিনীর ডালা আটক হয়। এম ইউ সি আব্দুর রহমান নামে একজন ঘনাতে আটক হয়।

 

১৭ সি ০০৫৩

০৬১০০০

৬-৭-৭১ ০৬০১৩০ টায় সাতক্ষিরা বি ও পিতে আক্রমণ করা হয়। ০৬০৪৩০ পর্যন্ত আক্রমণ চলে। শত্রুরা ২ টি এম জি ও ছোট অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। তাদের আক্রমণ নিখুঁত ছিল। আরেকটি অবস্থানে বাইকারি বি ও পিতে ০৬২০০ থেকে ০৬০৪০০ এর মধ্যে আঘাত করা হয়। হতাহত যানা যায়নি।

 

১৮

 

জি ০০৫৪

০৬১০০০

৭-৭-৭১ সানকাঢ়া পোস্ট অফিস ও উপজেলা অফিসে আঘাত করা হয়। আরও কিছু পাকি দালালদের বাড়িতে আক্রমণ করা হয়। ০৬১০০০ টায় সাধারণ জনগণ আমাদের বাহিনীকে অনেক ভাবে সাহায্য করে। ৫ জুলাই ১৫০০ টায় সাতক্ষিরা রাস্তায় একটি এ টিকে মাইন বিস্ফোরণ হয়। অস্ত্র বাহী একটি ডজ ধ্বংস হয়।

 

১৯ জি ০৫৭

০৯০৯০০

৯-৭-৭১ ভোমরা বি ও পিতে আমাদের ২ প্লাটুন ৫০ গজ দূর থেকে আঘাত করে। আমরা ৩ ইঞ্চি মর্টার ইউজ করি। তারা ৮১ মি মি ও ২৫ এস টি আর ইউজ করে। ০৯০২০০ থেকে ০৯০৫৩০ পর্যন্ত চলে। গিজাডাঙ্গা ও পিতে ৩ জন বি এস এফ সৈন্য আহত হয়। একজন মাথায় মারাত্মক আঘাত পায়। বাংলাদেশ সরকার ৭৫ রাউন্ড ৩ ইঞ্চি মর্টার ১০০ রাউন্ড ৮১ মি মি আর্টিলারি-এইসব অস্ত্রের মুখে তাদের সাহসী কাজের প্রশংসা করেন।

 

২০ জি ০০৫৬

০৯০৫০০

৯-৭-৭১ ০৮১০০০ টায় ২ জন পাকসেনা নিহত হয়। এ পি মাইনে ১২ জন পাকসেনা বহনকারী ২ টি জিপ উড়িয়ে দেয়া হয়। এটা ০৭১০৩০ এ ভোমরা সাতক্ষিরা রাস্তায় করা হয়। স্থানীয় সাধারণ জনগণের চাক্ষুষ প্রমাণে তা জানা যায়। ০৭০৭০০ থেকে ০৭০৫ পর্যন্ত গুলি চলে।

 

২১ জি ০০৫৯

১০৭৭৩০

১০-৭-৭১ বিলওমরা ১০১৩৩০ পুনস্থাপিত হয়। গুলি পাল্টা গুলি চলে। শত্রুদের টেলিফোন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। ৭/৮ এর গুলিতে ২ জন নিহত হয়। একজন ভারতীয় বি এস এফ আহত হন।

 

২২ জি ০০৬০

১১১৭০৫

১২-৭-৭১ ১১ জুলাই গজাডাঙ্গায় গুলিবিনিময় চলে। ০৬০০ থেকে শুরু হত। নানা অস্ত্র ইউজ হয়। আমাদের রকেট লাঞ্চার তাদের ট্রেঞ্চ, বাঙ্কার ও ঘরে আক্রমণ করে। ৩ ইঞ্চি মর্টার দিয়ে বাইকারি বি ও পিতে ০১০০ থেকে ০৩০০ পর্যন্ত আঘাত করা হয়। শত্রুদের প্রচুর ক্ষতি হয়। গতকাল ১৩০০ টায় শেল নিক্ষেপে ১৫ জন হতাহত হয়।

 

২৩ জি ০০৬৩

১৩২৩০০

১৪-৭-৭১ ১৩০৯৪৫ টায় ভোমরাতে গুলি শুরু হয়। আমাদের বাহিনী ভোমরা ক্রস করে। ২৫ থেকে ৫০ গজের ভিতর থেকে আঘাত করা হয়। তাদের ১ জন নিহত ৯ জন আহত হয়। ১ টি এল এম জি ধ্বংস হয়। ১৪৩০ পর্যন্ত এটা চলে। ক্ষতি আরও বেশী হবে। ১ জন নিহত হয়। ৭ টি বাঙ্কার ধ্বংস হয়। হাকিম্পির কয় থেকে আমরা আরও বাহিনী নিয়ে আসি। ৩ ইঞ্চি মর্টার দিয়ে আক্রমণ চলতে থাকে।

 

২৪ জি ০০৬২

১২১৮০০

১৪-৭-৭১ ভহম্রাতে ১২০৬৩০ টায় ৩ জন পাকসেনা নিহত হয়। ১২১৩৩০ টায় আমাদের বাহিনীরকেট দিয়ে আঘাত করে। দিনব্যাপী চলে।

 

২৫ জি ০০৬৫

১৪১৯৩০

১৫-৭-৭১ ভহম্রা বাঁধে দুই পক্ষে তুমুল যুদ্ধ হয়।
২৬ জি ০০৬৭

১৫০৭০০

১৬-৭-৭১ আমাদের একটি দল ৬ জুলাই সাতক্ষিরা পাঠানো হয়। তারা ১৪ জুলাই ফিরে আসে। তারা যাদের হত্যা করে তাদের নাম হল-সরপ সরদার, মকবুল সরদার, আক্কাস সরদার, শফিকুল ইসলাম থানা-তালা-সাতক্ষিরা। এরা সবাই দলাল। সফদাল গাজি তাদের নেতা ও শান্তি কমিটির সেক্রেটারি। এঝার সরদার, মুজাহার সরদার-খালিসা খালি থানা-সাতক্ষিরা। সাতখিল মিলিশিয়া নেতা ও এস এস সি / এম এস সি। এছাড়া তারা ঐ এলাকায় আরও অনেক আক্রমণ পরিচালনা করে।

 

২৭ জি ০০৬৬ ১৬-৭-৭১ কলারোয়ার মুরাইখালিতে আমাদের বাহিনী পোস্ট অফিস ও তার গুরুত্তপূর্ণ কাগজ ধ্বংস করে।

 

২৮ জি ০০৭৯

২৫০৯১৫

২৬-৭-৭১ ২৩ জুলাই কিছু ফ্রিডম ফাইটার যুবক সাতানই ও বসুধা এলাকায় পাঠানো হয়। ২৪-৭-৭১ তারিখে সাতক্ষিরা, কুলিয়া, তালা ও মির্যাপুরে ৯ জন যুক্তি সেনা পাঠানো হয়। মধুপুর ভোমরাতে ১ টি সেকশন পাঠানো হয়। ঘনা ও বাইকারিতে ও সেকশন আছে।

 

২৯ জি ০০৮০

২৬১৮৩৫

২৭-৭-৭১ ২৩১০০০ টায় ভোমরা গাংনিতে অ্যামবুশে ১ টি শত্রু জিপ আক্রান্ত হয়। ১ জন জে সি ও নিহত হয়। বাকিরা আহত হয়। জানাজায় শরিক হওয়া এক স্থানীয় লোক এই তথ্য জানায়। এছাড়া ফরাস্পুরের ও শ্রীরামপুর-থানা শারশা-যশোর এর কুখ্যাত শান্তি কমিটির লোক নিহত হয়। ২৪০০৩০ টায় ১৪ জন শান্তি কমিটির লোক ও তাদেরসহযোগী আমাদের ঘিরে ফেলার চেষ্টা করে। ২৫২৩৫০ কাক ডাঙ্গা বি ও পিতে হ্যান্ড গ্রেনেড নিক্ষেপে ২ টি বাঙ্কার ও ৫ জন নিহত হয়। ভোমরা মধুপুরে আমাদের বাহিনী টেলিফোন তার নষ্ট করে। মধুপুর স্কুলে শত্রু অবস্থানে আক্রমণ করে। তারা ক্রমাগত গুলি চালায়। তাদের প্রায় ২০০০ রাউন্ড খরচ হয় আর আমাদের মাত্র ২০ রাউন্ড। হতাহত জানা যায়নি। ভোমরা বাইকারিতে ২৬-৭-৭১ আমাদের ২ টি দল ভোমরার পাশে ৬ বর্গ মাইল এলাকায় আধিপত্য বজায় রাখে।

 

৩০ জি ০০৮১

২৭১৫০০

২৭-৭-৭১ ভোমরাতে আমাদের বাহিনী আঘাত চালাতে থাকে। ১০ মিনিট গুলির পর শত্রুরা ৩ টি এম গই ও আরও ছোট অস্ত্র দিয়ে গুলি করে। ৫০ গজ থেকে আমরা আক্রমণ চালাই। নিশ্চিত না হলেও তাদের হতাহত প্রচুর হবার কথা। ২৬২১৫০ টায় ভোমরাতে ২ টি বাঙ্কার ধ্বংস করা হয়। বাইকারির এই অবস্থানটি আমাদের দল আয়ত্তে নেয়। কিছু হ্যান্ড গ্রেনেড, রকেট লাঞ্চার ও ছোট অস্ত্র জব্দ হয়। রকেট লাঞ্চার থেকে ৩ টি বোমা মিস ফায়ার হয়।।

 

৩১ জি ০০৮২

২৭১৫০০

২৭-৭-৭১ ভোমরার পেছনে গাংনিতে মুক্ত করে ৩ ইঞ্চি মর্টার রাখা হয়। প্যারেড করার সময় মহাম্মাদপুর মাদ্রাসায় আক্রমণ করা হয়। ২৫ /৩০ রাউন্ড ও ৩ ইঞ্চি মর্টার থেকে ৪৫ রাউন্ড গুলি করা হয়। তাদের অনেক হতাহত হয়। ২৭১২৩০ টায় কয়েক রাউন্ড গুলি করা হয়। ভোমরা মহাম্মাদপুর থেকে শত্রুরা পিছু হটতে থাকে।
৩২ জি ০০৮৩

২৮-৭-৭১

২৮-৭-৭১ ২৭ জুলায় মহাম্মাদপুর মাদ্রাসা ও গাংনিতে ২ ইঞ্চি মর্টার শেলিং এ ১৮ জন হতাহত হয়। যেসব সিভিলিয়ান লাশগুলো সরিয়েছে তারা জানায় যে লাশগুলো গাড়িতে করে মহাম্মাদপুর থেকে সাতক্ষিরা নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ২৫ জুলাই ভোমরা মহাম্মাদপুর রাস্তায় রেশন ও ২ জন সেনা বাহী গরুর গাড়ী মাইনে ধ্বংস হয়।

 

৩৩ জি ০০৮৮

২৯০৪৩০

২৯-৭-৭১ ভারতীয় এল এম জি এস এল আর এ এস পি পাঠানো হয়। শত্রুরা এম জি দিয়ে আঘাত করে। আরও কিছু মেশিনগান চাওয়া হয় ভারতীয়দের কাছে। চিন্দি রাইফেল ও আর্মার চাওয়া হয়। অতি দ্রুত ব্যাবস্থা নিতে বলা হয়। এছাড়া ৩০৩ এমও ও ি ইঞ্চি মর্টার বোমা চাওয়া হয়। এটা জরুরী।

 

৩৪ জি ০০৮৪

২৮০৯০০

২৯-৭-৭১ ২৭২০০০ টায় ভোমরা বি ও পিতে গতরাতে আক্রমন করা হয়। তারা ৮১ মি মি এম এম মর্টার শেল এম এম সি জে ও ছোট অস্ত্র ইউজ করে। সারা রাত গুলি চলে। ভোমরা বি ও পি এলাকায় আমাদের বাহিনী হ্যান্ড গ্রেনেড হিয়এ বাঙ্কারে আক্রমণ করে। ফলাফল জানা যায়নি।ন আমাদের একটি সেকশন তাদেরতেলফন যোগাযোগ ধ্বংস করে। কাঠান্ডা-ঘনা সংক ও গাজুপুরের বাইকারি ও সাতক্ষিরা রাস্তায়। ৭৯৪৭। হাবিলদার তাইবুর রাহমান ৬৩৮১ নায়েক আব্দুল অয়াহিদ, ১৩২৮২৭৭ ল্যান্স নায়েক মকাম্মেল হোক, ৮৬০৯ সেপ্টেম্বর আ সাত্তার ৩০ জুন খুলনা যশোর এর মাঝখানে রেল যোগাযোগ নষ্ট করে। তাদের রিপোর্ট এখনো পাওয়া যায়নি। সর্বশেষ তথ্য আসে ১৫-৭-৭১ তারিখ।

 

৩৫ জি ০০৮৬

২৯১১০০

২৯-৭-৭১ ২৯০৩০০ রাত পাকসেনাদের একটি কয় বাম দিক থেকে ভোমরাতে আমাদের আক্রমণ করে। তারা নারায়ে তাকবীর আর পাকিস্তান জিন্দাবাদ বলে চিকটার করতে করতে আমাদের উপর ঝাঁপিয়ে পরে। আমরা ১০০/২০০ গজের ভিতর থেকে তাদের আক্রমণ করি। ০৬৩০ পর্যন্ত চলে। সর্বত্র আমরা রক্ত পরে থাকতে দেখি। আমাদের বাহিনী প্রচুর চাইনিজ কার্টিজ পায়। ১ টি ২ ইঞ্চি মর্টার বোমা পায়। শত্রুদের ক্ষতি অনেক হবার কথা। আমরা ৩ ইঞ্চি মর্টার দিয়ে শেলিং করতে থাকি। নায়েক সুবেদার শামসুল হক ৩ ইঞ্চি শেলে আহত হয়। তাকে ব্যারাকপুরে পাঠানো হয়। আমাদের কমপক্ষে ২ প্লাটুন সৈন্য সাথে জে সি ও দরকার। এই ছেলেগুলোকে একটু সাহায্য করার জন্য।

 

৩৬ জি ০০৮৭

২৯১১০০

২৯-৭-৭১ ২৮১১৩০ টায় মহাম্মাদপুরে ৩ ইঞ্চি মর্টার দিয়ে শেলিং শুরু করে। রেশনবাহী একটি ট্রাক ধ্বংস করে। মধুপুরে ২৯০৩০ টায় আক্রমণ করে। সাতক্ষিরা মধুপুরে ২০০ গজ টেলিফোন তার নষ্ট করে। ২৮২০ টায় প্রচুর গলাগুলি হয়। আমাদের বাহিনী জয় বাঙলা বলে আক্রমণ করে। শত্রুরা ভয় পেয়ে সারা রাত প্রায় ১০০০ রাউন্ড গুলি করে।

 

৩৭ জি ০০৮৯

৩১০৩০

৩১-৭-৭১ ২৮/২৯ তারিখ রাতের আঘাতে প্রচুর ক্ষতি হয়। চাক্ষুষ দেখেছেন স্থানীয় লোকেরা-তারা বলেন ২ ট্রাক ভর্তি লাশ শত্রুরা নিয়ে গেছে।

ভোমরা ও বাইকারিতে জি আর ৮১৫০০২ এম/এস ৭৯ বি/১৩তে ০০৮০০ টায় আমাদের বাহিনী একটি বাঁধ ধ্বংস করে। বাঁধ কাটার সময় শত্রুরা তাদের উপর মেশিন গানের গুলি করে। আমাদের বাহিনী ৩ ইঞ্চি মর্টারের ৩ টি বোমা দিয়ে জবাব দেয়। এতে শত্রুরা নিস্তব্ধ হয়ে যায় তবে ক্ষয় ক্ষতি যানা যায়নি। ২৯ জুলাই ২০৩০ টায় আমাদের ডিফেন্সে শত্রুরা আক্রমণ করে। সাতক্ষিরা টাউন, শেরপুর, দেবহাটা ও কালিগং থেকে অনেক সৈন্য ভোমরাতে আসে। আমরা ৩ ইঞ্চি মর্টার ও আর্টিলারি দিয়ে তাদের আক্রমণ করি। তাদের প্রচুর নিহত হয়। মধুপুরে রাজাকার আর তাদেরসহযোগীদের প্রচুর লাশ পরে থাকতে দেখা যায়। তারা পথের পাশে পড়ে পচতে থাকে। শত্রুরা তাদের লাশ সংগ্রহ করে কবর দিতে আসেনি। বিহারিদের লাশ ও রাস্তার পাশে পরে ছিল। ৩০১২০০ টায় শত্রুরা আমাদের ডিফেন্সে আক্রমণ করে। তাদের যথা যথ জবাব দিয়ে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

 

৩৮ জি ০০৯০

৩১৪০০

৩১-৭-৭১ নায়েক আব্দুল ওয়াহিদ এ পি মাইনে অনেক আহত হন। তিনি চিরতরে পঙ্গু হতে পারেন। তাহে ব্যারাকপুর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। একজন সিভিলিয়ান সোর্স আমাদের জানায় ২৯ জুলাই ২০৩০ টায় একটি শেলিং এ ২০ জন নিহত হয়।

 

৩৯ জি ০০৯১

০১১৪০০

১-৮-৭১ ০১০০৩০ এ ০৫৩০ টায় শত্রুরা আমাদের উপর এম জি ও এল এম জি দিয়ে আক্রমণ করে। তারা ৮১ মি মি শেল নিক্ষেপ করে। আমাদের বাহিনী ৩ ইঞ্চি মর্টার ইউজ করে।

 

৪০ জি ০০৫৯

০২১২০০

২-৮-৭১ শত্রুরা ভোমরাতে ০১২১০০ টায় ৩ ইঞ্চি মর্টার ও এল এম জি দিয়ে আক্রমণ করে। আমরা গজাডাঙ্গা থেকে ২ ইঞ্চি মর্টার ও এল এম জি দিয়ে জবাব দেই। কাকডাঙ্গায় এ কয় ও ই কয়ের একটি প্লাটুন আর্টিলারি দিয়ে আক্রমণ করে। শত্রুরা এম জি ও এল এম জি দিয়ে জবাব দেয়।

 

৪১ জি ০০৯৮

০৫১২০০

৬-৮-৭১ খবর পাই শত্রুরা মহাম্মাদপুরে ট্রেন্ড বানাচ্ছে। গাংনি মধুপুর রাস্তায় আমাদের একটি বাহিনী ০৫০৩০০ টায় ১০০ গজ টেলিফোন তার নষ্ট করে। নাবাল্কারিতে এল এম জি দিয়ে শত্রু আক্রমণের জবাব দেয়া হয়।

 

৪২ জি ০০৯৯

০৬০৭০০

৭-৮-৭১ গাংনি মাদ্রাসায় ০১২১০০ টায় আর্টিলারি শেল দিয়ে ১০ পাকসেনা নিহত করা হয়। ০১ জুলাই বাইকারি স্কুলে বাংলাদেশের পতাকা টানানো হয়। কিন্তু ০২০৮০০ টায় পাকসেনারা সেটা সরাতে যায়। আমাদের বাহিনী তাদের আক্রমণ করে। তাদের ২ জন নিহত ও ১ জন আহত হয়। আমাদের বাহিনী ০৫১৮১৫ টায় বাইকারিতে আক্রমণ করে। শত্রুরা জয়বাবা দেয়। কোন হতাহত হয়নি। আমাদের বাহিনী সানকরাতে শত্রুদের আক্রমণ করলেই কোন উত্তর আসেনি। শত্রুদের মনোবল খুব নিচে চলে এসেছে। জনগণ মুক্তি বাহিনীকে সাহায্য করে।

 

৪২-বি জি ০০১০৩

০৮১৯০০

৯-৮-৭১ বাইকারিতে ০৭০৩৪৫ টায় আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। বাইকারি কাথান্দাতে টেলিফোনের তার নষ্ট করে। প্রায় ১৫০ গজ। ৫ পাকসেনা নিহত ও ৪ রাজাকার নিহত হয়। ৫ রাজাকার আহত হয়। আমাদের হতাহত নাই।

 

৪৩ জি ০১০৮

১৪১৪০০

১৫-৮-৭১ সাতক্ষিরা, তালা, কলারোয়া, মনিরামপুর ও কেশবপুরে ৪ টি গেরিলা বাহিনী পাঠানো হয়। তারা সেখানে গোপন ঘাঁটি করে ও শান্তিবাহিনীর লোকদের হত্যা, টেলিফোন ও অন্যান্য যোগাযোগ নষ্ট করার দায়িত্বে ছিল।
৪৪ জি ০১০৭

১৪১৩৩০

১৫-৮-৭১ শত্রুরা বাইকারি এস কিউ ৭৯০৬ খালি করে দেয়। তারা এখন সাতানই এস কিউ ৮৭০৯ এ সম্মিলিত হয়। সেখানে একটি ২ তালা বিল্ডিং আছে যেখানে তাদের মূল আশ্রয়। বাইকারি ওয়াপদা বিল্ডিং ধ্বংস করার পর সেখানে ৭০ টি এ/ পি মাইন পাওয়া যায়। একটি ট্রুপ্স কাঠান্দা ও খালিনগর এলাকায় প্রভাব বজায় রেখেছে। এ পি মাইনে ২ জন সিভিলিয়ান নিহত ও ৪ জন আহত হয়। আমাদের একজন মুক্তিযোদ্ধা পা হারায়। ১৩১৫৩০ এ তাকে ব্রায়াকপুর হাসপাতালে পাঠানো হয়। আব্দুস সাত্তার পিতা-নিজামুদ্দিন মরল, গ্রাম টি বি হাসপাতাল রোড, থানা-তালা। তার লাশ বাংলাদেশের ভিতরে দাফন করা হয়।

 

৪৫ জি ০১১০

১৪০৮৫০

১৫-৮-৭১ মহাম্মাদপুর লাটখোলা (পুরাতন) জি আর ৮৭৫৯৮৫, হাটখোলা (নতুন) ৮৬০০৯ বাঁকাল ব্রাঞ্চ জি আর ৯৯৮৯২৭ সি এন্ড বি জি আর ৯৫৩০০৭ সাতানই (আবদার হাঁট খোলা) এস কিউ ৮৭০৯ ভোকেশনাল ইন্সটিটিউট এস কিউ ০৩৯৬ এম/এস ৭৯ বি/১৩।

 

৪৬ জি ০১১৩

১৫১৬০০

১৬-০৮-৭১ ১৫১১০০ টায় ভোমরাতে ১ সেকশন সৈন্য যায়। ওয়াপদা এম্ব্যাঙ্কমেন্ট দেখতে পায়। এমজি ও এল এম জি দিয়ে যুদ্ধ চলে।

 

৪৭ জি ০১৯৯

১৭১১০০

১৮-৮-৭১ ৭ ৬২ মি মি চাইনিজ রাইফেল দিয়ে ভোমরাতে আক্রমণ করা হয়। আমাদের বাহিনী ৩০৩ রাইফেল ও এস এল আর দিয়ে জবাব দেয়। ১ জন জে সি ও আর ১১ জন ও আরসহ আমাদের একটি পেট্রোল পার্টি ১৬০১০০ ঘনাতে যায় এস কিউ ৮৪০৪ এবং বি ও পি ধ্বংস করে। আব্দুর রাজ্জাক দফাদার খুন হন।

 

৪৮ জি ০১৯৯

১৭১১০০

১৮-৮-৭১ মুক্তি ফৌজ এস কিউ ৯৮ মাধব নগর ও ঘনা খানপুরে আধিপত্য রেখেছিল। তারা ভোমরাতে এস কিউ ৮৯১৬ শত্রুদের আক্রমণ করে। আমাদের ২ টি সেকশন সেখানে ছিল। একটি সেকশন এস কিউ ৮১৯৫ পদ্মা সংকরে যায়। আরেকটি বাইকারিতে কাথান্দা, খালিলানগর ও ছাইঘারিয়া যায়। একটি এল এম জিসহ কুশখালির সম্রাট হোসেন আটক হন।

 

৪৯ জি ০১২৬

২১২২৫০

২২-৮-৭১ গেরিলাদের ৪/৫ টি ব্যাচ তালা থানা, সাতক্ষিরা, হরিপুর, কলারোয়া ও পাইকগাছায় পাঠানো হয়। তাদের রাজাক্র বন্দি করতে বলা হয় ও অস্ত্র জব্দ করতে বলা হয়। তারা টেলিযোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে। সাতক্ষিরা যশোর রোডে এ টিকে মাইন পুঁতে রাখে। আরেকটি দল অন্য একত্ব শত্রুপক্ষকে গোয়েন্দা নজরদারিতে রাখে।

 

৫০ জি ০১৩২

 

২৪-৮-৭১ শত্রুরা আলিপুরে ৬০ টি শক্তিশালী বাঙ্কার বানাচ্ছিল। এস কিউ ৯১৯৯। আবদার হাটখোলা (সাতানি) অবস্থানে এস কিউ-৮৭০৯ শত্রু আরও বাড়ানো হয়। ১৪ আগস্ট রিপর্টে জানা যায় প্রায় ৭০ জন পাক সাতক্ষীরা হাসপাতালে ভর্তি আছে। আমদুল জ্বলিল রাজাকার টিক্রিপারা, থানা-ফকিরহাট, জেলা খুলনা অস্ত্র বিহীন অবস্থায় আমাদের কাছে আত্ম সমর্পন করে। বাংলাদেশ থেকে ভারতে পাট আসছিল। এটা পরামর্শ দেওয়া হয় অনুমোদিত এজেন্ট ছাড়া পাট ক্রয় করা উচিত না।বাংলাদেশ থেকে ভারতে আমাদের এলাকায় প্রায় ২০০/৩০০ মন পাট আসে।

 

৫১ জি নীল

২৪০৭৩০

২৪-০৮-৭১ ২০ আগস্ট ৩ ইঞ্চি মর্টার দিয়ে ০১১ শত্রু পজিশনে গাংনি ব্রিজ জি আর ৮৪২৯৯৪ পুড়িয়ে দেয়া হয়। শত্রুদের ৭ জন হতাহত হয়। ভোমরাতে আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে। ২ জন আহত হয়।

 

৫২ জি ০১৩৩

২৪২০০০

২৫-৮-৭১ সাতক্ষিরায় এস কিউ৪৬০৩ এম/এস ৭৯ এফ/২ এ টিকে মাইনে ১ টি বেসরকারি বাস ও ১ টি ৩ টন ডজ ধ্বংস হয়। বাসে ৩ জন বেসামরিক ও ১ জন পুলিশ কনস্টেবল নিহত হয় ও ৯ জন আহত হয়। ২৩০৪৩০ টায় ঘটে। সাতক্ষিরা স্কুলে রাজাকার ও পাকসেনাদের মধ্যে গণ্ডগোল হয়। ৮ জন পাকসেনা নিহত হয়েছে। রাজাকার বাহিনীর কমান্ডার পালিয়ে গেছে।

 

৫৩ নং নাই

২৬০০৩০

২৬-৮-৭১ আব্দুস সাত্তার নামে আমাদের একজন সদস্য যে কিছু দিন আগে বিশেষ কারণে চলে গেলেও আজ আবার ফিরে এসেছে। সে ১৪-৭-৭১ তারিখে গিয়েছিল আর ২৫-৭-৭১ তারিখে ফিরে আসে। টাকিপুরে ৭ জন মুক্তিযোদ্ধা পাকসেনাদের কাছে বন্দি হয়। তাদের বানারিপাড়ায় গুলি করে হত্যা করা হয়। এখানে আক্রমণ করে ১৫ জন রাজাকার হত্যা করা হয়। কিন্তু আমাদের লোকদের সেখানে আত্ম সমর্পন করতে হয় ও তাদের মেরে ফেলা হয়।

 

৫৪

বইতে নাই

     
৫৫ জি ০১৩৭

২৬০০৩০

২৬০০৩০ ২৫ আগস্টে যাদের পাঠানো হয়েছিল তারা ফিরে আসে। আমি আলি নামে আঁক পাক দোসরকে হত্যা করে তারা। তার গ্রাম রসুলপুর থানা সাতক্ষিরা। এস কিউ ৯০৬৩তে গেরিলাটা অ্যামবুশ করে ১ টি বাস ও ডজ আর্মি উড়িয়ে দেয় এ টিকে মাইন দিয়ে। বাসের ৯ রাজাকার, ৪ পাক পুলিশ নিহত হয়। ৯ জন আহত হয়।

 

৫৬ জি ০৩৯

২৬০০৩০

২৬-৮-৭১ আম্লালা শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান হায়দার আলিকে আমাদের বাহিনী ধরে আনে হাজিপুর এস কিউ ৯৩১৪ এম/এস ৭৯ বি/৩ থেকে। স্থানীয় এম পি এ মমতাগ উদ্দিন আহমেদ বলেন তাকে জোর করে চেয়ারম্যান বানানো হয়েছে। দেশ বিরোধী কোন কাজে আসলে সে জড়িত না। তাই তাকে ছেড়ে দেবার অনুরোধ করা হয়। ২১ তারিখ মুক্তিবাহিনী চলে আসে। তাদের ৫ জনে সবাই নিরাপদে ফেরত আসে। তারা একটি ম্যাগাজিন ফয়লার হারায়। জুডাঙ্গা তহশিল অফিস তারা গ্রেনেড দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়।

 

৫৭ জি ০১৪৩

২৭১০৩০

২৮-৮-৭১ ২৫-৮-৭১ গেরিলারা শান্তি কমিটির মতই চেয়ারম্যান আর জয়াডাঙ্গা সাতক্ষিরারা রাজাকার কমান্ডারকে হত্যা করে। ২৬২২১০ তারিখে বারুয়াখালি ব্রিজ জি আর ৮৬৭০৬২ এম/এস ৭৯ বি/ এ আংশিক ধ্বংস করা হয়। ২৭-৮-৭১ তারিখে ৪ জনের একটি দলকে কলারোয়া এস কিউ ০৩২০ পাঠানো হয়। তারা জয়াডাঙ্গাতে জি আর ৯২১১৪৫ ২ জন সেন্ট্রিকে হত্যা করে।

 

৫৮ জি ০১৪৪

২৭১৯৩০

২৮-৮-৭১ ভোমরা মহাম্মাদপুর রাস্তায় জি আর ৮৪০৯৭৩ এম/এস ৭৯ এ/১৩ একটি জিপে অ্যামবুশ করা হয়। ৩ ইঞ্চি মর্টার ও মেশিনগান দিয়ে এটা করা হয়। যাত্রীরা সবাই এদিক সেদিক পালাতে থাকে। জিপটি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

 

৫৯ জি ০১৪৮

০৩১০০০

৩-৯-৭১ ০১২৩৩০ টায় বরুয়াখালি ব্রিজ জি আর ৮৫৯৯৯৯ এম/এস ৭৯ বি / ৪ ২৯ আগস্ট ধ্বংস করা হয়। ভোমরা বি ও পি এলাকায় জি আর ৮০০৯৭৯ এম/এস ৭৯ বি /১৪তে শেলিং এ ৩ জন নিহত হয়।

 

৬০ জি ০১৪৯

০৩১৯০৫

৫-৯-৭১ ০২১০৩০ টায় বাঘাছড়ায় টেলিফোন তার নষ্ট করা হয়।

 

৬১ জি ০১৫৩

০৫১৫০০

৫-৯-৭১ গাংনি শাখায় জি আর ৮৬২৯৮১ এম/এস ৭৯ বি /১৪ আক্রমণ করা হয়। শত্রুরা এম জি ও এল এম জি দিয়ে জবাব দেয়। হতাহত জানা যায়নি। আমাদের ডিফেন্সে এস কিউ ৮২৩৮ তারা আক্রমণ করে। আমরা তাদের প্রতিহত করি। ভোমরাতে এস কিউ ৮৩৯৭ শত্রুরা আক্রমণ চালায়। সময় ০৫০২০০ টা।

 

৬২ জি ০১৫৫

০৬২৩০০

৭-৯-৭১ ঝাউডাঙ্গায় জি আর ৯২১১৪৫ এম/এস ৭৯ এফ/ আই নিয়মিত বাহিনী এক্রমন করে। ৬ টি ৩০৩ রাইফেল ৪ টি এমও উদ্ধার করে। ৬ জন পাঞ্জাব পুলিশ-২ জন নিহত ও ৪ জন আহত করা হয়। আমাদের হতাহত নাই। ১ টি স্টেন ম্যাগাজিন ২ টি এস এল আর ম্যাগাজিন আমরা হারাই। জি আর ০০০০৭৫ এম/এস ৭৯ এফ / ৬ ধ্বংস করা হয়।

 

 

৬৩ জি ০১৭৩

১১১৫০০

১২-৯-৭১ ১১১৪০০ টায় আমাদের বাহিনী ভোমাতে ২ জনকে হত্যা করে।

 

৬৪ জি ০১৮৩

১৪০৫০০

১৬-৯-৭১ ১৩/১৪ তারিখ রাতে পাটকেলঘাটা-চুকনগর রাস্তায় গন বাহিনী ২ টি টেলিফোন খুঁটি ও ১ কি মি তার নষ্ট করে।

 

৬৫ জি ০৭১৯

১৭১০৩০

১৭-৯-৭১ ১৬ সেপ্টেম্বর কোটাবারইতে এস কিউ ৮৪২৬ এম/এস ৭৯ বি /১৩ আক্রমণ করা হয়। ২৩ জন হতাহত। আমাদের শূন্য। ১৬ সেপ্টেম্বর বিকেলে ভোমরা ও গাংনিতে শেল নিক্ষেপ। শত্রুদের ১০ জন নিহত। লাশ ট্রাকে সাতক্ষিরা নেয়া হয়। মহাম্মাদপুরে জি আর ৮৮৫০০৫ এম/এস ৭৯ বি /১৩ ০ গাংনি জি আর ৮৬২৯৮২ এম/এস ৭৯ বি /১৩ ১৭০২০০ সেপ্টেম্বর আক্রমণে ৬ জন নিহত।

 

৬৬ জি ০১৮৯

১৮-৯-৭১

১৮-৮-৭১ ১৮০২০০ সেপ্টেম্বর শোঁকরাতে আমাদের বাহিনী অকস্মাৎ রাজাকার ও শান্তি বাহিনীকে আক্রমণ করে। গুলি বিনিময় হয়। হতাহত জানা যায়নি।

 

৬৭ জি ০১৯০

১৮-৯-৭১

১৯-৯-৭১ ১৬/১৭ তারিখ রাতে গণবাহিনী মহাম্মাদপুরে আক্রমণ করে ৬ জন হত্যা করে যাদের ১ জন মেজর।

 

৬৮ জি ০১৯৫

২২-১৭-০০

২২-৯-৭১ কটা এস কিউ ৮৬২৮ এম/এস ৭৯ বি /১৩তে ২০০৯৩০ টায় আমাদের বাহিনী আক্রমণ করে ৪ জনকে হত্যা করে।

 

৬৯ জি ০২০৩

২৪১৮০০

২৫-৯-৭১ ২৪ সেপ্টেম্বর ভোমরাতে আক্রমণে ৪ জন নিহত
৭০ জি ০১২৩

০১১৭০০

২-১০-৭১ ভারুখালি জি আর ৮৭৯০৬১ এম/এস ৭৯ বি /১৩তে ১ অক্টোবর আক্রমণে ৪ জন নিহত।

 

৭১

 

জি ০২১৬

০৪১৭০০

৫-১০-৭১ ২৪ সেপ্টেম্বর মাধবকাঠি ও জুয়াডাঙ্গায় ৮ টি টেলিফোন খুঁটি ধ্বংস করা হয়।

 

৭২ জি ০২১৯ ০ ০২২১

১১-১০-৭১

১২-১০-৭১

১২-১০-৭১ ১০০১৩০ অক্টোবর মাধবকাঠি জি আর ৯২১১০৮ এম/এস ৭৯ এফ/১ আক্রমণে ২০ জন নিহত ও ৩০ জন আহত হয়। আমাদের আ জন আহত। শত্রুদের একটি ৩ টনি যান ধ্বংস। আমরা একটি ৩০৩ রাইফেল ও ৯ টি এল এম জি ম্যাগাজিন হারাই।

 

৭৩ জি নাই

১৩-১০-৭১

১৩-১০-৭১ ১৩০৯৩০ অক্টোবর শত্রুরা শেলিং করে। ইতিন্দ্রাতে এস কিউ ৭৮৯৮ এম/এস ৭৯ বি /১৪ একটি কয় ক্যাম্প করে।

 

৭৪ জি ০৩৩৯

২৫-১০-৭১

২৬-১০-৭১ ২৩২৩০০ অক্টোবর ৩ ইঞ্চি মর্টার দিলে নিয়মিত বাহিনী মাহমুদ পুরে এস কিউ ৮৭৯৮ এম/এস ৭৯ বি /৪ আক্রমণ করে ১০ জন হতাহত হয়।

 

৭৫ জি ০৩৩৯

২৫-১০-৭১

২৬-১০-৭১ সানকরাতে এস কিউ ৮৩৯১ এম/এস ৭৯ বি /১৪ ২৫০৩০০ অক্টোবর আক্রমণ করে ২ জন হত্যা করা হয়। কিছু আহত হয়। আমরা ১ টি এস এল আর হারাই।

 

৭৬ জি ০৩৪২

২৬-১০        -৭১

২৬-১০-৭১ ২৫০৭০০ অক্টোবর রাজাকার রা সানকরা এস কিউ ৮৩৯১ এম/এস ৭৯ বি /১ ৪ থেকে পদ্মা সানকরা এস কিউ ৮১৯৫ এম/এস ৭৯ বি /১৪ আর্টিলারি সাপর্ট নিয়ে যাচ্ছিল। ৩ ঘণ্টা হুলই বিনিময় হয়। কোন হতাহত নাই। শত্রুরা চানবারিয়া গ্রাম এস কিউ ৮৩৯৪ এম/এস ৭৯ বি /১৪

 জ্বালিয়ে দেয়।

 

৭৭ জি ০৩৪৮ ২৯

২৯০৭১

২৯১০৭১ কদমতলা এস কিউ ৯৪০৫ এম/এস ৭৯ এফ /২ ২৮০১ অক্টোবর নিয়মিত বাহিনী আক্রমণ করে। অনেক গুলি বিনিময় হয়। হতাহত জানা যায়নি। পারিলুয়া এস কিউ ৮৭৯১ এম/এস ৭৯ এফ/ ২ ও সানকরা এস কিউ ৮৩৯১ এম/এস ৭৯ এফ/২ এর মাঝখানের টেলিফোন তার ২৮০২০০ টায়কেটে ফেলা হয়। সানকরা এস কিউ ৮৩৯১ এম/এস ৭৯ এফ/২ ৩ ইঞ্চি মর্টার দিয়ে আক্রমণ করে ২৮০১০০ টায়। হতাহত জানা যায়নি।