15

কৃষ্ণপক্ষের চাঁদ

আমি কনক। ‘আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্রগ্রাম’-এ কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়ছি। ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের দলিলপত্র: থেকে বলছি’ প্রোজেক্টের একজন সদস্য হতে পেরে আমি গর্বিত। মুক্তিযুদ্ধ আমাদের গৌরবের ইতিহাস, আমাদের ভালোবাসা-শ্রদ্ধার ইতিহাস। বর্তমান ও আগামী প্রজন্মের কাছে ইউনিকোডে এই দলিলপত্র ছড়িয়ে দেয়ার উদ্দেশ্যে লিও একদিন এই প্রকল্প হাতে নিয়েছিলেন। উনার মাধ্যমেই এ প্রোজেক্টের সাথে আমার সংযুক্ত হওয়া। দলিলপত্র নিয়ে কাজ করা নিঃসন্দেহে গর্বের ব্যাপার। এ প্রোজেক্টে কাজ করতে পেরে আমি ভীষণ খুশি 😀

১৫ তম খন্ডের ১২ তম সাক্ষাৎকারটি নিয়ে আমি কাজ করেছিলাম। সেটি ছিল জনাব এম, আর সিদ্দিকীর সাক্ষাৎকার। যুদ্ধপূর্ব জাতীয় পরিষদের সদস্য, যুদ্ধকালীন প্রশাসনিক পরিষদ প্রধান, ইস্টার্ন জোন। এছাড়া উনি যুদ্ধকালীন যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় বাংলাদেশ মিশনের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। যুদ্ধের রণকৌশল, পাকিস্তানি হানাদারের বর্বরতার চাক্ষুষ প্রমাণ যেন ফুটে উঠেছে এখানে। এ প্রোজেক্টে কাজের শুরুতে লিও ভাইয়ের নির্দেশে দলিলপত্রের ছবি নিয়ে একটা অ্যালবাম তৈরি করেছিলাম আমি। নানা ধরনের রিএকশন আসা শুরু হয় তখন থেকে। সমস্যা নেই। কলম চলবে। আমরাও এগিয়ে যাবো। দুঃখের ব্যাপার হলো, এ প্রজন্ম এখনো মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানে না। তবে আর বেশিদিন নয়, জানতে না চাইলেও জানানো হবে। সাথে থাকুন, দেখতে থাকুন আমরা কিভাবে কতদূর যাই J