6

তুষার শুভ্র

আমার বন্ধু রাশেদের হাত ধরেই অনুবাদের কাজে আসা। শুরুতে তার প্রস্তাবটা শুনেই দেশের জন্য কিছু করার প্রচন্ড এক আবেগ অনুভব করেছিলাম। কাজও শুরু করে দিলাম। কিন্তু কাজ করতে গিয়ে বুঝলাম শুধু আবেগ আর দেশের জন্য ভালোবাসাটা যথেষ্ট না। দরকার অধ্যবসায়ের আর ধৈর্য্যের। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে বিদেশের বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত খবরগুলো অনুবাদ করতে গিয়ে আমি শিউরে উঠছিলাম বারবার। নির্মম গনহত্যার এই খবরগুলো প্রত্যেক বাঙালিকে শিউরে দেবে বলে আমার বিশ্বাস। খুব ভালো লাগছে এত বিশাল এক কাজের ক্ষুদ্র অংশ হতে পেরে। সব বাঙালির হাতে অ্যাপটি শীঘ্রই পৌঁছে যাক আর ওয়েবসাইটটি তার ডালপালা মেলে মাথা উঁচু করুক এই আমার কামনা।