10

Fakhruzzaman Sayam

দেশের জন্য কাজ করতে পারা সব সময়ই অনেক আনন্দের। হোক সেটা পাশের ডাস্টবিনে আপনার হাতের খালি চিপসের প্যাকেটটি ফেলা। আমি অন্তত এসব থেকেও আনন্দ খুঁজি। আনন্দহীন কাজ বেশী দূর আগাতে পারে না। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস লিখতে পাড়াটা আমার কাছে আনন্দের। আমার কাছে এটাও দেশপ্রেম। যাঁদের কথা লিখা হচ্ছে তাঁদের কৃতকাজের তুলনায় হাজার ভাগে ক্ষুদ্রকায় হতে পারে কিন্তু আমার কাছে এর তাৎপর্য ছিল বিশাল। মূলত এই চিন্তা থেকেই এখানে কাজ করার জন্য আগ্রহী হই।

দশম খণ্ডের অল্প কটি পাতা আমার দ্বারা কম্পাইলড হয়েছে। তার আগে নবম খণ্ডেও অল্প কিছু কাজ করি। পরীক্ষাসহ অন্যান্য কাজ ও কিছু পারিবারিক দায়িত্ব পালনের কারণে নিয়মিত কাজ করা হয়ে উঠে নি। বিষয়টি পীড়াদায়ক। আনন্দের কাজ করতে না পারা সব সময়ই পীড়া দেয়। যাঁদের সাথে এই অল্প কিছু কাজ করতে পেরেছি তাঁদের সামনে নিজেকে সব সময় ক্ষুদ্রই মনে হয়। তাঁদের কাজের পরিমাণ ও দায়িত্ব অনেক বিশাল। শুরুতে ভেবেছিলাম আগ্রহী হয়েও হয়ত কাজ পাব না। আমি চাইতাম অন্তত একটি পাতা কম্পাইল করেও যেন ইতিহাসের অংশ হতে পারি। আমাকে সে সুযোগ করে দেয়ার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ।